ঢাকা, শুক্রবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

আইন ও আদালত

কখনো পরাজিত হইনি, পুনর্নির্বাচন চাই: ব্যারিস্টার খোকন

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১০৭ ঘণ্টা, মার্চ ২৭, ২০২৪
কখনো পরাজিত হইনি, পুনর্নির্বাচন চাই: ব্যারিস্টার খোকন

ঢাকা: সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে বিজয়ী সভাপতি ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, আগামী ২ এপ্রিল জেনারেল মিটিংয়ে আনুষ্ঠানিক ফল ঘোষণা হবে। পুনর্নির্বাচন দেয় কি না, সেদিন পর্যন্ত অপেক্ষা করব।

বুধবার (২৭ মার্চ) সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি (২০২৪-২০২৫) নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত বিজয়ী সভাপতি ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকনকে দায়িত্ব গ্রহণ থেকে বিরত থাকতে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের দেওয়া চিঠির প্রেক্ষিতে সাংবাদিকদের তিনি এমন মন্তব্য করেন।

তবে দায়িত্ব নেওয়া থেকে বিরত থাকবেন কি না, এমন প্রশ্নের সরাসরি কোনো জবাব দেননি বিএনপির এই যুগ্ম মহাসচিব।

এবারের নির্বোচনে ১৪টি পদের বিপরীতে সভাপতিসহ চারটি পদে বিজয়ী হয়েছিল বিএনপি সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য প্যানেল। অপরদিকে সম্পাদকসহ ১০টি পদে বিজয়ী হয়েছে সরকার সমর্থিত বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ।

৬ ও ৭ মার্চ নির্বাচন শেষে ৯ মার্চ দিবাগত রাতে ভোট গণনা শেষে ফলাফল ঘোষণা করেন নির্বাচন পরিচালনা উপ-কমিটির আহ্বায়ক সিনিয়র  অ্যাডভোকেট বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের।

বিএনপির নেতৃত্বাধীন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য প্যানেলের (নীল প্যানেল হিসেবে পরিচিত) বিজয়ীরা হলেন—সভাপতি পদে এ এম মাহবুব উদ্দিন (খোকন) এবং সদস্য পদে সৈয়দ ফজলে এলাহী, ফাতিমা আক্তার ও মো. শফিকুল ইসলাম শফিক।

বিএনপি সমর্থিত এই চারজনকে দায়িত্ব নেওয়া থেকে বিরত থাকতে বুধবার চিঠি দেওয়া হয়।

সেই চিঠির বিষয় জানতে চাইলে মাহবুব উদ্দিন খোকন সাংবাদিকদের বলেন, এ নির্বাচনটা অনেক কলঙ্ক ছড়িয়েছে। ১৯৪৮ সালে সুপ্রিম কোর্ট বার গঠিত হয়েছে। এইবার প্রথম ভোট গণণার আগে সরকারি দলের লোকজন ব্যালট বাক্স লুটপাট করে নিয়েছে। পরবর্তীতে সেই ব্যালট বাক্স পুলিশ উদ্ধার করে সুপ্রিম কোর্টে নিয়ে এসেছে। গণণার সময় জাল-জালিয়াতি না হলে অন্তত আমি দেড় দুই হাজার ভোটে জিততাম। প্রথম যে ১২০০ ভোট গণণা হয়েছিল, সেখানে আমাদের ১৩ জন এগিয়েছিলেন। মুলত ভোট গণনার সময় জাল-জালিয়াতি করা হয়েছে। আমি শেষে এসে আমরটা রক্ষা করেছি। এটা একটা বিরাট ষড়যন্ত্র ছিল। তারপরও আইনজীবীরা ভোট দিয়েছেন তাই আমি নির্বাচিত হয়েছি।

তিনি বলেন, নির্বাচিত হয়েই আমি পুনর্নির্বাচন দাবি করেছি। আমি আমার সভাপতি পদসহ পুনর্নির্বাচন চাই। আমি অপেক্ষা করছি সিদ্ধান্তের। কারণ ২ তারিখ জেনারেল মিটিংয়ে আনুষ্ঠানিক ফল ঘোষণা হবে। পুনর্নির্বাচন হলে খুশি হব। পুনর্নির্বাচন না হলেও আমি তো সভাপতি নির্বাচিত হয়েছি। আর আরও তিনজন তো আছে, এখানে পদত্যাগের সুযোগ নেই। আমরা পুনর্নির্বাচনের দাবিতে অটল আছি। এজন্য চিঠি দিয়েছে।

আপনার বিরুদ্ধে আঁতাতের অভিযোগ করছেন কেউ কেউ—এমন প্রশ্নে মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, সেটা কে কী বলল না বলল, ইট ডাজেন্ট ম্যাটার, সুপ্রিম কোর্ট বার নির্বাচনে আমার পরাজয়ের কোনো ইতিহাস নেই। আমার প্যানেল মেজরিটি জিতত। সেটা পেলাম না। সেটা কারো ভুল সিদ্ধান্তের জন্য।

আরও পড়ুন:
সভাপতি পদে দায়িত্ব নিতে ব্যারিস্টার খোকনকে মানা

বাংলাদেশ সময়: ২১০৪ ঘণ্টা, মার্চ ২৭, ২০২৪
ইএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।