ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ মাঘ ১৪২৯, ৩১ জানুয়ারি ২০২৩, ০৮ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

অ্যাম্বুলেন্সে করে ৩৪ লাখ টাকা ডাকাতির মূলহোতা র‌্যাবের হাতে ধরা

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৫৯ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০২২
অ্যাম্বুলেন্সে করে ৩৪ লাখ টাকা ডাকাতির মূলহোতা র‌্যাবের হাতে ধরা

রাজশাহী: রাজশাহীতে অভিনব কায়দায় অ্যাম্বুলেন্সে করে পান ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে ৩৪ লাখ টাকা ডাকাতির ঘটনার মূলহোতা আরাফাত হোসেন তুষারকে (৩৩) আটক করেছে  র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৫)।  তুষার মহানগরীর লক্ষ্মীপুর ভাটাপাড়া এলাকার আলতাব হোসেনের ছেলে।

 

বুধবার (৩০ নভেম্বর) দুপুরে র‌্যাবের পক্ষ থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) রাতে রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়ার শেখপাড়া এলাকার আব্দুস সালামের চারতলা বাড়িতে অভিযান চালায় র‌্যাব। অভিযানের সময় তিনতলার একটি ফ্ল্যাট থেকে আরাফাত হোসন তুষারকে আটক করা হয়।

র‌্যাব-৫ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল রিয়াজ শাহরিয়ার জানান, মহানগরীর শাহ মখদুম থানার অদূরে পোস্টাল একাডেমি এলাকায় গত ২২ আগস্ট একটি ডাকাতির মামলা হয়। এরপর থেকে এর মূলহোতাকে আটক করতে এই মামলার ছায়া তদন্ত শুরু করেন তারা।

এর আগে ওই ডাকাত দলের প্রধান আরাফাত হোসেন তুষারসহ অন্য সদস্যরা ২১ আগস্ট ভোর সাড়ে ৫টার দিকে শাহ মখদুম থানাধীন নওদাপাড়া পোস্টাল একাডেমির সামনে ডাকাতির ঘটনা সংঘটিত করে। তারা অভিনব কায়দায় অ্যাম্বুলেন্সে করে এসে দেশীয় অস্ত্রেসজ্জিত হয়ে সিএনজিতে থাকা তিন পান ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ৩৪ লাখ ২৭ হাজার টাকা ডাকাতি করে পালিয়ে যায়।

এরপর থেকে র‌্যাব-৫ সদস্যরা তাদেরকে ধরতে অভিযান অব্যাহত রাখে। পরে মঙ্গলবার রাতে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে তুষারকে শেখপাড়া এলাকা থেকে ধরতে সক্ষম হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ আটক তুষার ডাকাতির ঘটনায় নেতৃত্ব দেওয়ার কথা স্বীকার করেছেন।

আটককৃতকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আজ দুপুরে শাহ মখদুম থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানান ঊর্ধ্বতন এই র‌্যাব কর্মকর্তা।

এদিকে মহানগরীর শাহ মখদুম থানা পুলিশ আরএমপির সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সহায়তায় দুই দফায় অভিযান চালিয়ে সংবদ্ধ এই ডাকাত দলের ৯ আসামিকে গ্রেফতার করে। সেই সাথে ডাকাতি হওয়া টাকার মধ্যে ২২ লাখ ৭৮ হাজার ৬৫ টাকা ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করে। এছাড়া ডাকতির কাজে ব্যবহৃত অ্যাম্বুলেন্সটিও জব্দ করতে সক্ষম হয়। এরইমধ্যে গ্রেফতারকৃত সংঘবদ্ধ ডাকাতদলের দুই সদস্য আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছেন।

আদালতের নির্দেশেক্রমে ৩১ আগস্ট রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. আবু কালাম সিদ্দিক দুর্গাপুর উপজেলার দাওকান্দি বাজারের পান ব্যবসায়ীদের প্রতিনিধি একলাস মোল্লার জিম্মায় উদ্ধারকৃত ২২ লাখ ৭৮ হাজার ৬৫ টাকা হস্তান্তর করেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৫৯ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০২২
এসএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa