ঢাকা, শুক্রবার, ২০ মাঘ ১৪২৯, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১১ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

বরিশালে হঠাৎ পাল্টে গেল মার্কেটের নাম, হতবাক ব্যবসায়ীরা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৫২ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০২২
বরিশালে হঠাৎ পাল্টে গেল মার্কেটের নাম, হতবাক ব্যবসায়ীরা মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত এ মার্কেটের নাম ছিল ‘হাজি মুহাম্মদ মহসিন হকার্স মার্কেট’

বরিশাল: ৩৯ বছর পর বরিশাল নগরে ইতিহাস ও ঐত্যিহের সঙ্গে জড়িয়ে থাকা ‌‌‘হাজি মুহাম্মদ মহসিন হকার্স মার্কেট’ এর নাম পরিবর্তন করে ‘ডিসি মার্কেট’ রাখা হয়েছে।

আর না জানিয়ে হঠাৎ এ মার্কেটের নাম পরিবর্তন নিয়ে হতবাক হয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

সেই সঙ্গে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা। যদিও এরইমধ্যে এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও চলছে সমালোচনা ঝড়।

‌‌‘হাজি মুহাম্মদ মহসিন হকার্স মার্কেট’ এর ব্যবসায়ীরা জানান, মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) দুপুরের দিকে হঠাৎ করেই দেখতে পাই মার্কেটের নাম পরিবর্তন করে ‘ডিসি মার্কেট’ লেখা সংবলিত সাইনবোর্ড লাগানো হচ্ছে। যারা সাইনবোর্ড সাটানোর কাজ করছিলো তারা জানায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্মকর্তা এটি লাগানোর নির্দেশ দিয়েছেন।  

এ কথা শুনে তাৎক্ষনিক ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে কয়েকজন সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্মকর্তার কাছে যান। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে তিনি কোন ভ্রুক্ষেপই করেননি ।

ব্যবসায়ীদের ভাষ্য, বর্তমান সহকারী কমিশনার ভূমি হাজি মুহাম্মদ মহসিন সম্পর্কে জানেন না।  

সুনাম ও  ব্যবসায়িক ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে দানবীর ও শিক্ষানুরাগী ‘হাজি মুহাম্মদ মহসিন’ এর নাম অনুসারে এ জনপ্রিয় মার্কেটের নাম বহাল থাকার দাবি ব্যবসায়ীদের।

ব্যবসায়ী শেখ আবুল হাসেম জানান, ১৯৮৩ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি তৎকালীন বরিশালের (বাকেরগঞ্জ) জেলা প্রশাসক এম.এ বারী বরিশাল নদী বন্দরের পশ্চিমদিকের বর্তমানস্থানে ভাসমান ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের জন্য বরিশালের ‘হাজি মূহাম্মদ মহসিন হকার্স মার্কেট’ এর উদ্বোধন করেন। এরপর থেকে মার্কেটটি সুনামের সঙ্গে ৪০ বছর ধরে পরিচালিত হচ্ছে। বর্তমানে এখানে ২ শতাধিক ব্যবসায়ী রয়েছেন তাদের প্রতিষ্ঠান নিয়ে।

তিনি বলেন, এত বছর পর কিছু না জানিয়ে এবং আমাদের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলোচনা না করে হঠাৎ মার্কেটের নাম পরিবর্তন করা হলো। আমরা চাই সাবেক জেলা প্রশাসক এমএ বারীর স্মৃতি ধরে রাখতে হলেও মার্কেটের নামটি পরিবর্তন না করতে। বর্তমান জেলা প্রশাসন জসীম উদ্দীন হায়দারের কাছে বিনীত অনুরোধ যে, তিনি আমাদের যেন বিষয়টি দেখেন।

নাম পরিবর্তনের বিষয়ে জানতে চাইলে বরিশাল সদরের সহকারি কমিশনার (ভূমি)তারিকুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, মার্কেটের জায়গাটি খাস খতিয়ানের জায়গায় রয়েছে। এটির জেলা প্রশাসক মহোদায়সহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সিদ্ধান্তে হয়েছে।

উদীচী বরিশাল জেলার সভাপতি সাইফুর রহমান মিরন বলেন, কোন কথাবার্তা ছাড়াই ৪০ বছরের ঐতিহ্যবাহী মার্কেটের নাম পরিবর্তন করার বিষয়টি দুঃখজনক। সেখানের ব্যবসায়ীদের লাইসেন্সসহ কাগজপত্র সবই ‘হাজি মূহাম্মদ মহসিন হকার্স মার্কেট’নামে।  বিষয়টি আমলে না নিয়ে কাউকে কিছু না জানিয়ে এভাবে সাইনবোর্ড লাগানো ঠিক হয়নি। এমনকি জেলা প্রশাসকের ওয়েবসাইটেও এ সংক্রান্ত কোন প্রজ্ঞাপন খুঁজে পাওয়া যায়নি।  

তিনি বলেন, খাস খতিয়ান হোক আর যে খতিয়ানের হোক না কেন, সবকিছুই রাষ্ট্রের এবং নাগরিকদের জন্য। আর তা দেখভালের দায়িত্ব জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ভূমি কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট। সে হিসেবে ইচ্ছা করলেই সবকিছু করে ফেলা সম্ভব নয়।

এদিকে সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা বলছেন, এ ধরনের কাজ করার আগে বরিশালের মানুষ ও ব্যবসায়ীদের নিয়ে গণশুনানি কিংবা আলোচনা করা যেত। কারণ ‘হাজি মূহাম্মদ মহসিন হকার্স মার্কেট’বরিশালের ইতিহাস ও ঐতিহ্যের সঙ্গে জড়িত। এখানে অনেকের আবেগও কাজ করে।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৪০ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০২২
এসএম/এসএএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa