ঢাকা, শুক্রবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯
bangla news

নড়াইল জেলা জজ: হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে আবেদন

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৯-১১ ৯:৫৪:১৩ পিএম
সুপ্রিম কোর্ট

সুপ্রিম কোর্ট

ঢাকা: একটি হত্যা মামলার প্রধান আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন না করে অব্যাহতি দেওয়ায় নড়াইলের দায়রা জজ শেখ আব্দুল আহাদকে এক বছর ফৌজদারি মামলার বিচার কাজ পরিচালনা থেকে বিরত রাখার হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করা হয়েছে।

আপিল বিভাগের অবকাশকালীন চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী নড়াইল জেলা জজের এ আবেদন পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির জন্য ২১ অক্টোবর (সোমবার) দিন ঠিক করেছেন।

আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মোহাম্মদ হোসেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জাহিদ সরওয়ার কাজল।

তিনি বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) বলেন, হাইকোর্টের আদেশের ওপর স্থগিতাদেশ না দিয়ে শুনানির জন্য পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়েছেন আদালত। গত সোমবার চেম্বার বিচারপতি এ আদেশ দিয়েছেন।
 
গত ২৯ আগস্ট বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ ওই জেলা জজ নিয়ে এ আদেশ দেন।
 
এ বিষয়ে আইন মন্ত্রণালয় সুপ্রিম কোর্টের সঙ্গে পরামর্শ করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে। একইসঙ্গে হত্যা মামলার প্রধান আসামিকে অব্যাহতি দিয়ে অভিযোগ গঠনের আদেশ বাতিল করেছেন হাইকোর্ট।
 
হাইকোর্টে আসামি মল্লিক মাঝহারুল ইসলামের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন এএম আমিন উদ্দিন, রবিউল আলম বুদু ও এম. সাইফুদ্দিন খোকন (সাইফ মল্লিক)।
 
২০১৫ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি নড়াইলের কালিয়া থানার চণ্ডিনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পশ্চিম পাশের রাস্তায় পূর্ব শত্রুতার জেরে এনামুল শেখকে গুলি করে হত্যা করা হয়। কুপিয়ে জখম করা হয় আরো কয়েকজনকে। এ ঘটনায় পরদিন বাদী হয়ে মল্লিক মাঝহারুলসহ ৬৮ জনের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৩০২/৩৪ ধারায় হত্যা মামলা দায়ের করেন নিহতের ভাই মো. নাজমুল হুদা। ২০১৭ সালের ৩০ জানুয়ারি ওই ৬৮ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ। এই মামলায় আদালতে আত্মসমর্পণ করলে গত বছরের ২৯ নভেম্বর প্রধান আসামিকে জামিন দেন দায়রা জজ শেখ আব্দুল আহাদ। গত ১০ জুন প্রধান আসামিকে অব্যাহিত দিয়ে বাকি ৬৭ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে আদালত। এই আদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে রিভিশন মামলা করেন মামলার বাদী। পরে হাইকোর্ট ওই অব্যাহতির আদেশ কেন বাতিল করা হবে না এই মর্মে রুল জারি করে। পাশাপাশি বিচারকের কাছে ব্যাখ্যা চেয়ে রুলও জারি করা হয়।
 
এই আদেশের পর গত ২২ জুলাই আসামি মাঝহারুল ইসলাম নড়াইল আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করলে আদালত তাকে জামিন দেন।
 
রুল শুনানির সময় মাঝহারুলের জামিনের বিষয়টি হাইকোর্টের নজরে এলে এই জামিন কেন বাতিল করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন আদালত।
 
২৯ আগস্ট অব্যাহতির আদেশ বাতিলের রুল মঞ্জুর, বিচারকের বিষয়ে জারি করা রুল নিষ্পত্তি এবং মাঝারের জামিন বাতিলের রুল খারিজ করে হাইকোর্ট রায় দেন।
 
বাংলাদেশ সময়: ২১৫২ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯
ইএস/জেডএস

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-09-11 21:54:13