ঢাকা, শনিবার, ৩০ চৈত্র ১৪৩০, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৩ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

অনুমতি ছাড়াই ২ ইউপি সদস্য বিদেশে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৫৫ ঘণ্টা, মার্চ ১, ২০২৪
অনুমতি ছাড়াই ২ ইউপি সদস্য বিদেশে মো. কাউছার মাতুব্বর ও মো. রফিকুল ইসলাম

ফরিদপুর: ফরিদপুরের সালথা উপজেলার আটঘর ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মো. কাউছার মাতুব্বর ও মাঝারদিয়া ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মো. রফিকুল ইসলাম স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের অনুমতি না নিয়ে সৌদি আরবে পাড়ি জমিয়েছেন। ইউপি সদস্য না থাকায় সাধারণ জনগণের সেবা ব্যাহত হচ্ছে।

তাছাড়া পরিষদের মাসিক সভাসহ বিভিন্ন কাজে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে সংশ্লিষ্ট সবাইকে। এতে সেবাপ্রত্যাশীদের মধ্যে চরম অসন্তোষ ও ক্ষোভ বিরাজ করছে।  

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আটঘর ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া ও খোয়াড় গ্রাম নিয়ে ৫ নম্বর ওয়ার্ড গঠিত। এই ওয়ার্ডে প্রায় সাড়ে ৩ হাজার মানুষ বসবাস করে। ২০২১ সালের ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত আটঘর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে সাধারণ সদস্য পদে বিজয়ী হন গোয়ালপাড়া গ্রামের মৃত গোলাম মহিউদ্দিনের ছেলে কাউছার মাতুব্বর। কাউছার মাতুব্বর ২০১৭ সালের আটঘর ইউনিয়নের আলোচিত জিয়া হত্যা মামলার ৪ নম্বর আসামি। ৪-৫ মাস আগে জিয়া হত্যা মামলার রায় ঘোষণার খবরে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের কোনো অনুমতি না নিয়েই গত ০৬ নভেম্বর ২০২৩ সৌদি আরবে চলে যান কাউছার। ফলে ৮ নভেম্বর আটঘর ইউপি চেয়ারম্যান মো. শহীদুল হাসান খান সোহাগ বিষয়টি সালথা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে (ইউএনও) অবগত করেন। কাউছার মাতুব্বর এলাকায় না থাকায় ৫ নম্বর ওয়ার্ডের প্রায় সাড়ে ৩ হাজারের বেশি বাসিন্দা বিভিন্ন সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।  


সেবাপ্রত্যাশী ও স্থানীয় বাসিন্দা জাহাঙ্গীর ও রাজ্জাক মোল্যা বলেন, আমাদের মেম্বার না থাকায় আমাদের ‘ইউপি থেকে ওয়ারিশ সনদ, জন্মনিবন্ধন, ট্রেড লাইসেন্স, ওয়ার্ডে বরাদ্দ করা সরকারি সব সুযোগ-সুবিধা যেমন: ভিজিএফ, ভিজিডি, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতাসহ উন্নয়নমূলক সব সুবিধা পেতে বিড়ম্বনা পোহাতে হচ্ছে।  

ইউপি সদস্য কাউছার মাতুব্বরের স্ত্রী ইতি বেগম বলেন, পরিষদে তেমন কোনো কাজকর্ম পাওয়া যায় না, তাই আমার স্বামী কাজের জন্য প্রবাসে গিয়েছেন। তবে যেকোনো মুহূর্তে তিনি দেশে ফিরে আসতে পারেন।  

আটঘর ইউপি চেয়ারম্যান মো. শহীদুল হাসান খান সোহাগ বলেন, প্রথম থেকেই কাউছার মাতুব্বর পরিষদের কাজে সময় দেন না। গত ০৬ নভেম্বর সৌদি আরব কাজের জন্য গিয়েছেন। তার অনুপস্থিতিতে ৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাজ করতে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। এ বিষয়ে গত ৮ নভেম্বর চিঠির মাধ্যমে সালথার ইউএনওকে হয়েছে।  

এদিকে, ২০২১ সালের ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত মাঝারদিয়া ইউপি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ৭ নম্বর ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে বিজয়ী হয়ে মো. রফিকুল ইসলাম শপথ নেওয়ার তিন মাস পরেই সরকারি নিয়ম-নীতি না মেনে সৌদি আরব চলে যান। এতে স্থানীয়রা ইউপির বিভিন্ন সেবা থেকে বঞ্চিত হওয়ায় রফিকুল ইসলামের ভাবি মোসা. শারমিন বেগম সমস্ত কাগজে জাল স্বাক্ষর করতেন।  

এ বিষয়ে গত ৩০ জুলাই ২০২৩ সালথা উপজেলার মাঝারদিয়া ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ড খালিশপুট্টি গ্রামের বাসিন্দা ফরিদুজ্জামান মোল্যা ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) বরাবর লিখিত অভিযোগের মাধ্যমে মোসা. শারমিন বেগমের জাল স্বাক্ষরের বিষয়টি অবহিত করে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার আবেদন করেন। এছাড়া অত্র ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. রফিকুল ইসলাম সৌদি আরবে থাকায় তার সদস্য পদ বাতিল করে ইউপি সদস্য নির্বাচন করার জন্য অনুরোধ জানান।


ইউনিয়ন পরিষদ আইন-২০০৯ এ উল্লেখ আছে যে, কোনো ইউপি সদস্য পরপর তিন কার্যকরী মিটিংয়ে অনুপস্থিত থাকলে তার সদস্যপদ বাতিল হবে এবং সুনির্দিষ্ট কারণে বছরে সর্বোচ্চ তিন মাস ছুটি নিতে পারবেন। এছাড়া জন-প্রতিনিধিদের দেশের বাইরে বহির্গমন করতে হলে তাকে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের বাধ্যতামূলক অনুমতি নিতে হবে। এই দুই ইউপি সদস্য স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) (সংশোধন) আইন, ২০১০ এবং ৩৪ এর ৪ (জ) ধারা ভঙ্গ করেছেন।

মাজারদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. আফছারউদ্দিন মাতুব্বর বলেন, একজন ইউপি সদস্য না থাকায় ওই ওয়ার্ডে কাজ করতে সমস্যা হচ্ছে। বিষয়টি আমি সালথার ইউএনওকে জানানোর পরে রফিকুল ইসলামে সম্মানী ভাতা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।  

সালথা ইউএনও মো. আনিছুর রহমান বালী বলেন, আইন অনুযায়ী একজনের দায়িত্ব আরেকজনের পালনের সুযোগ নেই। কাউছার মাতুব্বরের অনুপস্থিতের বিষয়ে ১২ ডিসেম্বর ২০২৩ প্রমাণসহ স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। মো. রফিকুল ইসলামের অনুপস্থিতের কারণে তার সম্মানী ভাতা বন্ধ করে মন্ত্রণালয়কে জানানো হয়েছে। এদের দুজনের বিষয়ে মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত মোতাবেক পরবর্তী সময়ে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।  

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫৫ ঘণ্টা, মার্চ ০১, ২০২৪
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।