ঢাকা, শনিবার, ১ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

আইন ও আদালত

১০ জঙ্গির ডেথ রেফারেন্সের রায় বৃহস্পতিবার, শুনানির তালিকায় আরো ১০

ইলিয়াস সরকার, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯১৪ ঘণ্টা, জুলাই ২৭, ২০১৬
১০ জঙ্গির ডেথ রেফারেন্সের রায় বৃহস্পতিবার, শুনানির তালিকায় আরো ১০

ঢাকা: গাজীপুর আদালত এলাকায় আত্মঘাতী বোমা হামলার মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ১০ জঙ্গির ডেথ রেফারেন্স অনুমোদন ও আপিলের রায় ঘোষণা করা হবে বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই)।

পাশাপাশি ২০০১ সালে রমনায় বোমা হামলা ও ২০০৫ সালে সিরিজ বোমা হামলার মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আরো ১০ জঙ্গির মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদনের শুনানির জন্য হাইকোর্টের দু'টি বেঞ্চের কার‌্যতালিকায় রয়েছে।

গাজীপুর
২০০৫ সালের ২৯ নভেম্বর গাজীপুর আদালত এলাকায় বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। এতে আইনজীবীসহ আটজন নিহত হন। আত্মঘাতী হামলাকারী আসাদ ওরফে জিয়াও নিহত হন।

এ ঘটনায় করা মামলায় ২০১৩ সালের ২০ জুন ঢাকার বিচারিক আদালত ১০ জঙ্গির মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন।

মৃত্যুদণ্ডদণ্ডপ্রাপ্ত ১০ জঙ্গি হলেন- এনায়েতুল্লাহ ওরফে ওয়ালিদ ওরফে জুয়েল, আরিফুর রহমান আরিফ ওরফে আকাশ ওরফে হাসিব,  মাসুদুল ইসলাম মাসুদ ওরফে ভূট্টু,  সাইদুর রহমান মুনসি ওরফে সাইদুর মুনসি ওরফে ইমন ওরফে পলাশ, আবদুল্লাহ আল সোহেল ওরফে জাহিদ ওরফে আকাশ, নিজামুদ্দিন নিজাম, মো. তৈয়বুর রহমান, মো. আশরাফুল ইসলাম, মো. শফিউল্লাহ ওরফে তারেক ওরফে আবুল কালাম ওরফে আবুল কালাম মো. শফিউল্লাহ ও জাহাঙ্গীর আলম।

এরপর মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদনের জন্য মামলাটি হাইকোর্টে আসে। পাশাপাশি কারাবন্দি ১০ আসামিই জেল আপিল করেন।

গত ২০ জুলাই শুনানি শেষে ২৮ জুলাই এ মামলার রায়ের দিন ধার্য করেন বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি জেবিএম হাসানের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

রমনা বটমূল
২০০১ সালের ১৪ এপ্রিল ছায়ানটের বর্ষবরণ অনুষ্ঠান চলাকালে রমনায় বোমা হামলায় ১০ জন নিহত হন। আহত হন অনেকে।

এ মামলায় ২০১৪ সালের ২৩ জুন মুফতি হান্নানসহ ৮ জনের ফাঁসি ও ৬ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দেন বিচারিক আদালত।

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা হচ্ছেন- মুফতি হান্নান, আরিফ হাসান সুমন, মওলানা আকবর হোসাইন, মওলানা মো. তাজউদ্দিন, হাফেজ জাহাঙ্গীর আলম বদর, মওলানা আবু বকর ওরফে হাফেজ সেলিম হাওলাদার, মুফতি শফিকুর রহমান ও মুফতি আব্দুল হাই।

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হচ্ছেন- শাহাদত উল্লাহ ওরফে জুয়েল, হাফেজ মওলানা আবু তাহের, মওলানা আব্দুর রউফ, মওলানা সাব্বির ওরফে আব্দুল হান্নান সাব্বির, মওলানা শওকত ওসমান ওরফে শেখ ফরিদ ও হাফেজ মওলানা ইয়াহিয়া।

আসামিদের মধ্যে মুফতি আবদুল হান্নান, মওলানা আকবর হোসেন, আরিফ হাসান সুমন ও মওলানা আবু বকর ওরফে মওলানা হাফেজ সেলিম হাওলাদার কারাগারে রয়েছেন এবং বাকিরা পলাতক।

এরপর বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে ডেথ রেফারেন্স এবং আসামিদের জেল আপিল ও ফৌজদারি আপিলের শুনানির জন্য মামলাটি হাইকোর্টে আসে। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি জেবিএম হাসানের হাইকোর্ট বেঞ্চের বুধবারের (২৭ জুলাই) কার‌্যতালিকায় মামলাটি ৫০ নম্বর ক্রমিকে ছিলো।

২০০৫ সালের সিরিজ বোমা
২০০৫ সালে ১৭ আগস্ট দেশব্যাপী সিরিজ বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, আদালত প্রাঙ্গন, ডাক বাংলোর সামনে ও পালং বাজারে সারাদেশের মতো একযোগে বোমা হামলা করা হয়।

এ ঘটনায় করা মামলায় ২০১৩ সালের ২৮ জানুয়ারি দু’জনকে মৃত্যুদণ্ড দেন শরীয়তপুরের বিচারিক আদালত।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- কামরুজ্জামান ওরফে স্বপন (২৭) ও মালেক বেপারী ওরফে মালেক জেহাদী (২৮)।

পরবর্তীতে ডেথ রেফারেন্স অনুমোদনের জন্য মামলাটি হাইকোর্টে আসে। পাশাপাশি আসামিরা হাইকোর্টে আপিল করেন।

বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিচারপতি মো. জাহাঙ্গীর হোসেনের হাইকোর্ট বেঞ্চের বুধবারের কার‌্যতালিকায় মামলাটি ৫ নম্বর ক্রমিকে ছিলো।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ একেএম মনিরুজ্জামান কবির জানান, বৃহস্পতিবার গাজীপুরের মামলার রায় হবে। এরপর তালিকা অনুসারে বাকি ডেথ রেফারেন্স মামলার শুনানি শুরু হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯১০ ঘণ্টা, জুলাই ২৭, ২০১৬
ইএস/এএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa