ঢাকা, শুক্রবার, ৭ মাঘ ১৪২৭, ২২ জানুয়ারি ২০২১, ০৮ জমাদিউস সানি ১৪৪২

লন্ডন

‘গ্রেট ব্রিটিশ বেক অব’ জিততে যাচ্ছে বাংলাদেশি তরুণী

সৈয়দ আনাস পাশা, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৪১ ঘণ্টা, অক্টোবর ৬, ২০১৫
‘গ্রেট ব্রিটিশ বেক অব’ জিততে যাচ্ছে বাংলাদেশি তরুণী নাদিয়া হোসেন / ছবি: সংগৃহীত

লন্ডন: তিন কন্যার পার্লামেন্ট জয়ের পর ব্রিটেনে নতুন আরেকটি রেকর্ড গড়তে যাচ্ছেন আরেকজন বাংলাদেশি নারী। ব্রিটেনের সেরা বেকার হতে যাচ্ছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত নাদিয়া হোসেন।

বিবিসি-১ এর ‘গ্রেট ব্রিটিশ বেক অব’ অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে ইতোমধ্যে সেমিফাইনালে পৌঁছেছেন নাদিয়া। টেলিভিশনে  সেমিফাইনাল পর্যন্ত প্রচারিত ছয়টি পর্বের এ প্রতিযোগিতা ব্রিটিশ মূলধারায় এমন সাড়া ফেলেছে যে, খোদ ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনও এখন নাদিয়া’র একজন ভক্ত।

ব্রিটিশ মিডিয়ার কাছে তার মন্তব্য ‘একজনই জিতবে, সে নাদিয়া। কারণ তীব্র চাপের মধ্যেও সে শান্ত থাকতে পারে’।  

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, দলের কনফারেন্সে বক্তব্য দেয়ার প্রস্তুতির পাশাপাশি 'গ্রেট ব্রিটিশ বেক অব’ প্রতিযোগিতার ফাইন্যাল পর্ব উপভোগ করাও  ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর কাছে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। কয়েক মিলিয়ন দর্শকের সঙ্গে নিজ পরিবার সদস্যদের নিয়ে তিনি নিয়মিতই টিভিতে দেখছেন অনুষ্ঠানটি। মধ্যাহ্নের আগে ছেলেমেয়েদের টেলিভিশন দেখা নিষেধ হলেও  'গ্রেট ব্রিটিশ বেক অব’ এর কারণে এই নিষেধাজ্ঞাও শিথিল করেছেন ক্যামেরন।

ব্রিটিশ একাডেমি ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডস বিজয়ী প্রতিযোগিতা ‘গ্রেট ব্রিটিশ বেক অব’ ২০১০ সাল থেকে বিবিসি প্রচার করে আসছে। এবারের প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত নাদিয়া হোসেইন। প্রতিযোগিতার মোট ৬টি পর্ব দাপটের সঙ্গে অতিক্রম করে এসেছেন ৩০ বছর বয়সী এই বাংলাদেশি। গড়ে ৯.৫ মিলিয়ন দর্শক টেলিভিশনের পর্দায় উপভোগ করেছে প্রতিটি  পর্ব, দেখেছে ব্যাকিংয়ে নাদিয়ার নৈপুণ্য। শুধু সেমিফাইনালই দেখেছে ১০.২ মিলিয়ন দর্শক। ফাইনালে এই সংখ্যা ১৫ মিলিয়ন ছাড়াবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে।

বুধবার অনুষ্ঠিত হবে ‘গ্রেট ব্রিটিশ বেক অব’ এর ফাইনাল পর্ব। এতে চূড়ান্ত জয়ের ব্যাপারে নাদিয়া যেমন আশাবাদি, ঠিক তেমনি নাদিয়ার জয়ের বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীও। সেমিফাইন্যালে উঠে আসা অপর দুই প্রতিযোগীর চেয়ে ৬৭ পয়েন্টে এগিয়ে রয়েছেন নাদিয়া।

নাদিয়ার পিতামাতার আদি নিবাস সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলায়। ধর্মভীরু নাদিয়ার জন্ম ও বেড়ে ওঠা ব্রিটেনে। লন্ডন থেকে চল্লিশ মাইল দূরবর্তী শহর লুটনে কেটেছে নাদিয়ার শৈশব ও কৈশোর। বর্তমানে স্বামী সন্তান নিয়ে উত্তর ইংল্যান্ডের লীডসে বসবাস করলেও অধিকাংশ সময়ই থাকেন লুটনে। লুটনের স্থানীয় একটি হাইস্কুলে অধ্যয়নকালীন সময় থেকেই তিনি কেক ও নানা ধরনের পিঠা জাতীয় খাদ্যদ্রব্য তৈরি করতেন। মার্শাল নামে তার একজন স্কুল শিক্ষক নিজ বাড়িতে ট্রাডিশনাল ব্রিটিশ কেক, পেস্ট্রি ও পুডিং তৈরিতে নাদিয়াকে উৎসাহিত করেন। বাড়িতে এসে নাদিয়া শিক্ষকের শেখানো পদ্ধতিতে এসব তৈরি করতেন। ধীরে ধীরে এলাকায় বেকার হিসেবে পরিচিতি পেতে থাকেন তিনি। এরই এক পর্যায়ে বিবিসিতে প্রচারিত ‘গ্রেট ব্রিটিশ বেক অব’ অনুষ্ঠানে নাম লেখান নাদিয়া। এরপর আর তাকে পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি।

বাংলাদেশ সময়: ১২৩৭ ঘণ্টা, অক্টোবর ৬, ২০১৫
জেডএম/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa