ঢাকা, সোমবার, ১৫ মাঘ ১৪২৯, ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ০৭ রজব ১৪৪৪

আইন ও আদালত

নারী ও শিশু নির্যাতনের ৩ ধারার একমাত্র সাজা নিয়ে রুল

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১০, ২০১৯
নারী ও শিশু নির্যাতনের ৩ ধারার একমাত্র সাজা নিয়ে রুল

ঢাকা: নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের তিন ধারায় একমাত্র সাজা নির্ধারণ নিয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

এক রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করেন। রুলে ওই তিনটি ধারা কেন অসাংবিধানিক ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।

আইন মন্ত্রণালয়ের দুই সচিব, নারী ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ সংশ্লিষ্ট বিবাদীদের চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার। আবেদনকারী পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী শিশির মনির। আইনজীবী শিশির মনিরসহ ১০জন আইনজীবী এ রিট দায়ের করেন।

পরে শিশির মনির জানান, ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতম দমন আইনের ৯ (১) এ ধর্ষণের জন্য একমাত্র শাস্তি যাজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড। ধারা ৯(৪) (ক) ধর্ষণ করে মৃত্যু ঘটানোর বা আহত করার চেষ্টা জন্য একমাত্র শাস্তি যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড এবং ১১ (ক) এ যৌতুকের জন্য মৃত্যু ঘটানোর একমাত্র শাস্তি মৃত্যুদণ্ড ও মৃত্যু ঘটানোর চেষ্টার জন্য যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড সংবিধান পরিপন্থি।

তিনি আরও জানান, এসব ধারায় একমাত্র শাস্তি বিচার বিভাগের স্বাধীনতা ও সংবিধানের মৌলিক কাঠামোর পরিপন্থি। শুনানি শেষে আদালত রুল জারি করেছেন।

আইনের দু’টি ধারা একমাত্র সাজা হিসেবে যাবজ্জীবন এবং অপর একটি ধারায় মৃত্যুদণ্ডের কথা উল্লেখ আছে। একমাত্র সাজা যখন নির্ধারণ করা হয়, তখন তা বিচারিক এখতিয়ারকে খর্ব করে। এ ছাড়া ক্ষমতা পৃথককরণের নীতিরও পরিপন্থি। এসব যুক্তিতে রিটটি করা হলে আদালত এ রুল জারি করেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৫১০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১০, ২০১৯
ইএস/ওএইচ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa