ঢাকা, মঙ্গলবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৮, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ সফর ১৪৪৩

লন্ডন

সাবেক ব্রিটিশমন্ত্রীর আ.লীগ সরকারকে সমর্থন, এমপির না

সৈয়দ আনাস পাশা, লন্ডন করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২১৭ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৬, ২০১৪
সাবেক ব্রিটিশমন্ত্রীর আ.লীগ সরকারকে সমর্থন, এমপির না ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

লন্ডন: ব্রিটেনের রাজধানী লন্ডনে বিএনপি-জামায়াত ঘরানার একটি সংগঠনের নামে আয়োজিত সেমিনারে এসে সাবেক ব্রিটিশমন্ত্রী ও লেবার দলীয় সংসদ সদস্য জিম ফিটজপেট্রিক অনেকটা স্পষ্ট ভাষায়ই বাংলাদেশের বর্তমান সরকারের প্রতি তার সমর্থনের কথা জানান দিলেন। তবে একই অনুষ্ঠানে লেবার দলের অপর এক সংসদ সদস্য ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের সমালোচনাও করেন।



মঙ্গলবার (২৫ নভেম্বর) বিকালে ব্রিটিশ পার্লামেন্ট ভবন সংলগ্ন পোর্টকেলিস হাউসে বিএনপি-জামায়াত ঘরানার ‘সিটিজেন মুভমেন্ট’ নামে একটি সংগঠন এ সেমিনারের আয়োজন করে।

আর সেখানেই পূর্ব লন্ডনের বাঙালি অধ্যুষিত পপলার অ্যান্ড কেনিংটাউন এলাকার সংসদ সদস্য জিম ফিজপেট্রিক বাংলাদেশ সরকারের প্রতি তার এই সমর্থনের কথা জানান।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের সঙ্গে ব্রিটেনের ঘনিষ্ঠ ঐতিহাসিক সম্পর্ক রয়েছে। এই সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। দেশটির রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে যতই মতভেদ থাকুক আমরা কিন্তু আমাদের ঐতিহাসিক সম্পর্কের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশকে সমর্থন দিয়ে যাবো। ’

জিম ফিটজপেট্রিক আরও স্পষ্ট করে বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশের বর্তমান সরকারকে সমর্থন করি। শুধু বর্তমান সরকার নয়, যে দলের সরকারই ক্ষমতায় আসুক আমরা তার সঙ্গে কাজ করতে চাই, তাকে সমর্থন করতে চাই। ’

অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তা ও বাংলাদেশ থেকে আসা বিএনপিঘনিষ্ঠ অতিথিরা সবাই ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের সমালোচনা ও নতুন নির্বাচন দাবি করলেও এমপি জিম ফিটজপেট্রিক এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেননি।

তিনি বরং বলেন, গণতন্ত্রের সুষ্ঠু চর্চার জন্য ভবিষ্যত নির্বাচনে সকলের অংশগ্রহণ করা উচিত। বাংলাদেশের জনগণের সমৃদ্ধিও কামনা করেন তিনি।

বক্তৃতা শেষে সাবেক এই ব্রিটিশমন্ত্রী সেমিনারস্থল ত্যাগ করলে, তার বক্তৃতার সমালোচনা করে ফ্লোর থেকে বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মহিদুর রহমান।

তিনি বলেন, এমপি জিম ফিজপেট্রিকের মন্তব্য পরিষ্কার নয়। বাংলাদেশ ও দেশটির বর্তমান সরকারকে তারা সমর্থন করেন এটি ভালো কথা। তাই বলে ভোটারবিহীন একটি প্রহসনের নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতা আঁকড়ে থাকা একটি অবৈধ সরকারকেও তারা সমর্থন করেন, একজন ব্রিটিশ এমপি’র এমন মন্তব্য সমর্থনযোগ্য নয়।

যুক্তরাজ্য বিএনপি’র সাবেক আহ্বায়ক সিটিজেন মুভমেন্টের সংগঠক এম এ মালেকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই সেমিনারে ব্রিটিশ রাজনীতিকদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন লেবার দলীয় এমপি সায়মন ডানসজাক, লিবারেল ডেমোক্রেট দলীয় এমপি ডেভিড ওয়ার্ড, হাউস অব লর্ড সদস্য লর্ড কোরবান হোসেন, লর্ড নজির আহমেদ ও ব্যারোনেস পলা উদ্দিন।

সেমিনারে যোগ দিতে বাংলাদেশ থেকে এসেছিলেন বিএনপি-জামায়াত ঘরানার বুদ্ধিজীবী ফরহাদ মজহার ও ড. তুহিন মালিক।

বিএনপির সহসভাপতি শমসের মুবিন চৌধুরী ও বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী সেমিনারের দর্শক সারিতে উপস্থিত থাকলেও কোনো বক্তব্য রাখেননি।

সেমিনারে এমপি জিম ফিটজপেট্রিক বাংলাদেশের সরকারের প্রতি তার সমর্থনের কথা জানালেও লেবার দলীয় অপর এমপি সায়মন ডানসজাক ছিলেন ৫ জানুয়ারির নির্বাচন নিয়ে সমালোচনামুখর।

তিনি সকল রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের উপর গুরুত্ব দিয়ে বলেন, গণতন্ত্রের সুষ্ঠু চর্চায় জনগণের ভোটে নির্বাচিত সরকারের কোনো বিকল্প নেই।

৫ জানুয়ারির নির্বাচনে অর্ধেকেরও বেশি আসনে কোনো বিরোধী প্রার্থী ছিলো না স্মরণ করিয়ে দিয়ে সায়মন ডানসজাক বলেন, জনগণ তাদের প্রতিনিধি বাছাইয়ের সুযোগই পায়নি ওইসব আসনে।

সকলের অংশগ্রহণে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের গুরুত্ব তুলে ধরতে ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের প্রথম বর্ষপূর্তির দিন ব্রিটিশ পার্লামেন্টে আরও একটি সেমিনার আয়োজনের কথাও এ সময় ঘোষণা করেন সায়মন ডানসজাক।

হাউস অব লর্ডসের একমাত্র বাংলাদেশি সদস্যা ব্যারোনেস পলা উদ্দিনও বাংলাদেশ ও দেশটির জনগণের প্রতি তার সমর্থনের কথা জানিয়ে ৫ জানুয়ারির নির্বাচন সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকেন সেমিনারে।

ডেভিড ওয়ার্ড, লর্ড আহমেদ ও লর্ড কোরবান হোসেন জাতীয় স্বার্থকে দলীয় স্বার্থের উর্ধ্বে রেখে ভূমিকা পালনের জন্যে বাংলাদেশের রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতি আহবান জানান।

তারা সকল রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণে আগামীতে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের প্রতি তাদের আগ্রহের কথা জানান সেমিনারে।

সেমিনারে ফরহাদ মাজহার ৫ জানুয়ারির নির্বাচন ও নির্বাচন পরবর্তী  রাজনৈতিক অবস্থা সম্পর্কে অবহিত করেন উপস্থিত ব্রিটিশ রাজনীতিকদের।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ বর্তমানে একটি ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। মানবাধিকার, আইনের শাসন, গণতন্ত্র এ বিষয়গুলো দেশটি থেকে বিলুপ্তির পথে বলে মন্তব্য করেন ফরহাদ মজহার।

ড: তুহিন মালিকও বর্তমান সরকারের কঠোর সমালোচনামুখর ছিলেন সেমিনারে।

বাংলাদেশের আইনের শাসন ও মানবাধিকার পরিস্থিতির চরম অবনতির বিস্তারিত ব্যাখ্যা দিতে যাওয়ার একপর্যায়ে সায়মন ডানসাক এমপি’র ইশারায় অনুষ্ঠানের সভাপতি এম এ মালেক তাকে নিচুস্বরে কিছু বললে তিনি বক্তৃতা সংক্ষিপ্ত করে বসে পড়েন।

বাংলাদেশ সময়: ২২১৫ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৬, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa