ঢাকা, শনিবার, ৩০ চৈত্র ১৪৩০, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৩ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

ডাকাতির টাকা দিয়ে গাড়ি কিনে আবার ডাকাতি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৩৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২৪
ডাকাতির টাকা দিয়ে গাড়ি কিনে আবার ডাকাতি

ঢাকা: গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) পরিচয়ে এক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে সাড়ে ৩৬ লাখ টাকা টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) হাতে গ্রেপ্তার দুজন হলেন- আবুল কাশেম ওরফে জাহিদ (৪৫) ও মোস্তাফিজুর রহমান (৩৯)।

ডিবি জানায়, ডাকাতির টাকা যেন ফেরত দিতে না হয় সেজন্য ডাকাতির টাকা বিনিয়োগ করতো ডাকাত দলটি। ডাকাতির টাকায় তারা গাড়ি ও জমি কেনে। সেই কেনা গাড়ি ব্যবহার করে আবার ডাকাতিতে নামে চক্রটি।

মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) তাদের গ্রেপ্তারের বিষয়টি জানান ডিবিপ্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ। তিনি জানান, ১৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ২০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ডিবির ওয়ারী বিভাগ ঢাকার ডেমরা ও যাত্রাবাড়ী এবং পটুয়াখালীর বিভিন্ন স্থানে ধারাবাহিক অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

পরে তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত দুটি মাইক্রোবাসসহ চারটি গাড়ি ও একটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়। তবে লুণ্ঠিত টাকার মাত্র ২০ হাজার টাকা উদ্ধার করতে সমর্থ হয় ডিবি।

গত বছরের ৯ অক্টোবর যৌথভাবে একটি জমি কেনার জন্য নারায়ণগঞ্জের একটি ব্যাংক থেকে মোট ৩৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা তুলে নিয়ে যাওয়ার পথে ডেমরার সুলতানা কামাল ব্রিজের ওপরে ডিবি পরিচয়ধারী ডাকাতদের খপ্পড়ে পড়েন এক ব্যবসায়ী। তাকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে টাকা হাতিয়ে নিয়ে হাত-পা বেঁধে পূর্বাচলে ফেলে চলে যায় ডাকাত দল।

পরে ডেমরা থানায় দায়েরকৃত মামলার তদন্তের পরিপ্রেক্ষিতে ডিবি পরিচয় দেওয়া ডাকাত দলের দুই সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়।

হারুন অর রশীদ বলেন, গ্রেপ্তার মোস্তাফিজের নামে পাঁচটি ও কাশেমের নামে তিনটি মামলা রয়েছে। এসব ডাকাতি ও অস্ত্র মামলায় তারা একাধিকবার কারাগারে গেছেন।

এই দুজনের নেতৃত্বে ডাকাত দলটি দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে ডাকাতি পেশায় জড়িত। তারা ধরা পড়ার ভয়ে ডাকাতির টাকায় তিনটা গাড়ি কিনেছে, একটা মোটরসাইকেল কিনেছে। তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত মাইক্রোবাস এবং পটুয়াখালী থেকে ডাকাতির টাকায় কেনা একটি অ্যাম্বুলেন্স, একটি প্রাইভেটকার, একটি মাইক্রোবাস এবং একটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।

ডিবিপ্রধান বলেন, এর আগেও বিমানবন্দর ফ্লাইওভারের ওপর ডিবি পরিচয়ে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। সে ঘটনায়ও আমরা একটি সংঘবদ্ধ ডাকাত দলকে গ্রেপ্তার করেছিলাম। এ ধরনের ঘটনায় প্রথম কাজ হচ্ছে থানায় অবহিত করা, জিডি বা মামলা করা। তাহলে ডিবি পরিচয়ে ডাকাতিতে জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯২৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২৪
পিএম/এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।