ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ শাবান ১৪৪৫

লাইফস্টাইল

স্বর্ণের পরিবর্তে রূপার গহনা

লাইফস্টাইল ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০২২৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১, ২০১৭
স্বর্ণের পরিবর্তে রূপার গহনা রূপার গহনা (ফাইল ফটো)

স্বর্ণের চেয়ে কম দাম, লকারে রাখার ঝামেলা নেই এবং ডিজাইনে অনেক বেশি বৈচিত্র্য থাকায় স্বর্ণের চেয়ে রূপাকেই এগিয়ে রাখছেন ফ্যাশন সচেতন মানুষজন।

ভারতের বিশেষজ্ঞ ও গবেষকরা জানিয়েছেন, ফ্যাশনের অনুসঙ্গ হিসেবে আপনি রূপা কেন ব্যবহার করবেন এমন ছয়টি কারণ। আসুন জেনে নেওয়া যাক…

স্বর্ণের গহনার অনুরূপ:
রূপার গহনা বানাতে খরচ অনেক কম হয়।

স্বর্ণের ডিজাইনে রূপার গহনা তৈরি করা যায়। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন এখনকার দিনে সবাই রুপার গহনার দিকে বেশি ঝুঁকছেন যার কারণ হলো এর হরেক রকমের ডিজাইন।

মিলিয়ে পড়া যায়:
আগেকার দিনে সোনা ও রূপা একসঙ্গে পড়ার কথা ভাবাই যেতো না। সাম্প্রতিক সময়ে ইন্টারনেটে বিভিন্ন ফ্যাশন স্টোরগুলোতে সোনা ও রূপা মিলিয়ে গহনা তৈরির একটি ট্রেন্ড দেখা যায়। বিভিন্ন সেলিব্রেটিরাও এটি ভালোভাবেই গ্রহণ করছেন।

হাল ফ্যাশনে পরিবর্তন:
বর্তমান সময়ে ব্যবহারকারীরা উপজাতীয় গহনার ডিজাইন বেশি পছন্দ করছেন। দুল, রিং, নেকলেস, ঝুমকার ডিজাইনে এসেছে পরিবর্তন। রুপা দিয়ে খুব সহজেই ডিজাইনগুলো বানিয়ে নেওয়া যায়।

পছন্দ মতো পাথর বসানো:
সোনার তুলনায় যেকোনো ধরনের পাথর খুব সহজেই এতে বসিয়ে ফেলা যায়। কাজেই রূপাতে আপনার পছন্দ মতো পাথর বসিয়ে নিতে কোনো সমস্যা হবে না।

চিন্তামুক্ত থাকুন:
সোনার গহনা বাসায় রাখতে অনেকেই চান না কিন্তু রূপার গহনা আপনি বাসাতেই রেখে দিতে পারেন। চুরির ভয় কম। লুকিয়ে রাখার ঝামেলা নেই।

আকর্ষণীয় লুক:
বিভিন্ন অনুষ্ঠানে রূপার গহনা সহজেই আপনার চেহারার সৌন্দর্য বাড়িয়ে তুলবে। উৎসবের দিনগুলোতে রূপার ঝুমকা কিংবা উপজাতীয় নেকলেস আপনাকে বাড়তি আকর্ষণ এনে দিতেই পারে।

বাংলাদেশ সময়: ০৮২৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০১, ২০১৭
এমএসএ/আইএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।