ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

দুইবার বিয়ের পরও সন্তান-স্ত্রীকে অস্বীকার করছেন ইউপি চেয়ারম্যান!

ডিস্ট্রিক্ট করেসপনডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯২৯ ঘণ্টা, মে ১০, ২০২৩
দুইবার বিয়ের পরও সন্তান-স্ত্রীকে অস্বীকার করছেন ইউপি চেয়ারম্যান!

জামালপুর: জামালপুরের বকশীগঞ্জে মাহামুদুল আলম বাবু নামে এক ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন তার দ্বিতীয় স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন।

বুধবার (১০ মে) দুপুরে বকশীগঞ্জ পৌরশহরের বাগানবাড়ীতে সন্তানের পিতৃত্ব ও স্ত্রীর মর্যাদার দাবিতে ওই নারী এ সংবাদ সম্মেলন করেন।

 

অভিযুক্ত মাহামুদুল আলম বাবু সাধুরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সম্পাদক ও সাধুরপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

সংবাদ সম্মেলনে দুটি কাবিননামা দেখিয়ে ওই নারী দাবি করেন, তাকে দুইবার বিয়ে করেছেন চেয়ারম্যান বাবু। এরপরও সন্তান ও তাকে অস্বীকার করছেন চেয়ারম্যান। বাড়িতে গেলে তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে তাদের।

সাবিনা ইয়াসমিন অভিযোগ করে বলেন, আমাকে ২০১০ সালে বিয়ে করলেও আট বছর পর (২০১৮ সালে) রেজিস্ট্রি করেন মাহামুদুল আলম বাবু। পরে তালাক দিলেও ২০১৯ সালে রেজিস্ট্রি কাবিন মূলে ২য় দফায় বিয়ে হয় আমাদের। ৬মাস আগে একটি কন্যাসন্তান হয় আমাদের। অথচ এই বিয়ে ও সন্তান উভয়কেই অস্বীকার করে আসছেন চেয়ারম্যান মাহামুদুল আলম বাবু।

তিনি বলেন, সন্তানের পিতৃত্ব ও স্ত্রীর মর্যাদার দাবিতে চেয়ারম্যান বাবুর গ্রামের বাড়ী কামালেরবার্তী যাই। সেখানে আমাকে মারধর করে তাড়িয়ে দেওয়া হয়।  

এ ঘটনায় বকশীগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন বলে জানান ভুক্তভোগী নারী।

বকশীগঞ্জ থানার ওসি সুহেল রানা জানান, সাধুরপাড়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মাহামুদুল আলমের বিরুদ্ধে এক নারী লিখিত অভিযোগ করেছেন। বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে।  

অভিযোগের বিষয়ে সাধুরপাড়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মাহামুদুল আলম বাবুর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভি করেননি।

বাংলাদেশ সময়: ১৯২৭ ঘণ্টা, মে ১০, ২০২৩
এসএএইচ  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।