bangla news

তিনদিনের মধ্যে এসএসসির গণিতের খাতা পুনঃনিরীক্ষণের নির্দেশ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৬-০৫-১৬ ৭:২১:৪১ এএম

সদ্য প্রকাশিত এসএসসি পরীক্ষায় চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের শিক্ষার্থী মায়িশা ফারজানার গণিত বিষয়ের খাতা তিনদিনের মধ্যে পুনঃনিরীক্ষণের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

ঢাকা: সদ্য প্রকাশিত এসএসসি পরীক্ষায় চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের শিক্ষার্থী মায়িশা ফারজানার গণিত বিষয়ের খাতা তিনদিনের মধ্যে পুনঃনিরীক্ষণের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।
 
চট্টগ্রামের একটি বালিকা স্কুলের এক শিক্ষার্থীর করা রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে সোমবার (১৬ মে) এ আদেশ দেন বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি একেএম সাহিদুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ।
 
ওই শিক্ষার্থী ও তার বিদ্যালয় ডা. খাস্তগীর সরকার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সামনে খাতা পুনঃনিরীক্ষণের আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

খাতা পুনঃনিরীক্ষণ করে কেন নতুন করে ফল ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুলও জারি করেছেন আদালত।
 
তিন সপ্তাহের মধ্যে শিক্ষা সচিব, চট্টগ্রাম মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান, সচিব ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক এবং স্কুল পরিদর্শককে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।
 
২০১৬ সালের এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল গত ১১ মে প্রকাশ করা হয়। এরপর চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের কয়েকশ’ শিক্ষার্থী দেখতে পায়, তারা অন্য সব বিষয়ে জিপিএ-৫ পেলেও শুধু গণিতে এর ব্যতিক্রম ঘটেছে। ওই বোর্ডের গ ও ঘ সেট পাওয়া শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রেই এমনটি ঘটেছে বলে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের অভিযোগ।
 
তাই খাতা পুনঃনিরীক্ষণের জন্য ওই বোর্ডের ডা. খাস্তগীর সরকার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯৫ শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা বোর্ডের চেয়ারম্যান বরাবর আবেদন করেন।
 
ওইসব আবেদনে  উল্লেখ করা হয়েছে, এসএসসির ফলাফল প্রকাশের পর দেখা গেছে, খাস্তগীরের মেধাবী ছাত্রীরা শুধুমাত্র গণিত বিষয়ে জিপিএ-৫ পায়নি। তারা গণিতের নৈর্ব্যক্তিক অংশে যথেষ্ট ভালো করেছে এবং রচনামূলক অংশে ৬০ নম্বরের যথাযথ উত্তর দিয়েছে। তারা জানতে পারেন, নৈর্ব্যক্তিক অংশে বিশেষ করে গ ও ঘ সেট প্রাপ্ত পরীক্ষার্থীদের সাধারণ গণিতে প্রযুক্তিগতসহ অজানা যেকোনো ভুলের কারণে জিপিএ-৫ বঞ্চিত হয়েছে।
 
এরপর কয়েকদিন অতিবাহিত হলেও খাতা পুনঃনিরীক্ষণে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি বোর্ড কর্তৃপক্ষ। তাই সেসব শিক্ষার্থীদের মধ্যে ডা. খাস্তগীর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী মায়িশা ফারজানা রোববার (১৫ মে) হাইকোর্টে রিট দায়ের করে। ওই রিটের প্রাথমিক শুনানি শেষে হাইকোর্ট তিনদিনের মধ্যে খাতা পুনঃনিরীক্ষণের নির্দেশ দেন।
 
আদালতে রিট আবেদনকারীর পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল শশাঙ্ক শেখর সরকার।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৭২১ ঘণ্টা, মে ১৬, ২০১৬
ইএস/এএসআর

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2016-05-16 07:21:41