ঢাকা, বুধবার, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯, ১০ আগস্ট ২০২২, ১১ মহররম ১৪৪৪

আইন ও আদালত

এরশাদ শিকদারের পর খুলনা কারাগারে জেএমবি আসাদুলের ফাঁসি

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৪৮ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৫, ২০১৬
এরশাদ শিকদারের পর খুলনা কারাগারে জেএমবি আসাদুলের ফাঁসি ছবি- মানজারুল ইসলাম-বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

খুলনা: ২০০৪ সালের ১০ মে খুলনা জেলা কারাগারে কুখ্যাত খুনি এরশাদ শিকদারের ফাঁসি কার্যকর করা হয়। এর এক যুগ পর জেএমবি নেতা আসাদুল ইসলাম ওরফে আরিফের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হতে যাচ্ছে।

রোববার (১৬ অক্টোবর) রাত সাড়ে দশটায় এ ফাঁসির রায় কার্যকর করা হবে। এজন্য খুলনা জেলা কারাগার এলাকায় কঠোর নিরাপত্তা বলয় জোরদার করা হয়েছে। প্রস্তুত করা হয়েছে ফাঁসির মঞ্চ।

খুনি এরশাদ শিকদারের বাড়ি ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার মাদারঘোনা গ্রামে। আর জেএমবি নেতা আসাদুলের বাড়ি বরগুনা জেলা সদরে। আসাদুল ইসলাম আরিফ ২০০৮ সাল থেকে খুলনা জেলা কারাগারে রয়েছেন।

খুলনা জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. নূর-ই-আলম শনিবার (১৫ অক্টোবর) বাংলানিউজকে জানান,  খুলনা জেলা কারাগারে ২০০৪ সালের কুখ্যাত খুনি এরশাদ শিকদারের ফাঁসি কার্যকরের পর জঙ্গি নেতা আসাদুল ইসলাম ওরফে আরিফের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হতে যাচ্ছে। ফাঁসি কার্যকরের জন্য কারাগার এলাকায় কঠোর নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে,  ২০০৫ সালের ১৪ নভেম্বর ঝালকাঠি জেলার সিনিয়র সহকারী জজ সোহেল আহম্মেদ ও জগন্নাথ পাঁড়ের গাড়িতে বোমা হামলা চালিয়ে তাদের হত্যা করা হয়। ২০০৬ সালের ২৯ মে এ হত্যা মামলার রায়ে ঝালকাঠির অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ রেজা তারিক আহম্মেদ সাতজনের ফাঁসির আদেশ দেন। ইতোমধ্যে ছয়জনের ফাঁসি কার্যকর হয়েছে।

যাদের ফাঁসি কার্যকর হয়েছে তারা হলেন- জেএমবি’র শীর্ষনেতা শায়খ আবদুর রহমান ও সিদ্দিকুল ইসলাম ওরফে বাংলাভাই,  শায়খ আব্দুর রহমানের  ভাই আতাউর রহমান সানি,  জামাতা আবদুল আউয়াল,  ইফতেখার  হোসেন মামুন ও খালেদ সাইফুল্লাহ ওরফে ফারুক। ২০০৭ সালের ২৯ মার্চ শীর্ষ এ ছয় জেএমবি সদস্যের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়। এর আগে ৪ মার্চ রাষ্ট্রপতি ছয় জঙ্গির প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ করে দেন।

একই মামলার রায়ে মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত আরেক জেএমবি নেতা আরিফ ২০০৭ সালের ১০ জুলাই ময়মনসিংহ থেকে গ্রেফতার হন। এরপর আপিল করেন তিনি। গত ২৮ আগস্ট প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চ জেএমবি নেতা আসাদুল ইসলাম ওরফে আরিফের রিভিউ আবেদন খারিজ করে মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখেন।

জানা গেছে, রোববার  ফাঁসি কার্যকরের সময় উপস্থিত থাকবেন খুলনার জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি হিসেবে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট নুরুল আলম,  খুলনার সিভিল সার্জন আব্দুর রাজ্জাক, খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও জেল সুপার কামরুল ইসলাম প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১২৪৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৫, ২০১৬
এমআরএম/এএটি/এএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa