bangla news

ইডেনের অধ্যক্ষ হত্যা: সাক্ষ্য দিতে এসে অঝোরে কাঁদলেন ছেলে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০২-২৩ ৭:২৬:৪৪ পিএম
মাহফুজা চৌধুরী পারভীন।

মাহফুজা চৌধুরী পারভীন।

ঢাকা: ইডেন মহিলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মাহফুজা চৌধুরী পারভীন হত্যা মামলায় সাক্ষ্য দিতে এসে আদালতে অঝোরে কাঁদলেন তার ছেলে ব্যাংক কর্মকর্তা সানিয়াত ইসমত অমিত। 

রোববার (২৩ ফেব্রুয়ারি) ঢাকার এক নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামানের আদালতে সাক্ষ্য দেন তিনি। 

অমিত জবানবন্দিতে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনার এক ঘণ্টার মধ্যে আমি বাসায় যাই। গিয়ে ভিড় দেখতে পাই। ভিড় ঠেলে এগিয়ে দেখি আমার মায়ের মরদেহ শয়ন কক্ষে পড়ে আছে। আমাদের বাড়ির দুই গৃহপরিচারিকা রুমা ওরফে রেশমা ও রিতা আক্তার স্বপনা আমার মাকে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে এবং নাকমুখে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করে। আমি এ হত্যায় দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

একইদিনে সাক্ষ্য দেন নিহতের সুরতহাল প্রতিবেদন প্রস্তুতকারক নিউমার্কেট থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) স্বপন কান্তি দে, পুলিশের গাড়িচালক কনস্টেবল আব্দুর রহমান ও নিহতের প্রতিবেশী মাওলানা হাবিবুর রহমান।

এ মামলার দুই আসামি নিহতের গৃহপরিচারিকা রুমা ও রিতা গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছেন।  

গত ১৯ ফেব্রুয়ারি মামলার বাদী ও নিহতের স্বামী ইসমত কাদির গামার জবানবন্দি গ্রহণের মাধ্যমে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছিল। দ্বিতীয় দিনে সাক্ষ্য দিলেন আরও চারজন। তাই রাষ্ট্রপক্ষে মোট ৩৪ সাক্ষীর মধ্যে পাঁচজনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হলো। পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ১ মার্চ দিন ধার্য করেছেন আদালত।

২০১৯ সালের ২১ জুলাই মামলাটিতে অভিযোগপত্র দেন নিউ মার্কেট থানার এসআই আলমগীর হোসেন। অভিযোগপত্রে রেশমা ও স্বপনাকে প্রাথমিকভাবে অভিযুক্ত করা হলেও রুনু বেগম নামে একজনকে অব্যাহতির সুপারিশ করা হয়। 

গত ২৩ জানুয়ারি আইন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব মো. মফিজুল ইসলাম স্বাক্ষরিত চিঠিতে মামলাটি ঢাকার ১ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে পাঠানোর কথা জানানো হয়।  

২০১৮ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর অ্যালিফেন্ট রোডের নিজ বাসায় খুন হন মাহফুজা চৌধুরী। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী ইসমত মামলা দায়ের করেন।  

মাহফুজা চৌধুরী ২০০৯ সাল থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত ইডেন কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তার স্বামী ইসমত মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯২৩ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২০
কেআই/আরবি/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   আদালত
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-02-23 19:26:44