ঢাকা, সোমবার, ৯ বৈশাখ ১৪৩১, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ১২ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

শহীদ মিনারে ফুলের ডালা চুরির ভিডিও করায় সাংবাদিকের ওপর হামলা

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০২৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২৪
শহীদ মিনারে ফুলের ডালা চুরির ভিডিও করায় সাংবাদিকের ওপর হামলা

রাজবাড়ী: শহীদ মিনার থেকে ফুলের ডালা চুরির ভিডিও করায় একটি জাতীয় দৈনিকের জেলা প্রতিনিধির ওপর হামলা করেছে স্থানীয় কয়েকজন যুবক।

বুধবার(২১ ফেব্রুয়ারি) দুপুর পৌনে ১২টার দিকে রাজবাড়ীর শহীদ খুশি রেলওয়ে ময়দানে এ ঘটনা ঘটে।

আহত সাংবাদিকের নাম আব্দুল হালিম শেখ বাবু (৩০)। তিনি রাজবাড়ী পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ডের চর-লক্ষ্মীপুর গ্রামের জালাল শেখের ছেলে।  

তিনি দৈনিক দেশ রুপান্তর ও ডেইলি বাংলাদেশ পত্রিকার রাজবাড়ী প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।  

এ ঘটনায় সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, দুপুর ১২টার কিছু সময় আগে পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য রাজবাড়ী শহরের শহীদ খুশি রেলওয়ে মাঠের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে যান সাংবাদিক আবদুল হালিম বাবু। এসময় শহীদ মিনারের বেদী/পাদদেশ থেকে ফুলের ডালা নিয়ে যাচ্ছিলেন ফুলের দোকানি ও তাদের লোকজন। বিষয়টি ফোনে ভিডিও ধারণ করেন সাংবাদিক হালিম বাবু। ভিডিও করা দেখে কয়েকজন এগিয়ে আসেন। তারা ভিডিও করার কারণ জানতে চান। সাংবাদিক পরিচয় দেওয়ার পর ভিডিও মুছে ফেলতে বলেন। হালিম বাবু ভিডিওটি মুছতে অস্বীকৃতি জানালে অজ্ঞাতনামা ১০-১২ জন তাকে টেনেহিঁচড়ে শহীদ মিনারের পশ্চিম পাশে ঝোপের ভেতর নিয়ে গিয়ে তাকে এলোপাতাড়ি মারধর করে। এ সময় তার চোখের কোণাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে নীলাফোলা জখম হয়। একপর্যায়ে পুলিশ সদস্যরা সেখানে এলে হামলাকারীরা দৌড়ে পালিয়ে যায়।

পরে হালিম বাবুর সহকর্মীরা তাকে উদ্ধার করে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শী উর্মি বলেন, আমি শহীদ মিনারের সামনে বসেছিলাম। তখন কয়েকজন যুবক শহীদ মিনার থেকে ফুলের ডালা নিয়ে যাচ্ছিলেন । এসময় এক সাংবাদিক বিষয়টি ভিডিও করলে তাকে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে গিয়ে ১০/১২ জন যুবক মারধর করে। পরে পুলিশ এগিয়ে এলে তারা পালিয়ে যায়।

ভুক্তভোগী আব্দুল হালিম শেখ বলেন, আমি পেশাগত দায়িত্ব পালনের উদ্দেশে শহীদ মিনারের ছবি নিচ্ছিলাম। তখন স্থানীয় কয়েকজন যুবক ফুলের ডালা নিয়ে যাচ্ছিল। আমি তখন বিষয়টি ভিডিও করলে তারা আমাকে বাঁধা দেয়। এক পর্যায়ে তারা আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে ও টেনেহিঁচড়ে শহীদ মিনারের পাশে ঝোপের ভেতর নিয়ে গিয়ে গাছের ডাল দিয়ে বেধড়ক পেটায়। এক পর্যায়ে পুলিশ ও আনসার সদস্য এগিয়ে আসলে তারা পালিয়ে যায়।

রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় সাংবাদিকের ওপর যে ঘটনা ঘটেছে সেটা কোনোভাবেই কাম্য না। আমরা এই ঘটনার একটি ভিডিও ফুটেজ হাতে পেয়েছি। কয়েকজনকে আমরা ইতোমধ্যে শনাক্ত করেছি। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা যা রয়েছে আমরা গ্রহণ করব।

বাংলাদেশ সময়: ১০২৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২৪
এসএসএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।