ঢাকা, শনিবার, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ১১ রবিউস সানি ১৪৪২

লাইফস্টাইল

এবারের চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ হয়েছেন মুগ্ধ

বিনোদন প্রতিবেদন | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২৩১৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৫, ২০১০

চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ ২০১০ হয়েছেন নটরডেম কলেজের ছাত্র ময়মনসিংহের প্রতিযোগী মির্জা মোঃ তানজীম শরিফ মুগ্ধ। প্রথম রানার আপ হয়েছেন সিলেটের প্রতিযোগী দিপ্তী।

দ্বিতীয় রানার আপ হয়েছেন যৌথভাবে মুন্সিগঞ্জের প্রতিযোগী খেয়ালী ও রাজশাহীর প্রতিযোগী মেহেদী।

চ্যানেল আই সেরাকন্ঠ ২০১০-এর নাম ঘোষনা করা হয় ১৫ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় হোটেল শেরাটনের উইন্টারগার্ডেন অনুষ্ঠিত এক জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ’১০ মুগ্ধ পুরস্কার হিসেবে পেলেন নগদ পাঁচ লক্ষ্য টাকাসহ নানা পুরস্কার। প্রথম রানার আপ দিপ্তী পুরস্কার হিসেবে পেয়েছেন তিন লক্ষ টাকা এবং দ্বিতীয় রানার আপ খেয়ালী ও মেহেদী পেয়েছেন দুই লক্ষ টাকাসহ নানা পুরস্কার। তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রতিযোগিতার তিন বিচারক রুনা লায়লা, সাবিনা ইয়াসমীন ও ইমন সাহা। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন  সঙ্গীতাঙ্গণের তারকাসহ প্রায় দুইশতাধিক বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব।

অনুষ্ঠান শুরু হয় ঈশিতার চমৎকার উপস্থাপনার মধ্যদিয়ে। এরপর চ্যানেল আই সেরাকন্ঠ’০৮ ও ০৯-এর সম্মিলিত পরিবেশনায় পরিবেশিত হয় প্রতিযোগিতার টাইটেল সঙ ‘গানে আওয়াজ তোলো প্রাণে’। এরপর মঞ্চে আসে চ্যানেল আই সেরাকন্ঠ’১০-এর সেরা সাত প্রতিযোগী মুগ্ধ, লুইপা, রবিন, বিকসাম, দিপ্তী,মেহেদী, খেয়ালী। তাদের পরিচয় করিয়ে দেবার পরপরই স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইমপ্রেস টেলিফিল্ম  ও চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক  ফরিদুর রেজা সাগর।

ফরিদুর রেজা সাগরের স্বাগত বক্তব্যের পর আসন গ্রহণ করেন চ্যানেল আই সেরাকন্ঠ’১০-এর প্রধান বিচারক রুনা লায়লা, সাবিনা ইয়াসমিন ও ইমন সাহা। বিচারকদের আসন গ্রহণের পর মঞ্চে আসেন চ্যানেল আই সেরাকন্ঠ’১০-এর উপস্থাপিকা উর্মিলা। উর্মিলার আহবানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ’১০ এর সেরা সাত প্রতিযোগির একজন মুগ্ধ। মুগ্ধ গায় ‘আমি সাহেব নামের এক গোলাম’  এ সময় মঞ্চে এসে তার প্রতি শুভকামনা জানান বরেণ্য কন্ঠশিল্পী সৈয়দ আব্দুল হাদী। আমাদের চলচ্চিত্রের সোনালী যুগের সাড়া জাগানো গান ‘সাতটি রঙের মাঝে আমি মিল খুঁজে না পাই’ গানটি গেয়ে দর্শকদের মুগ্ধ করে লুইপা। এ সময় মঞ্চে আসেন অভিনেত্রী শর্মিলী আহমেদ। তিনি লুইপাকে শুভেচ্ছা জানান।

দুই প্রতিযোগীর গানের পর প্রথম ও দ্বিতীয় মেরিডিয়ান-চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজরা পরিবেশনা করে  ‘একদিন ছুটি হবে’ গানটি। এরপর চ্যানেল আই সেরাকন্ঠ’১০-এর প্রতিযোগী রবিন ভাটি অঞ্চলের গান পরিবেশন করেন ‘এক যে ছিলো সোনার কন্যা’।   তাকে শুভেচ্ছো জানাতে মঞ্চে আসেন সঙ্গীত পরিচালক মকসুদ জামিল মিন্টু। ‘আমি এক দুরন্ত যাযাবর’ গানটি শোনান প্রতিযোগী বিকসাম। বিকসামের গানের সময় মঞ্চে ওঠেন নায়করাজ রাজ্জাক। বিকসামকে শুভেচ্ছা জানান তিনি।

শোবিজের এইসময়ের আলোচিত জুটি নিরব ও শারিকা পরিবেশন করে একটি আকর্ষণীয় নৃত্য। শুরু হয় আবার প্রতিযোগীদের গান পরিবেশনের পালা। দিপ্তীপরিবেশন করে ‘আমি যেমন আছি তেমন রবো বউ হবো না গো’। মঞ্চে তাকে শুভেচ্ছা জানান কন্ঠশিল্পী শাম্মী আখতার ও চিত্রনায়িকা অঞ্জনা। এবছরের আরেক প্রতিযোগী মেহেদী পরিবেশন করে     ‘ভেঙেছে পিঞ্জর মেলেছে ডানা’। এসময় মঞ্চে এসে তাকে শুভকামনা জানান খোরশেদ আলম। এরপর  ফকির লালন সাই-এর গান ‘যেখানে সাই এর বারাম খানা’ পরিবেশন করে খেয়ালী। তাকে শুভেচ্ছা জানাতে মঞ্চে আসেন সঙ্গীতশিল্পী কনক চাঁপা।

প্রতিযোগীদের গান পরিবেশনার পালা শেষ হবার পর ঈশিতা ফিরে আসেন উপস্থাপনায়। তিনি মঞ্চে আহবান করেন চ্যানেল আই-এর পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজকে। তিনি ঘোষনা দেন এবছর প্রতিযোগীরা কে কি পুরস্কার পাচ্ছেন।

অনুষ্ঠানের শেষ আকর্ষণ হিসেবে আমে তিন বিচারকের পরিবেশনার পালা। ইমন সাহার সঙ্গীত পরিচালনায় রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা  ও নজরুলসঙ্গীত শিল্পী ফেরদৌস আরা যৌথভাবে পরিবেশন করে যুগল গান। এরপর মঞ্চে আহবান করা হয় রুনা লায়লাকে তিনি পরিবেশন করেন আরেক গুণীশিল্পী সাবিনা ইয়াসমিনের জনপ্রিয় গান। রুনা লায়লার পরে সাবিনা ইয়াসমিন পরিবেশন করেন গুণী শিল্পী রুনা লায়লার জনপ্রিয় একটি গান।

সবশেষে আসে ফলাফল ঘোষণার সেই মাহেন্দ্রণ। এরপর একে একে ঘোষনা করা হয় বিজীয়দের নাম।   সম্মিলিতভাবে দেশের গান পরিবেশনের মাধ্যমে শেষ হয় চ্যানেল আই সেরাকন্ঠ’১০ চুড়ান্ত আয়োজন। চ্যানেল আই-এর পর্দায় অনুষ্ঠানটি সরাসরি প্রচার করা হয়।

বাংলাদেশ স্থানীয় সময় ২২৫০, ডিসেম্বর ১৫, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa