ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ কার্তিক ১৪২৮, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

আইন ও আদালত

শিশু সন্তান হত্যা: আসামির মৃত্যুদণ্ড কমে ১০ বছর সাজা 

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৪১ ঘণ্টা, জুলাই ৬, ২০২১
শিশু সন্তান হত্যা: আসামির মৃত্যুদণ্ড কমে ১০ বছর সাজা 

ঢাকা: শাশুড়ির সঙ্গে ঝগড়া করে শিশু সন্তান হত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বরিশালের এক ব্যক্তির সাজা কমে ১০ বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন আপিল বিভাগ।  

মৃত্যুদণ্ডের বিরুদ্ধে তার আপিল আংশিক মঞ্জুর করে মঙ্গলবার (৬ জুলাই) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে ছয় বিচারপতির ভার্চ্যুয়াল আপিল বেঞ্চ এ রায় দেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ। আসামির পক্ষে ছিলেন রাষ্ট্রী নিযুক্ত আইনজীবী ছিলেন মো. হেলাল উদ্দিন মোল্লা।

পরে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ বলেন, মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি জসিম রাঢ়ী ২০০৭ সাল থেকে জেলে। আজকে আপিল বিভাগ তাকে ১০ বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন। যেহেতু তিনি ২০০৭ সাল থেকে জেলে আছেন তাই বিরুদ্ধে আর কোন মামলা না থাকলে তাকে মুক্তি দিতে বলেছেন আদালত।  

শ্বশুরবাড়িতে শাশুড়ির সঙ্গে জামাতার ঝগড়ার জেরে ভাত খাবার সময় শাশুড়ি তার জামাতা জসিমকে ঝাড়ু পেটা করেন। এছাড়া নাতি শামীমকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। এতে শামীমের মাথা কেটে রক্ত ঝরে।

এরপর শাশুড়ির সঙ্গে রাগ করে ২০০৭ সালের ৩১ মার্চ নিজের ছেলে শামীমকে হত্যা করে পুকুরে ফেলে দেন জসিম। জসিম ওই পুকুরপাড়েই অজ্ঞান হয়ে পড়ে থাকে। পরদিন স্থানীয় লোকজন তাকে ধরে থানায় নিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। এ ঘটনায় জসিমের বিরুদ্ধে মামলা করে তার স্ত্রী ফাতেমা বেগম। ছেলে হত্যার কথা স্বীকার করে জসিম আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও দেয়।  

২০০৮ সালের ২৮ জুলাই এ মামলায় বিচারিক আদালত জসিমকে মৃত্যুদণ্ড দেন। ডেথ রেফারেন্স ও আপিল শুনানি শেষে ২০১৩ সালের ১৪ নভেম্বর হাইকোর্টও মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখেন। এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করেন জসিম।  

বাংলাদেশ সময়: ১২১৮ ঘণ্টা, জুলাই ৬, ২০২১
ইএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa