bangla news

ঢাকার লালবাগ কেল্লার সম্পত্তি রক্ষার নির্দেশ

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১০-১০-১০ ৯:১৭:১১ এএম

ঢাকার ঐতিহ্যবাহী লালবাগ কেল্লার সম্পত্তি রক্ষার জন্য সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। রোববার বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি গৌবিন্দ চন্দ্র ঠাকুর-এর সম্বন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ সরকারকে এ নির্দেশ দেয়।

ঢাকা: ঢাকার ঐতিহ্যবাহী লালবাগ কেল্লার সম্পত্তি রক্ষার জন্য সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

রোববার বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি গৌবিন্দ চন্দ্র ঠাকুর-এর সম্বন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ সরকারকে এ নির্দেশ দেয়।

নির্দেশে আগামী ৩ মাসের মধ্যে ভূমি জরিপ অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের অফিসের প্রতিনিধির মাধ্যমে জরিপ কাজ সমাধা করতে বলা হয়। জরিপ কাজ সমাধা করার পর উক্ত লালবাগ কেল্লার ভেতরের সকল ধরনের ব্যক্তিগত স্থাপনা অপসারণের নির্দেশও দেয় আদালত।  

লালবাগ কেল্লার ভেতরে ঢুকে সম্পত্তিতে নির্মাণ কাজ করায় প্রশাসনের আপত্তিকে চ্যালেঞ্জ করে এর আগে জনৈক হাজী আবুল হাশেম হাইকোর্টে একটি রিট দায়ের করেন।

এ বিষয়ে রোববার আদালতে শুনানিতে অংশ নিয়ে অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ বলেন, ‘সংবিধানের ২৪ ধারা অনুসারে ঐতিহাসিক স্থাপনা সমূহ সংরক্ষণের জন্য সরকার পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। এ ছাড়া বিচারপতি এবিএম খায়রুল হক ও বিচারপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ-এর সম্বন্বয়ে গঠিত একটি বেঞ্চ একটি মামলার রায় দিয়ে ঐতিহাসিক স্থাপনাসমূহ সংরক্ষণের নির্দেশ দিয়েছিলেন।’

শুনানি শেষে আদালত রোববার অপর এক আদেশে লালবাগ কেল্লার প্রকৃত অবস্থান যেভাবে আছে, সেভাবে সংরক্ষণের আদেশ দেয়। একই সঙ্গে অপর এক আদেশে সকল ধরনের নির্মাণের ক্ষেত্রে ঐতিহ্য সংরক্ষণ আইন ১৯৬৮ এবং ভবন নির্মাণ আইন ২০০৮-এর বিধান মেনে নির্মাণ কাজ করার নির্দেশ দেওয়া হয়।

আদালতে বাদী পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন অ্যাডভোকেট শামসুল হক এবং জাফর সাদিক। সরকার পক্ষে এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম,  ডেপুটি এটর্নি জেনারেল আকরাম হোসেন, সহকারী এটর্নি জেনারেল কাজী বজলুর রশিদ ও রাবেয়া খাতুন অংশ নেন।

অপরদিকে, হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ। তাকে সহযোগিতা করেন আসাদুজ্জামান সিদ্দিকী এবং মাহবুবুল ইসলাম।

বাংলাদেশ সময়: ১৯০০ ঘণ্টা, অক্টোবর ১০, ২০১০

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2010-10-10 09:17:11