ঢাকা, রবিবার, ৪ মাঘ ১৪২৭, ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ০২ জমাদিউস সানি ১৪৪২

লাইফস্টাইল

গায়ে হলুদে জামদানিতে কনে

লাইফস্টাইল ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪১২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১, ২০২০
গায়ে হলুদে জামদানিতে কনে

বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার ঠিক আগে অনুষ্ঠিত হয় গায়ে হলুদ। যা প্রতিটি মেয়ের জন্য অন্য রকম একটি দিন।

সব মেয়ে চায় এ দিনটি স্মরণীয় করে রাখতে। তখন মনের মধ্যে যেমন আনন্দ থাকে, তেমনি থাকে অজানা ভয়। কারণ, পরদিন নতুন মানুষের সঙ্গে শুরু হবে নতুন পথচলা।

তবে যত যাই হোক হলুদের দিনটি স্মরণীয় করে রাখতেই হবে। আলাদা সেই ভাবকে ফুটিয়ে তুলতে হলে হলুদে কনের জন্য জামদানি হতে পারে সেরা পছন্দ।  

সাধারণত হলুদের অনুষ্ঠান রাতে হয়ে থাকে এবং সাজটাও হয় ভারী। সেখানে কনের জন্য হলুদ, সবুজ, নীল বা হালকা গোলাপি- যে কোনো এক রঙের জামদানি শাড়ি এনে দিতে পারে ক্লাসিক্যাল রূপ। এছাড়াও এগুলোতে কন্ট্রাস্ট হিসেবে থাকতে পারে বিভিন্ন সুতার কাজের মিশ্রণ। যেমন, হলুদ জামদানি শাড়ির পাড়ে সবুজ সুতার কাজ বা সবুজ জামদানির সঙ্গে পাড়ে হলুদ সুতার কাজ হতে পারে কনের শাড়ি। রাতের অনুষ্ঠানের জন্য ডিপ রঙের হলুদ শাড়ি বেশি মানাবে। ব্লাউজটা হতে পারে ঘটি হাতা যাতে জামদানির সঙ্গে আলাদা একটা সৌন্দর্য এনে দেবে। আটপৌরেভাবে জামদানি শাড়ির সঙ্গে ঘটি হাতার ব্লাউজ তার সঙ্গে কাঁচা ফুলের গহনা কনেকে এনে দেবে অন্য রকম একটি চেহারা। এখন অনেক ক্ষেত্রে ছেলে-মেয়ে উভয়ের গায়ে হলুদ একসঙ্গে হয়ে থাকে। তাই ছেলের জন্য জামদানি পাঞ্জাবি হবে সেরা পছন্দ। যা মেয়ের শাড়ির সঙ্গে কিছুটা মিল থাকবে।

যারা ঘরোয়াভাবে সাজতে চান বা খুব কম সময়ে যাদের হলুদের অনুষ্ঠানিকতা শেষ করতে হবে তাদের জন্যও জামদানি হতে পারে সেরা পছন্দ। জামদানি শাড়ি পরার ফলেই আলাদা একটা সৌন্দর্য চলে আসে। তার সঙ্গে চোখ একটু ভারী করে সাজিয়ে, ঠোঁটে গাঢ় রঙের লিপস্টিক, সম্ভব হলে হাতে-পায়ে আলতা লাগিয়ে নিন। এদিন ফুলের গহনা কনের সাজে এনে দেবে আভিজাত্য।  

গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান শুধু যে কনের জন্যই স্বরণীয় দিন তা নয়। তার সঙ্গে কনে পক্ষের এবং বর পক্ষের মেয়েদেরও অনেক ধরনের চিন্তাভাবনা থাকে হলুদের শাড়ি নিয়ে। কারণ মেয়েরা সুযোগ পেলেই নিজেকে সাজিয়ে নিতে চায় আলাদা রঙে। তাদের ক্ষেত্রেও জামদানি শাড়ি হতে পারে সেরা পছন্দ। কনের জামদানিতে যেহেতু দুই রঙের সংমিশ্রণ থাকতে পারে তাই এর একটি রঙ বেছে নিতে পারে কনে পক্ষ এবং বিপরীত রঙ হতে পারে বর পক্ষের মেয়েদের শাড়িতে এবং ছেলেরা পাঞ্জাবিতে। বাড়ির বয়ষ্কদের জন্যও হতে পারে জামদানি শাড়ি।  

হলুদের আনুষ্ঠানিকতা বাঙালি সংস্কৃতিতে যুগ যুগ ধরে চলে আসছে। সেই আনুষ্ঠানিকতায় যদি থাকে জামদানি তাহলে তার প্রভাব থেকে যাবে সব সময়। ছোটদের থেকে শুরু করে বড়রা পর্যন্ত সবার জামদানির প্রতি আলাদা একটা ভালোবাসা রয়েছে। হলুদের অনুষ্ঠানে জামদানি একটি কনের জন্য যেমন তার দিনটিকে স্বরণীয় করে রাখবে তার সঙ্গে বাঙালির ঐতিহ্য জামদানিও প্রাধান্য পাবে বিশেষ দিনের প্রতিটি মূহুর্তে।

লিখেছেন জনপ্রিয় অনলাইন শপ Kakoly's Attire - সত্ত্বাধিকারী কাকলী তালুকদার।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১, ২০২০
এসআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa