ঢাকা, শুক্রবার, ৬ কার্তিক ১৪২৮, ২২ অক্টোবর ২০২১, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

আইন ও আদালত

কোটি টাকাসহ গাড়ি ফেরত দেওয়ার আদেশ বাতিল

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০২১৮ ঘণ্টা, আগস্ট ১৫, ২০১৬
কোটি টাকাসহ গাড়ি ফেরত দেওয়ার আদেশ বাতিল

ঢাকা: ২০১৫ সালের ১৭ আগস্ট বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম টোল প্লাজা থেকে জব্দকরা প্রায় দেড় কোটি টাকা ও একটি গাড়ি ফেরত দেওয়ার হাইকোর্টের আদেশ বাতিল করেছেন আপিল বিভাগ।  

রোববার (১৪ আগস্ট) বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের চার বিচারপতির বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল খোন্দকার দিলিরুজ্জামান। তিনি জানান, এ আদেশের ফলে জব্দকরা ওই অর্থ ও গাড়ির মালিককে এবং এ অর্থ কোনো অপরাধমূলক কাজে ব্যবহারের জন্য স্থানান্তর করা হচ্ছিল কিনা তা অধিকতর তদন্তে বেরিয়ে আসবে।

২০১৫ সালের ১৭ আগস্ট বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম টোল প্লাজা থেকে ঢাকাগামী একটি প্রাইভেটকার থেকে ১ কোটি ৩৩ লাখ ১৭ হাজার ৫শ টাকা উদ্ধার করে পুলিশ। পাশাপাশি ওই গাড়ির চালক বাবু ওরফে যুবরাজ ও আব্দুর রাজ্জাক নামে দুই ব্যক্তিকে থানায় করা জিডির ভিত্তিতে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার করে। পরে টাকা ও গাড়ির জব্দ তালিকা প্রস্তুত করে সিরাজগঞ্জের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গ্রেফতারকৃতদের হাজির করে। আদালত ঘটনা তদন্তের নির্দেশ দিয়ে দুই ব্যক্তিকে কারাগারে পাঠায়।

তদন্তের পর একই বছরের ৯ সেপ্টেম্বর ও ১৭ অক্টোবর দুই বার বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানার এসআই আহসান হাবিব আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন।

দুই প্রতিবেদনেই বলা হয়, জমি রেজিস্ট্রির উদ্দেশে সিরাজগঞ্জ থেকে এ টাকা ঢাকায় নেওয়া হচ্ছিল। অর্থের অবৈধ উৎস খুঁজে পাওয়া যায়নি। তবে আদালত এ প্রতিবেদন গ্রহণ না করে সিরাজগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আকরামুল হোসেনকে ঘটনা তদন্তের নির্দেশ দেন। পরে আকরামুল হোসেন বিষয়টি তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন।

তার তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, এ অর্থের দাবিদারদের ইনকাম ট্যাক্স ফাইলের আইটি ১০বি ফর্মে প্রদর্শিত ওয়েলথে দু’টি দিকনির্দেশনার কোনটিই সমর্থন করে না। আলোচ্য টাকাগুলোর মধ্যে ৬০ লাখ টাকার কোনো বৈধ উৎস প্রদর্শন করতে না পারায় এবং অন্যান্য টাকাগুলো অস্বাভাবিকভাবে স্থানান্তর ও সন্দেহমূলক ব্যাংক ট্রানজেকশনের কারণে টাকার মালিকানা দাবিদারের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা যেতে পারে।  

এছাড়াও এ বিষয়ে আরও অধিকতর তদন্তের আবেদন জানান তিনি। গত ৪ মে ম্যাজিস্ট্রেট আদালত বিষয়টি অধিকতর তদন্তের নির্দেশ দেন।  

এ আদেশ চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিভিশন মামলা করেন বাবু ওরফে যুবরাজসহ ছয়জন। গত ১২ এপ্রিল হাইকোর্টের একক বেঞ্চ কোনো রুল জারি না করে ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের আদেশ বাতিল করে দেন। পাশাপাশি এক সপ্তাহের মধ্যে জব্দকৃত টাকা ও গাড়ি দাবিদারদের কাছে ফেরত দেওয়ার নির্দেশ দেন।  
হাইকোর্টের এ আদেশের বিরুদ্ধে লিভ টু আপিল করে রাষ্ট্রপক্ষ। রোববার (১৪ আগস্ট) ওই লিভ টু আপিলের ওপর শুনানি শেষে আপিল বিভাগ হাইকোর্টের আদেশ বাতিল করে দেন।

বাংলাদেশ সময়: ০২১৭ ঘণ্টা, আগস্ট  ১৫, ২০১৬
ইএস/এসএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa