ঢাকা, রবিবার, ২২ মাঘ ১৪২৯, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৩ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

ডাকাত সন্দেহে আটকের পর বেরিয়ে এলো অন্য কাহিনী!

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯৪৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৫, ২০২৩
ডাকাত সন্দেহে আটকের পর বেরিয়ে এলো অন্য কাহিনী! আটকরা

সিলেট: ডাকাত সন্দেহে দুই যুবককে আটকের পর বেরিয়ে এলো অন্য কাহিনী। অসামাজিক কার্যকলাপ নিয়ে দেনদরবারের ঘটনায় অস্থানা থেকে আটক হলেন আরও তিন নারী।


 
মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ৯টার দিকে সিলেট নগরের মিরাবাজারের আগপাড়ার মৌসুমী আবাসিক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।  
 
স্থানীয়রা জানান, সিলেট সিটি করপোরেশনের ১৮ নম্বর ওয়ার্ডে অবস্থিত আগপাড়ায় মৌসুমী আবাসিক এলাকায় বিগত দিনে বেশ কয়েকটি ডাকাতি ও চুরির ঘটনা ঘটে। যে কারণে এলাকা সুরক্ষিত রাখতে রাস্তার মোড়ে মোড়ে সিসি ক্যামেরা ও ফটক তৈরি করে নৈশ প্রহরী রাখা হয়।
 
সোমবার রাতে সন্দেহজনক ৬ যুবকের পদচারণা দেখে এলাকার বাসিন্দারা ডাকাত সন্দেহে ধাওয়া করেন। এসময় ৪ যুবক পালিয়ে গেলেও ২ জনকে আটক করা হয়। খবর পেয়ে এসএমপি পুলিশের ঊর্ধ্বতন ও পদস্থ কর্মকতারা ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। কিন্তু যুবকদের দেখে পুলিশের সন্দেহ গড়ায় অন্যদিকে। লোকজনের দেখানো মতে তাদের অবস্থান করা ৮৫/বি বাসায় অভিযান চালিয়ে এক নারী ও দুই তরুণীকে আটক করা হয়। বাসাটিতে অসামাজিক কর্মকাণ্ডের তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে পুলিশ। পরে রাত পৌনে ১২টার দিকে ৩ নারী ও ২ যুবককে আটক করে নিয়ে যাওয়া হয় কোতোয়ালি থানায়।
 
আটকরা হলেন-নগরের শাহী ঈদগাহ অনামিকা ১০/২ বাসার নজরুল ইসলামের ছেলে মো মুন্না আহমদ মুন্না (১৮), জৈন্তাপুর উপজেলার লক্ষীপ্রসাদ এলাকার আব্দুল করিমসহ আরও তিন নারী।
 
সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলী মাহমুদ বলেন, ৪ তলা ওই বাসাটির একটি ফ্ল্যাট এক মাস আগে ভাড়া নেন এক নারী। তিনি তরুণীদের দিয়ে পতিতাবৃত্তি করান। তাদের নিজেদের মধ্যে দেনদরবারের একপর্যায়ে ‘ডাকাত’ ‘ডাকাত’ বলে চিৎকার করলে স্থানীয়রা এসে বিষয়টি ধরতে পারেন এবং পুলিশকে খবর দিলে রাত সাড়ে ৯টার দিকে অভিযান চালিয়ে ৩ নারী ও ২ পুরুষকে আটক করা হয়। পরে ওই বাসায় তল্লাশি চালিয়ে অসামাজিক কাজে ব্যবহৃত জিনিসপত্র পাওয়া যায়।
 
স্থানীয়রা আরও জানান, ৮৫/বি নম্বর বাসাটির মালিক দুদু মিয়া প্রবাসে থাকেন। কিশোরগঞ্জের এক ব্যক্তি বাসাটির দেখাশোনা করেন। এ বাসার চতুর্থ তলার ইউনিট এক মাস আগে এক নারী ভাড়া নেন। ভাড়া নেওয়ার সময় তার স্বামী প্রবাসে আছেন বলে জানান। ওই নারী এ বাসায় ভাড়া আসার পরই তার ঘরে দিন-রাতের বিভিন্ন সময় পুরুষদের আনাগোনা দেখে বাসাটির অন্যান্য ভাড়াটিয়া কেয়ারটেকারের কাছে অভিযোগ করলেও তিনি এতে কর্ণপাত করেননি।
 
স্থানীয়দের অভিযোগ- ওই বাসার কেয়ারটেকার এই অনৈতিক কাজের সঙ্গে জড়িত। তাকেও গ্রেফতারের দাবি জানান।
 
বাংলাদেশ সময়: ০৯৪৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৫, ২০২৩
এনইউ/আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa