ঢাকা, সোমবার, ১৩ আষাঢ় ১৪২৯, ২৭ জুন ২০২২, ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

আইন ও আদালত

মুক্তিযুদ্ধে অবদান বিবেচনায় সর্বনিম্ন শাস্তি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৪১ ঘণ্টা, মে ১২, ২০২২
মুক্তিযুদ্ধে অবদান বিবেচনায় সর্বনিম্ন শাস্তি

ঢাকা: মহান মুক্তিযুদ্ধে বীরত্বপূর্ণ অবদান বিবেচনায় ডেসটিনি মাল্টি পারপাস কোঅপারেটিভ লিমিটেডের সাবেক চেয়ারম্যান, সাবেক সেনাপ্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল হারুন অর রশীদ (অব.) বীর প্রতীককে মানি লন্ডারিং মামলায় সর্বনিম্ন সাজা দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (১১ মে) ঢাকার চতুর্থ বিশেষ জজ আদালতের বিচারক শেখ নাজমুল আলম তাকে চার বছরের কারাদণ্ড দেন।

মামলার রায়ে বলা হয়, ‘আসামি জনাব মো. হারুন অর রশীদ বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রধান ছিলেন। দেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে তার সাহসী অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে বীর প্রতীক খেতাব প্রদান করে। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ অবদান বিবেচনায় এই আইনে তাকে সর্বনিম্ন শাস্তি দেওয়া হলো। ’

‘আসামি সেনাপ্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল হারুন অর রশীদ (অব.) বীর প্রতীককে মানি লন্ডারিং আইন ২০১২ এর ৪ (২)(৩) ধারায় চার বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও সাড়ে তিন কোটি টাকা জরিমানা করা হলো। জরিমানা প্রদানে ব্যর্থতায় তাকে আরও ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হলো। এছাড়া তার জব্দকৃত সকল ব্যাংক হিসাব মুক্ত করে দেওয়া হলো। ’

ডেসটিনির শীর্ষ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলার রায় হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির এমডি রফিকুল আমীনকে ১২ বছর কারাদণ্ড ও দুইশ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়। এ দুজনসহ মোট ৪৬ আসামিকে থেকে ১১ বছর পর্যন্ত বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ডের পাশাপাশি ২ হাজার ৩০০ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানার এই টাকা থেকে পরিশোধ করা হবে গ্রাহকদের দায়দেনা।

বাংলাদেশ সময়: ২১৩৪ ঘণ্টা, মে ১১, ২০২২
কেআই/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa