ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৮ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

সোনারগাঁয়ে পুলিশ-আনসারের পিটুনিতে যুবলীগ নেতা হাসপাতালে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯১৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২৪
সোনারগাঁয়ে পুলিশ-আনসারের পিটুনিতে যুবলীগ নেতা হাসপাতালে

নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে পুলিশ ও আনসার সদস্যদের পিটুনিতে নাসির উদ্দিন নামে এক যুবলীগ নেতা আহত হয়েছেন।

রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাতে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের সোনার তরী লোকজ মঞ্চে নাটক চলাকালে জোর করে মঞ্চে উঠাকে কেন্দ্র করে তর্ক-বিতর্কের জেরে এ ঘটনা ঘটে।

বর্তমানে তিনি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এ ঘটনায় সোনারগাঁ থানায় কোনো প্রকার অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। তবে স্থানীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সোনারগাঁ থানার ওসির হস্তক্ষেপে ঘটনার মীমাংসার চেষ্টা চলছে বলে একটি সূত্র নিশ্চিত করেছেন।  

আহত নাসির উদ্দিন সোনারগাঁ উপজেলা যুবলীগের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসবে গত রোববার রাতে সোনার তরী লোকজ মঞ্চে একটি মঞ্চ নাটক পরিবেশিত হচ্ছে। এ সময় নাসির উদ্দিন নিজেকে যুবলীগ নেতা পরিচয় দিয়ে নিয়ম বহির্ভূতভাবে প্রবেশের চেষ্টা করেন। এ সময় দায়িত্বরত আনসার সদস্যরা তাকে বাধা দেন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে উভয়ের মধ্যে ধ্বস্তাধস্তি কিল ঘুষির ঘটনা ঘটে। পরে আনসার সদস্যরা তাকে হাতে থাকা লাইট দিয়ে আঘাত করলে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। পরে স্থানীয়রা তাকে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। এ সময় স্থানীয়রা উত্তেজিত হয়ে উঠে। খবর পেয়ে সোনারগাঁ থানার সেকেন্ড অফিসার পঙ্কজ কান্তি সরকার ঘটনাস্থলে গিয়ে বিচারের আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

এদিকে সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদের সভাকক্ষে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত প্রস্তুতি সভায় যুবলীগ নেতা আহত হওয়ার বিষয়টি আলোচনা উঠে আসে। এ সময় সোনারগাঁ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মহসিন সংসদ সদস্য আব্দুল্লাহ আল কায়সার, সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মাহফুজ ও সোনারগাঁ থানার ওসি এসএম কামরুজ্জামানের হস্তক্ষেপে মীমাংসা করা হবে বলে নিশ্চিত করেন।

আহত যুবলীগ নেতা নাসির উদ্দিন জানান, তিনি সোনারগাঁ উপজেলা যুবলীগের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। পাশাপাশি নাট্যকর্মী হিসেবে কাজ করেন। মঞ্চে নাটক চলাকালে তিনি মঞ্চে যাওয়ার চেষ্টা কালে আনসার সদস্যরা তাকে বাধা দেন। এ সময় তার পরিচয় দেওয়ার পরও তার সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন। এ সময় উভয় পক্ষের বাগবিতণ্ডার এক পর্যায়ে মারধর করেন।

সোনারগাঁ উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আলী হায়দার বলেন, ঘটনাটি অনাকাঙ্ক্ষিত। পুলিশ ও আনসার সদস্যদের পেশাদারত্বের মধ্য থেকে আচরণ করা উচিত।

সোনারগাঁ থানার পরিদর্শক মো. মহসিন বলেন, যুবলীগ নেতাকে কেউ চেনেন না। তারা এক মাসের জন্য লোক ও কারুশিল্প মেলায় দায়িত্ব পালন করতে এসেছেন। বাগবিতণ্ডা ও ধ্বস্তাধস্তির এক পর্যায়ে এক আনসার সদস্যের হাতে থাকা লাইটের আঘাতে কানে লেগে ফেটে যায়। ঘটনাটি ভুল বোঝাবুঝি থেকে হয়েছে। আশা করি এমপি মহোদয়ের হস্তক্ষেপে বিষয়টি মীমাংসা হবে। এ ঘটনায় থানায় কোনো অভিযোগ হয়নি।

সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মাহফুজ বলেন, যুবলীগ নেতা আহত হওয়ার ঘটনাটি পরিদর্শক (তদন্ত) মৌখিকভাবে অবগত করেছেন। তবে লিখিতভাবে কেউ অভিযোগ করলে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯১৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২৪
এমআরপি/জেএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।