ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৪ মাঘ ১৪২৭, ২৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

লন্ডন

লন্ডনে ইউকে বিসিসিআই'র নেটওয়ার্কিং অনুষ্ঠান

সৈয়দ আনাস পাশা, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৩০৯ ঘণ্টা, জুলাই ২২, ২০১৫
লন্ডনে ইউকে বিসিসিআই'র নেটওয়ার্কিং অনুষ্ঠান ছবি : বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

লন্ডন: লন্ডনে ছয় বিশিষ্ট ব্যবসায়ীকে স্বাগত জানিয়ে বিশেষ নেটওয়ার্কিং অনুষ্ঠান করেছে ইউকে বাংলাদেশ ক্যাটালিষ্ট অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ইউকেবিসিসিআই)।

মঙ্গলবার (২১ জুলাই) স্থানীয় সময় দুপুরে পূর্ব লন্ডনের আমানত ব্যঙ্কুটিং হলে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন কর‍া হয়।



নেটওয়ার্কিং অনুষ্ঠানে যে ৬ জনকে স্বাগত জানানো হলো তারা হলেন- দুবাই আল হারামাইন ইন্টারন্যাশনালের ব্যাসায়ী ব্রিটেন প্রবাসী মাহতাবুর রহমান নাসির, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এম এ গনি, ড. এম এ মৌলা মিয়া, আব্দুল কাইয়ুম খালিক (জামাল), হারুন মিয়া এবং নাজিনুর রহিম। ৬ জনই নিজ নিজ ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী ও কমিউনিটির পরিচিত মুখ।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন- সংগঠনের প্রসিডেন্ট বজলুর রশিদ এমবিই ও চেয়ারম্যান বিশিষ্ট শিল্পোদ্দ্যোক্তা ইকবাল আহমদ ওবিই।

অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- ব্রিটেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার এম এ হান্নান, বাংলাদেশ ক্যাটারার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিসিএ) প্রেসিডেন্ট পাশা খন্দকার, ক্যানারী ওয়ার্ফ পিএলসি গ্রুপের হেড অব কমিউনিটি অ্যাফেয়ার্স জাকির খান ও ব্যারনেস পলা মঞ্জিলা উদ্দিন।  

স্বাগত বক্তব্যে বজলুর রশীদ এমবিই নতুন উদ্যোক্তা তৈরিতে ইউকেবিসিসিআই এর প্রয়াস অব্যাহত আছে জানিয়ে বলেন, সংগঠন প্রতিষ্ঠার অল্প সময়ের মধ্যেই ইউকেবিসিসিআই ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তা মহলে ব্যাপক সাড়া ফেলতে সক্ষম হয়েছে। তিনি নতুন ৬ ডিরেক্টরকে স্বাগত জানান।
শিল্পপতি ইকবাল আহমেদ ওবিই তার বক্তব্যে বলেন,  ব্রিটেন-বাংলাদেশ ব্যবসায়ীদের মধ্যে শুধু সেতুবন্ধনই নয়, বরং নিজেদের মূলধন ও লাভ্যাংশ যাতে নির্বিঘ্নে আন্তর্জাতিক বাজারে ঢুকতে পারে সে বিষয়ে উভয় সরকার ও প্রশাসনে লবিং চালাবে ইউকেবিসিসিআই।

হাইকমিশনার এম এ হান্নান তার বক্তব্যে অতীত ভুলে গিয়ে নতুন প্রজন্ম ও আগামীর স্বপ্নের বাংলাদেশ নিয়ে ভাবনার আহবান জানান ব্যবসায়ীদের। তিনি বলেন, আসুন  বাংলাদেশের সমৃদ্ধি ও প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে উন্নীত করতে ইউকেবিসিসিআই ও বাংলাদেশ হাইকমিশন এক সঙ্গে কাজ করি।

অনুষ্ঠানে কী নোট উপস্থাপন করেন ইউকে ট্রেড অ্যান্ড ইনভেষ্টমেন্টের ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড এডভাইজার অ্যালান রাইড।

তিনি বলেন, ইউকেবিসিসিআই’র নানা পর্যায়ের লবিং বিশেষ করে ব্যবসায়ীদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে যে সব পদক্ষেপ ও সুপারিশ করা হয়েছে সেটা উভয় দেশের ব্যবসা ও বিনিয়োগের জন্যে উপকারী ও ব্যবসাবান্ধব বলে মন্তব্য করেন।

অ্যালান রাইড বলেন, এক সময় আমরা শুধু মাত্র এক্সপোর্ট এবং ইম্পোর্ট সংক্রান্ত নানা তথ্য শেয়ার ও তার আলোকে যে সব সুপারিশ আসতো সেগুলো আলাপ আলোচনার মাধ্যমে সুযোগ সুবিধা প্রদানে কাজ করেছি। বর্তমানে কনজারভেটিভ সরকার মনে করে, ব্যাবসায়ীরা রফতানি ব্যবসায়ের ক্ষেত্রে যেমন ভুমিকা রাখতে পারেন, তেমনি তাদের বিনিয়োগের ফলও ব্রিটিশ সোসাইটিতে অবদান রাখে। রাইড ব্যবসা ক্ষেত্রে স্থানীয় কনস্যুলারের মাধ্যমে সকল সুযোগ সুবিধা ও সহযোগিতা প্রদান অব্যাহত রাখার আশ্বাস দেন ইউকেবিসিসিআইকে।

বক্তব্য শুরুর আগে সদ্য যোগ দেওয়া ৬ ব্যাবসায়ীকে ডিরেক্টর হিসেবে আনুষ্ঠানিক ভাবে বরণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে ব্যবসায়ী, কমিউনিটি লিডার, রাজনীতিক ও সাংবাদিকসহ কমিউনিটির শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আব্দুর রউফ জেপী।

বাংলাদেশ সময়: ০৩০৮ ঘণ্টা, জুলাই ২২, ২০১৫
বিএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa