ঢাকা, শনিবার, ৭ কার্তিক ১৪২৮, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

লন্ডন

লন্ডনে দৈনিক আজাদী সম্পাদককে সংবর্ধনা

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯৩৯ ঘণ্টা, নভেম্বর ২২, ২০১৫
লন্ডনে দৈনিক আজাদী সম্পাদককে সংবর্ধনা ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

লন্ডন: চট্টগ্রাম থেকে প্রকাশিত দৈনিক আজাদী পত্রিকার সম্পাদক এম এ মালেককে লন্ডনে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার (২০ নভেম্বর) পূর্ব লন্ডনের মিডিয়া ক্লাবে ইউকে-বাংলা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে এ সংবর্ধনা দেওয়া হয়।



এ সময় এম এ মালেক বলেন, আজাদী পত্রিকা প্রায় ৪০ বছর ধরে লোকসান দিয়ে চলছে, তবুও এটির প্রকাশনা বন্ধ করা হয়নি। ঢাকা থেকে প্রকাশিত অনেক শীর্ষস্থানীয় দৈনিকের চেয়ে আজাদীর প্রচার সংখ্যা বেশি হলেও চট্টগ্রাম থেকে প্রকাশিত হয় বলে এটিকে মফস্বলের পত্রিকা হিসেবে দেখা হয়। ইচ্ছা করলেই জাতীয় দৈনিক হিসেবে আজাদী ঢাকা থেকে প্রকাশ করতে পারি। তবে আমরা তা করবো না। কারণ আজাদী চট্টগ্রামের অহংকার।

দৈনিক আজাদীর শুরুর ইতিহাস সম্পর্কে তিনি বলেন, পাকিস্তান সৃষ্টির পর অবহেলিত পূর্ব পাকিস্তানের অবহেলিত একটি শহরের নাম ছিল চট্টগ্রাম। প্রিয় শহরটির এই পিছিয়ে থাকা চট্টগ্রামের প্রথম মুসলিম ইঞ্জিনিয়ার আমার বাবা আলহাজ্ব আবদুল খালেককে কষ্ট দিত। ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে নানা লোভনীয় পদে চাকরির সুযোগ পেলেও তা গ্রহণ করেননি তিনি। তৎকালীন চট্টগ্রাম থেকে দু’টি দৈনিক পত্রিকা প্রকাশিত হতো ইংরেজী ভাষায়। এগুলো আমাদের ছাপাখানা থেকেই প্রকাশ করা হতো। এসব দেখে আমার বাবা নিজেই উদ্যোগী হয়ে ১৯৬০ সালের ৫ সেপ্টেম্বর প্রকাশ করেন দৈনিক আজাদী।

তিনি আরও বলেন, নানা ঘাত-প্রতিঘাত পেরিয়ে তিল তিল করে গড়ে তোলা দৈনিক আজাদী পরিণত হয় চট্টগ্রামের মানুষের অদ্বিতীয় মুখপাত্রে। দৈনিক আজাদী দায়িত্বশীলতার সঙ্গে সেই আদর্শ আজও ধরে রেখেছে।

এম এ মালেক বলেন, আমাদের নিজস্ব মালিকানাধীন কোহিনূর ইলেকট্রিক প্রেস থেকেই দৈনিক আজাদী ছাপা শুরু হয়। এই প্রেস বাংলাদেশের ইতিহাসের সাক্ষী। আঞ্চলিক তথা চট্টগ্রামের প্রেস বলে এটির জাতীয় কোনো স্বীকৃতি মেলেনি।  

তিনি আরও বলেন, বৃটেনে এসে সংবর্ধনা পেয়ে আমি গর্ব বোধ করছি। আমি শুধু আমার বাবার গড়ে তোলা পত্রিকার দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছি। চট্টগ্রামবাসীর ভালোবাসার কাছে আজাদী পরিবার আজীবন ঋণী।

সাংবাদিক সোয়েব কবীরের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চ্যানেল আই ইউরোপের কর্ণধার ও ইউকে বাংলা প্রেসক্লাবের আহ্বায়ক রেজা আহমেদ ফয়সল চৌধুরী শোয়াইব। তিনি বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে দৈনিক আজাদী একটি সুদৃঢ় অবস্থান করে নিয়েছে। পাঠকপ্রিয় এই দৈনিক পত্রিকার সম্পাদককে পেয়ে আমরা গর্বিত। আমরা চাই এই গুণী মানুষটির হাত ধরে আজাদীর প্রকাশনা আরও বেগবান হোক।

জিএমজি কার্গো ও ইন্টারন্যাশনাল মিডিয়ার সার্বিক সহযোগিতায় অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন- ব্রিটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের মেম্বারশিপ ডিরেক্টর মনির আহমেদ, সাপ্তাহিক বাংলা টাইমস’র সম্পাদক নজরুল ইসলাম বাসন, বিমান বাংলাদেশ’র সাবেক কান্ট্রি ম্যানেজার মোহাম্মদ আলী, সাপ্তাহিক বাংলানিউজ’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুর রব মল্লিক, ইউকে বাংলা প্রেসক্লাবের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা আব্দুল আউয়াল মামুন, বাংলা টাইমস’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহমেদ নাসির, ব্যারিস্টার তাহমিনা কবীর, সাপ্তাহিক বাংলা সংলাপ সম্পাদক মোশাহিদ আলী, চ্যানেল এস’র হেড অব চ্যারিটি তৌহিদুল করিম মুজাহিদ, মিজানুর রহমান লিংকন, বাংলা টিভির সিনিয়র নিউজ এডিটর সরওয়ার হোসাইন প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ০৯৩৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ২২, ২০১৫
আরএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa