ঢাকা, রবিবার, ১ বৈশাখ ১৪৩১, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৪ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

সৈয়দপুর বিমানবন্দরের ১৫২টি গাছ পানির দামে বিক্রির অভিযোগ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৩১ ঘণ্টা, মার্চ ৪, ২০২৪
সৈয়দপুর বিমানবন্দরের ১৫২টি গাছ পানির দামে বিক্রির অভিযোগ

নীলফামারী: নীলফামারীর সৈয়দপুর বিমানবন্দরের ১৫২টি জীবন্ত মেহগনি গাছ পানির দরে বিক্রি করা হয়েছে। নিলাম দরপত্রের নামে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সিন্ডিকেট চক্র যোগসাজশ করে হাতিয়ে নিয়েছে কয়েক লাখ টাকা।

বর্তমান বাজার মূল্যে ওইসব গাছের মূল্য কমপক্ষে ৫০ লাখ টাকা।  

বেশ কয়েকজন কাঠ ব্যবসায়ীর সঙ্গে কথা বলে গাছগুলোর বাজার মূল্যের তথ্য মিলেছে।

স্থানীয় কাঠ ব্যবসায়ী স্বপন চন্দ্র রায় বলেন, বিমানবন্দর চত্বরের গাছগুলো মেহগনি। এ গাছগুলো অত্যন্ত মূল্যবান। এই গাছগুলো প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ বছর বয়সী। ফলে গাছগুলো পুরোপুরি পুষ্ট হয়েছে। আর মেহগনি গাছের কাঠের চাহিদা সবচেয়ে বেশি। সহসাই এমন পরিপক্ব গাছ পাওয়া যায় না। যার কারণে ওই বিক্রিত গাছগুলো অনায়াসেই ৫০ থেকে ৬০ লাখ টাকায় বিক্রি হতো। তার মতে মাত্র ৬ লাখ টাকায় গাছগুলো বিক্রি করায় সরকার বিপুল পরিমাণ রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হয়েছে।

এ বিষয়ে মোবাইল ফোনে কথা হয় সৈয়দপুর বিমানবন্দর ব্যবস্থাপক সুপ্লব কুমার ঘোষের সঙ্গে। তিনি বলেন, সব নিয়ম কানুন মেনে জীবন্ত গাছগুলো বিক্রি করা হয়েছে। বিমানবন্দরে পার্কিংয়ের জায়গা সম্প্রসারণ করতেই এমন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। নিলাম দরপত্র আহ্বানের মাধ্যমেই ১৫২টি গাছ ৬ লাখ টাকায় বিক্রি করা হয়েছে।  

সৈয়দপুর শহরের পরিবেশবাদী সংগঠনের নেতা আশরাফুল আলম বলেন, উন্নয়নের নামে জীবন্ত গাছ কাটা কোনোভাবেই উচিত নয়। এতে প্রাণিকুলের বেঁচে থাকার অক্সিজেনের জায়গায় বিষাক্ত গ্যাস ছড়িয়ে পড়বে। হুমকির মুখে থাকবে মানব সমাজ।  

তার মতে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের উচিত ১৫২টি গাছের বদলে কমপক্ষে ৫০০টি গাছ নতুন করে রোপণ করা। আদৌ কী কর্তৃপক্ষ এমন উদ্যোগ নেবে?

বাংলাদেশ সময়: ২০২৯ ঘণ্টা, মার্চ ০৪, ২০২৪
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।