bangla news

চুয়াডাঙ্গায় স্বর্ণ পাচার মামলায় একজনের ১৪ বছরের কারাদণ্ড

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১০-২৯ ৬:২১:৩৩ পিএম
দণ্ডপ্রাপ্ত ইদ্রিস আলী। ছবি: বাংলানিউজ

দণ্ডপ্রাপ্ত ইদ্রিস আলী। ছবি: বাংলানিউজ

চুয়াডাঙ্গা: চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলায় স্বর্ণ পাচার মামলায় ইদ্রিস আলী (৪০) নামে এক ব্যক্তিকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। 

মঙ্গলবার (২৯ অক্টোবর) বিকেলে স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল-১ আদালতের বিচারক মোহা. রবিউল ইসলাম এ রায় দেন। 

দণ্ডপ্রাপ্ত ইদ্রিস আলী যশোর জেলার বেনাপোল থানার খলিশ এলাকার মৃত সবুর আলী গাজীর ছেলে। 

আদালত সূত্র জানায়, ২০১৮ সালের ২ জুলাই ভোরে দামুড়হুদা উপজেলার লোকনাথপুর গ্রামের ফিলিং স্টেশনের কাছ থেকে ইদ্রিস আলীকে আটক করে চুয়াডাঙ্গাস্থ-৬ বিজিবির সদস্যরা। এ সময় ইদ্রিস আলীর দেহ তল্লাশি করে ৭টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। যার ওজন ৮৭৫ গ্রাম (৭০ ভরি)। উদ্ধারকৃত স্বর্ণের বাজার মূল্য ৩৫ লাখ টাকা।

ঘটনার দিনই আটক ইদ্রিস আলীর বিরুদ্ধে স্বর্ণ চোরাচালানের অভিযোগ এনে চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবির নায়ক রাসেল শিকদার বাদী হয়ে দামুড়হুদা মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। 

দামুড়হুদা থানা পুলিশের তৎকালীন উপ-পরিদর্শক (এসআই) শ্যামল সমাদ্দার তদন্ত শেষে একই বছরের ৩১ আগস্ট একমাত্র আসামি ইদ্রিস আলীকে অভিযুক্ত করে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন।

আলোচিত এই স্বর্ণ পাচার মামলায় আদালত ১১ জন সাক্ষীর মধ্যে ৬ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ ও যাচাই বাছাই শেষে ইদ্রিস আলীকে দোষী সাব্যস্ত করেন। আদালত আসামির উপস্থিতিতে বিশেষ ক্ষমতা আইন ১৯৭৪ সালের ২৫বি (১) (এ) ধারায় তাকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড দেন। একই সঙ্গে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ২ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন আদালত। মঙ্গলবার বিকেলে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৮১৭ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৯, ২০১৯
আরএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   কারাদণ্ড চুয়াডাঙ্গা
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-10-29 18:21:33