ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৬ আগস্ট ২০২০, ১৫ জিলহজ ১৪৪১

আইন ও আদালত

রোগী ফেরতের অভিযোগ তদন্তে হাইকোর্টের নির্দেশ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৭-০৬ ০৫:৪০:০৯ পিএম
রোগী ফেরতের অভিযোগ তদন্তে হাইকোর্টের নির্দেশ ফাইল ছবি

ঢাকা: চিকিৎসা না দিয়ে সাধারণ রোগীদের ফেরত পাঠানোর অভিযোগ তদন্ত করে ২১ জুলাইয়ের মধ্যে প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

স্বাস্থ্য সচিব ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে অভিযোগ তদন্ত করে ২১ জুলাইয়ের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ সোমবার (০৬ জুলাই) এ আদেশ দেন।

একইসঙ্গে বিনা চিকিৎসায় ফেরত পাঠানোর অভিযোগ অনলাইনে নেওয়ার পদ্ধতি চালু করতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ১০ কার্যদিবসের মধ্যে অক্সিজেনের সিলিন্ডারের মূল্য নির্ধারণ করারও নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

হাসপাতালে ভর্তি ও চিকিৎসায় অবহেলায় রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় ব্যবস্থা গ্রহণ, আইসিইউ বণ্টন, বেসরকারি হাসপাতাল অধিগ্রহণ, অক্সিজেন সরবরাহ নিয়ে ছয়টি রিট মামলায় আদালত মোট ৫টি নির্দেশনা দিয়েছেন।

আদালতে রিট আবেদনকারীর পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার অনিক আর হক, অ্যাডভোকেট ইয়াদিয়া জামান, ব্যারিস্টার মাহফুজুর রহমান মিলন, অ্যাডভোকেট জামিউল হক ফয়সাল, ব্যারিস্টার এহসানুর রহমান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

এর আগে ৫টি রিট আবেদনে গত ১৫ জুন হাইকোর্টের দেওয়া নির্দেশনা ও অভিমতের মধ্যে ১৬ জুন ৭টি নির্দেশনা স্থগিত করেন আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতির আদালত। ৩টি নির্দেশনা বহাল রাখা হয়। এর মধ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক জারিকৃত নির্দেশনাসমূহ যথাযথভাবে পালিত হচ্ছে কিনা এ বিষয়ে ৩০ জুনের মধ্যে একটি প্রতিবেদন দাখিল করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, চিকিৎসা না দিয়ে সাধারণ রোগীদের ফেরত পাঠানোর কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকসমূহ আইসিইউ-এ চিকিৎসাধীন কোভিড-১৯ রোগীর কাছ থেকে মাত্রাতিরিক্ত বা অযৌক্তিক ফি আদায় না করতে পারে সে বিষয়ে মনিটরিংয়ের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। অক্সিজেন সিলিন্ডারের খুচরা মূল্য এবং রি-ফিলিংয়ের মূল্য নির্ধারণ করার ব্যবস্থা নিতে কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের পরিচালককে (ভান্ডার ও সরবরাহ) নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এ অবস্থায় রোগী ভর্তি না করায় এবং অতিরিক্ত বিল নেওয়ার অভিযোগে ঢাকা ও চট্টগামের চারটি বেসরকারি হাসপাতালের পরিচালকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হাইকোর্টে পৃথক একটি রিট আবেদন করা হয়। এই রিট আবেদনে হাসপাতালে ভর্তি না করার কারণে যেসব রোগী মারা যাচ্ছেন তাদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া, করোনা সংক্রান্ত রোগী ভর্তি না করার বিষয়ে অভিযোগ জানানোর জন্য পুলিশের একটি পৃথক হটলাইন চালুর বিষয়ে নির্দেশনা চাওয়া হয়।

আদেশের পর অনীক আর হক বলেন, স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে করা রিট সমুহে আজ দেওয়া নির্দেশনা সমূহঃ (১) বিনা চিকিৎসায় রোগী ফেরতের ঘটনায় দায়েরে কৃত রিটের অভিযোগগুলোর তদন্ত প্রতিবেদন ২১ জুলাইয়ে মধ্য হাইকোর্টে দাখিল, (২) ক্যান্সার সহ জটিল রোগের আক্রান্ত রোগীদের কোভিড-১৯ থাকলে ৩৬/৪৮ ঘণ্টার মধ্যে টেস্ট করে চিকিৎসা অব্যাহত রাখা, (৩) ১০ কার্যদিবসের মধ্যে অক্সিজেনের মূল্য নির্ধারণ, (৪) বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউ অথবা চিকিৎসার অস্বাভাবিক মূল্য রাখলে দুর্নীতি দমন কমিশনে অভিযোগ দায়ের করা। এবং (৫) বিনা চিকিৎসার জন্য অভিযোগ দায়েরের জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তর অনলাইনে অভিযোগ গ্রহণের পদ্ধতি চালু করা।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩৮ ঘণ্টা, জুলাই ০৬, ২০২০
ইএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa