ঢাকা, সোমবার, ২ কার্তিক ১৪২৮, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

মনোকথা

মানুষের আবেগ বোঝে লম্বামুখো ঘোড়া

মনোকথা ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৩২৩ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৬
মানুষের আবেগ বোঝে লম্বামুখো ঘোড়া

ঢাকা: মানুষের আবেগ বুঝতে পারে প্রাণিকূলে এমন প্রজাতি খুবই কমই দেখা ‍যায়। এখন পর্যন্ত ধারণা করা হতো কুকুরই একমাত্র প্রাণী যেটি মানুষের রাগ এবং আনন্দের পার্থক্য করতে পারে।



কিন্তু প্রথমবারের মতো প্রমাণ মিলেছে লম্বামুখো ঘোড়া মানুষের আবেগের পার্থক্য করতে পারে।

দি ইউনিভার্সিটি অব সাসেক্স-এর বিজ্ঞানীরা ২৮টি ঘোড়াকে মানুষের হাসিমুখ এবং রাগান্বিত চেহারার ছবি দেখায়। এতে দেখা যায়, তারা মানুষের আবেগের পার্থক্য করার ক্ষমতা রাখে।

এর আগে তাদের কোনো ধরনের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়নি। এসময় পাওয়া যায়, খুব সম্ভবত রাগান্বিত চেহারা দেখে ঘোড়া তাদের বাম চোখ বেশি ব্যবহার করে। এমনিতেই প্রতিকূল পরিস্থিতিতে ঘোড়া বাম দিকে মাথা নাড়ে।
এ অবস্থায় তাদের হৃদস্পন্দনও বেড়ে যায় এবং তাদের মুখমণ্ডল ও আচরণে স্ট্রেসের ছাপ দেখা যায়।

সম্প্রতি একটি জার্নালে গবেষকরা তাদের প্রতিবেদন প্রকাশ করে। গবেষণায় একটি বিষয় পরিষ্কারভাবে উঠে আসে ঘোড়ার ‘ফাংশনাল আন্ডারস্ট্যান্ডিং’ রয়েছে।

ম্যামাল ভোকাল কমিউনিকেশন অ্যান্ড কগনিশন বিষয়ের পি.এইচ.ডি গবেষক অ্যামি স্মিথ গবেষণা কাজে সহযোগিতা করেন। তিনি বলেন, ঘোড়া নেতিবাচক কোনো অনুভূতির বহিঃপ্রকাশ দেখলে শক্তিশালী প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে।

স্বভাবজাতভাবেই এটি করে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হয়। কারণ অন্যান্য প্রাণীদের চেয়ে মানুষের আবেগের পার্থক্য করতে পারার ক্ষমতা ঘোড়ার তুলনামূলক অনেক বেশি।

সামাজিক প্রাণী অর্থাৎ মানুষের সঙ্গে মিশতে পারার ক্ষমতার কারণে হয়তো কুকুর এবং ঘোড়ার মধ্যে এই ক্ষমতা বেশি দেখা যায়। পরবর্তী গবেষণায় এ বিষয়ে আরও বেশি ধারণা পাওয়া যাবে।

প্রিয় পাঠক, ‘মনোকথা’ আপনাদের পাতা। আপনারা জানাতে পারেন বাংলানিউজের ‘মনোকথা’ পাতায় আপনি কি ধরনের প্রতিবেদন দেখতে চান। মনোরোগ নিয়ে যে কোনো মতামত ও আপনার সমস্যার কথা জানাতে পারেন আমাদের।

আমরা পর্যায়ক্রমে অভিজ্ঞ মনোরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিয়ে আপনাদের প্রশ্নের জবাব জানিয়ে দেবো। আপনি চাইলে গোপন রাখা হবে আপনার নাম-পরিচয় এমনি কি ঠিকানাও।

সমস্যার কথা জানানোর সঙ্গে সমস্যার বিস্তারিত বিবরণ, আপনার নাম, বয়স, কোথায় থাকেন, পারিবারিক কাঠামো এবং এজন্য কোনো চিকিৎসা নিচ্ছেন কি না এ বিষয়ে বিস্তারিত আমাদের জানান। শুধুমাত্র সেক্ষেত্রেই সমস্যা সম্পর্কে প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা জানানো সম্ভব হবে।

এছাড়া মানসিক সমস্যা সংক্রান্ত বা এ বিষয়ে বিশেষ যে কোনো লেখা যে কেউ পাঠিয়ে দিতে পারেন আমাদের। আপনার সমস্যা, মতামত বা পরামর্শ ও লেখা পাঠানোর জন্য আমাদের ইমেইল করুন -[email protected]

বাংলাদেশ সময়: ০৩২৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৬
এটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa