ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ কার্তিক ১৪২৮, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

মনোকথা

যে কারণে অন্ধকার ভয় করে!

মনোকথা ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৬ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৭, ২০১৫
যে কারণে অন্ধকার ভয় করে!

ঢাকা: অন্ধকার রাত, বিছানা ঘেঁষে দেয়‍ালের পরেই খস খস শব্দ। মনে হচ্ছে, যেন কেউ হেঁটে যাচ্ছে।

শব্দটা বাড়ছে। দ্রুত উঠে পাশের ঘরে যেতেই, কোথাও কোনো শব্দ নেই!

সকালে আবিষ্কার করা গেল, একটা ইঁদুর বাসা বেঁধেছে ঘরের পাশে।

এমন ঘটনা আমাদের চারপাশে প্রায়ই ঘটে। অনেকেই বলেন, আমি অন্ধকার ঘরে থাকতে পারি না। দম বন্ধ হয়ে আসে, খুবই ভয় করে। যদিও বা থাকি তবে ঘুমের ওষুধ খেতে হয়।

আমরা অন্ধকার ভয় পাই না, মূলত মানুষ অন্ধকারে লুকিয়ে থাকা বস্তুকে ভয় পায়। আসুন জেনে নেওয়া যাক, মনোবিজ্ঞানের ভাষায় কেন মানুষ অন্ধকারে ভয় পায়।

অন্ধকার আমাদের দৃষ্টি শক্তিতে প্রভাব ফেলে। কোনো বস্তু দেখতে, সেটা সম্পর্কে বুঝতে এবং পরিস্থিতি অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নিতে আমাদের চোখের ওপর নির্ভর করতে হয়। বিবর্তনে অন্ধকার থেকে এক সময় আগুন পরে বিদ্যুৎ-বাল্ব আবিষ্কার হওয়ায় মানুষ অন্ধকারে দেখার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে।

গবেষকদের মতে, সেই সময় থেকে অন্ধকারে শিকারি প্রাণির ভয় আমাদের জিনে চলে আসছে।

সম্প্রতি একটি জার্নালে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এটি দাবি করেন তারা। সাধারণত দিনের আলোর চেয়ে শিকারি প্রাণী সন্ধ্যার অন্ধকারে বেশি আক্রমণ করে। মূলত সন্ধ্যা ৬টার পরে। প্রাচীন যুগের সেই প্রচণ্ড ভয়, যুগ যুগ ধরে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে চলে আসছে। ফলে হঠাৎ অন্ধকার হয়ে এলেই আমরা আতঙ্কিত হয়ে যাই।

যদিও প্রকৃতির নিয়ম অনুযায়ী অন্ধকার অর্থ হলো ঘুমানোর সময়।



বাংলাদেশ সময়: ২০১৮ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৭, ২০১৫
এটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa