ঢাকা, মঙ্গলবার, ৮ আষাঢ় ১৪২৮, ২২ জুন ২০২১, ১১ জিলকদ ১৪৪২

লাইফস্টাইল

সিডর-আইলা নিয়ে ইউল্যাবের প্রামাণ্যচিত্র

আরিফুল ইসলাম আরমান | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮৪৯ ঘণ্টা, জুলাই ৪, ২০১০

সিডর-আইলার দীর্ঘদিন পরও স্বাভাবিক হয়ে উঠেনি বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলের সাধারণ মানুষের জীবন। বিশুদ্ধ পানির অভাবে এখানো তারা পান করছে লবণাক্ত পানি।

তবে বেড়েছে তাদের সচেতনতা। ঘূর্ণিঝড়ের যে কোনো সংকেত পাওয়ামাত্রই সবাই ছুটে যায় নিরাপদ আশ্রয়ে। ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ (ইউল্যাব)-এর শিক্ষার্থীদের নির্মিত প্রামাণ্যচিত্র ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত-এ উঠে এসেছে এই চিত্র। প্রামাণ্যচিত্রটি নির্মাণে সহায়তা করে কনসার্ন ইউনিভার্সাল বাংলাদেশ (সিইউবি)।


ইউল্যাবের মিডিয়া স্টাডিজ অ্যান্ড জার্নালিজম বিভাগের একদল শিক্ষার্থী আইলা এবং সিডরে তিগ্রস্ত পটুয়াখালী এবং বরগুনা জেলার বিভিন্ন এলাকা ভ্রমণ করে প্রামাণ্যচিত্রটি তৈরি করেন। প্রামাণ্যচিত্রে ওই এলাকার জনগোষ্ঠীর আতঙ্ক, য়তি, মর্মবেদনা, ঘুরে দাঁড়ানোর শক্তি, আত্মবিশ্বাস এবং একাত্মতার চিত্রগুলো বিশেষভাবে ফুটে উঠেছে।


৩ জুলাই শনিবার বিকেলে জাতীয় জাদুঘর মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হলো ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত-এর ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর খাদ্য ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের সচিব মোখলেসুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের দূত মি. স্টিফেন ফ্রোয়েন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের মহাপরিচালক জাকির হোসেন, ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ (ইউল্যাব)-এর উপাচার্য প্রফেসর রফিকুল ইসলাম, কনসার্ন ইউনিভার্সাল বাংলাদেশ (সিইউবি)-এর কান্ট্রি ডিরেক্টর মি. স্টিফেন বোনডুয়েল।

বাংলাদেশ সময় ১৬০০, ০৪ জুলাই ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa