ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ বৈশাখ ১৪২৬, ১৮ এপ্রিল ২০১৯
bangla news

তারেক রহমানের এপিএস রিমান্ড শেষে কারাগারে

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০১-১৭ ৫:২৬:৩৩ পিএম
তারেক রহমানের সাবেক ব্যক্তিগত সহকারী (এপিএস) মিয়া নুরউদ্দিন আহমেদ অপু

তারেক রহমানের সাবেক ব্যক্তিগত সহকারী (এপিএস) মিয়া নুরউদ্দিন আহমেদ অপু

ঢাকা: বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সাবেক ব্যক্তিগত সহকারী (এপিএস) মিয়া নুরউদ্দিন আহমেদ অপুকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (১৭ জানুয়ারি) দুপুরে শুনানি শেষে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের মহানগর হাকিম শহিদুল ইসালম এ নির্দেশ দেন।

একাদশ জাতীয় নির্বাচনের আগে রাজধানীর মতিঝিল থেকে ৮ কোটি টাকা উদ্ধারের ঘটনার দায়ের করা মামলায় মানিলন্ডারিং ও সন্ত্রাসবিরোধী আইনের মামলায় মিয়া নুরউদ্দিন আহমেদ অপুকে পাঁচ দিনের রিমান্ড শেষে আদালতে হাজির করে মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন।

মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির পরিদর্শক আশরাফুল ইসলাম গত ১০ জানুয়ারি অপুর ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করলে আদালত পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

মামলাটির অভিযোগে বলা হয়, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে বিভিন্ন গোষ্ঠী দেশের বিভিন্ন স্থানে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ ও দেশকে অস্থিতিশীল করতে নানাবিধ সহিংস কার্যক্রম প্রতিরোধ করার জন্য র‌্যাব অভিযান পরিচালনা করে আসছে।

গত ২৪ ডিসেম্বর র‌্যাব নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলমের উপস্থিতিতে মতিঝিল থানাধীন সিটি সেন্টারের ইউনাইটেড এন্টারপ্রাইজ অ্যান্ড ইউনাইটেড করপোরেশনে অভিযান পরিচালনাকালে প্রতিষ্ঠানটির এমডি আসামি আলী হয়দারকে আটক করা হয়। 

তাকে আটক করার পর প্রতিষ্ঠান থেকে ৩ কোটি ১০ লাখ ৭৩ হাজার টাকা জব্দ হয়। পরে তার দেওয়া তথ্যমতে পল্টন থানাধীন হাউজ বিল্ডিং রোডের বায়তুল খায়ের টাওয়ারের সিটি মানি এক্সচেঞ্জ থেকে আরও পাঁচ কোটি টাকা জব্দ হয়।

আলী হায়দার জিজ্ঞাসাবাদে আরও জানান, তার মামা ইউনাইটেড এন্টারপ্রাইজের চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাসানের ঘনিষ্ঠ বন্ধু শরীয়তপুর- ৩ আসনের সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী মিয়া নূর উদ্দিন আহমেদ অপু। তার নির্বাচনী কাজে অবৈধ প্রভাব খাটানো এবং নির্বাচনী এলাকায় সহিংসতার জন্য ২/৩ দিন আগে গুলশানে তার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান আমেনা এন্টারপ্রাইজ অ্যান্ড সার্ভিসেস লিমিটেড থেকে নির্বাহী পরিচালক মো. জয়নাল আবেদীন ও অফিস সহকারী আলমগীর হোসেন তিন কোটি টাকা নিয়ে যায়। পরদিন আমেনা এন্টারপ্রাইজের অফিসে গিয়ে জয়নাল আবেদীন ও আলমগীর হোসেনকে ৪ লাখ ৬৫ হাজার ৬৫০ টাকাসহ গ্রেফতার করা হয়।

আসামিরা জব্দ হওয়া টাকা আসন্ন সংসদ নির্বাচনে অবৈধ প্রভাব ও নাশকতা সৃষ্টির কাজে ব্যবহার করতো মর্মে প্রতীয়মান হচ্ছে বলে র‌্যাব-৩ ডিএডি ইব্রাহিম হোসেন বাদী হয়ে মতিঝিল থানায় এ মামলাটি দায়ের করেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৭২০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৭, ২০১৯
এমএআর/এএ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14