ঢাকা, শুক্রবার, ৮ মাঘ ১৪২৭, ২২ জানুয়ারি ২০২১, ০৮ জমাদিউস সানি ১৪৪২

আইন ও আদালত

প্রতারণা করায় মঠবাড়িয়ায় চেয়ারম্যানসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে জিডি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১০২ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৮, ২০২০
প্রতারণা করায় মঠবাড়িয়ায় চেয়ারম্যানসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে জিডি

পিরোজপুর: প্রতারণার অভিযোগ এনে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় উপজেলা চেয়ারম্যানসহ তিন জনের বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন একই উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান।
 

বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) রাতে মঠবাড়িয়া থানায় ওই জিডি করেন অ্যাডভোকেট নাছরিন জাহান।

জিডিতে উল্লেখ করা হয়, গত ১৫ এপ্রিল বেলা ১১টার দিকে মঠবাড়িয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মো. রিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদ তার ব্যক্তিগত মোবাইলফোন থেকে আমার (নাছরিন জাহান) ফোনে কল দিয়ে একটি নম্বর (০১৭১৫৪৯২১১১) দিয়ে বলেন- ওই নম্বরে ১০ জন দুস্থ লোকের তালিকা পাঠানোর জন্য।

আর ওই নম্বরটি রেড ক্রিসেন্টের পিরোজপুর জেলা কার্যালয়ের এক কর্মচারীর নম্বর।  

পরে আমি (নাছরিন জাহান) ওই নম্বরে ফোন দিলে তিনি মামুন নামের রেড ক্রিসেন্টের পিরোজপুর জেলা কার্যালয়ের এক কর্মচারী হিসেবে নিজেকে পরিচয় দেন। আমি তার কাছে নামের তালিকা পাঠানোর সময় চাই। কিন্তু এর মধ্যে ওইদিন বিকেলে উপজেলা চেয়ারম্যান পুনরায় আমার মোবাইলফোনে কল দিয়ে জানান- দ্রুত ওই নম্বরে তালিকা পৌঁছে দিতে। আর আজকের (বৃহস্পতিবার) মধ্যে ওই তালিকা না দিলে তা গ্রহণ হবে না। পরে আমি ওই মামুন নামের ভুয়া পরিচয় দানকারীর কাছে ১০টি নামের তালিকা পাঠালে তিনি আমাকে তার এমডির (ব্যবস্থাপনা পরিচালক) সঙ্গে কথা বলে আরও ১০০/১৫০ লোকের প্যাকেজ দিতে পারবেন বলে জানান। পরে তিনি তার এমডির পরিচয় দিয়ে একটি মোবাইল নম্বর (০১৩১০৭৭১৪১৮) দেন। ওই নম্বরে কল দিলে তিনি জনৈক আকবর নামে পিরোজপুর রেড ক্রিসেন্টের এমডি পরিচয় দেন। এসময় তিনি (ভুয়া এমডি) জানান, প্রতিটি নামের প্যাকেজে ৩০ কেজি চাল, ৫ কেজি ডাল, ৫ কেজি তেল ও নগদ অর্থ দেওয়া হবে। তাই প্রতিটি নামের বিপরীতে একটি করে ৭০০ টাকার ফর্ম ক্রয় করতে হবে। আর এজন্য আমি তাদের দেওয়া (০১৮৭৩১৯৫৯১৩) নম্বরে আমার ব্যক্তিগত মোবাইলের বিকাশ অ্যাকাউন্টে থাকা ১৬ হাজার ৩০০ টাকা পাঠিয়ে দিই। পরবর্তীতে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছে বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি ওই নম্বরটি জেলা রেড ক্রিসেন্টের কোনো কর্মকর্তা বা কর্মচারীর নয় বলে জানান।

ভুক্তভোগী মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট নাছরিন জাহান বাংলানিউজকে বলেন, আমি উপজেলা চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদের কথামতো প্রতারিত হওয়ায় এ বিষয়ে থানায় একটি জিডি করেছি।


অভিযোগের বিষয়টি নিয়ে চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিনের সঙ্গে মোবাইলফোনে কথা হলে তিনি বাংলানিউজকে বলেন, গত ১৫ এপ্রিল মামুন নামের এক ব্যক্তি রেড ক্রিসেন্ট পিরোজপুরের কর্মচারী পরিচয়ে ত্রাণের সাহায্য দেওয়ার জন্য আমার কাছে কিছু লোকের তালিকা চান। একইসঙ্গে ওই ব্যক্তি উপজেলার নারী ভাইস চেয়ারম্যানেরও কিছু নাম দেওয়ার সুযোগ আছে জানান। তাই আমি মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট নাছরিন জাহানকে বিষয়টি জানাই। কিন্তু পরে এনিয়ে আর্থিক লেনদেনের কী ঘটনা আমি তা জানি না।  

উপজেলা চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদ গত উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসাবে নির্বাচন করে চেয়ারম্যান হন।  

বাংলাদেশ সময়: ২০৫৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৮, ২০২০
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa