ঢাকা, শনিবার, ২১ মাঘ ১৪২৯, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১২ রজব ১৪৪৪

আইন ও আদালত

ফখরুল-আব্বাসকে কারাগারে আটক রাখতে আবেদন

ইউনিভার্সিটি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৩৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৯, ২০২২
ফখরুল-আব্বাসকে কারাগারে আটক রাখতে আবেদন

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, (জবি): রাজধানীর পল্টন থানায় দায়েরকৃত মামলায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও কেন্দ্রীয় নেতা মির্জা আব্বাসকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করা হয়েছে।

শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) তাদের আদালতে হাজিরের পর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবির পুলিশ পরিদর্শক তরিকুল ইসলাম এ আবেদন করেন।

এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ জসীমের আদালতে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

গত বুধবার (৭ ডিসেম্বর) নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়। এতে একজন গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান। আহত হন অনেকে। পরে বিএনপি কার্যালয়ে অভিযান চালানো হলে সেখানে অনেক ককটেল পাওয়ার কথা জানায় পুলিশ।

এ ঘটনায় পল্টন থানার উপ-পরিদর্শক মিজানুর রহমান বাদী হয়ে মামলা করেন। মামলায় ৪৭৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত দেড় থেকে দুই হাজার বিএনপির নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়। ওই মামলায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও কেন্দ্রীয় নেতা মির্জা আব্বাসকে গ্রেফতার করে আদালতে তোলে পুলিশ।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও মির্জা আব্বাসকে আদালতে আনায় আদালত এলাকায় বিপুলসংখ্যক পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়।

লালবাগ জোনের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (এডিসি) মো. মুহিত কবীর সেরনিয়াবাত বলেন, আদালতে যেন কোনো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি না হয়, সেজন্য আমরা আদালত প্রাঙ্গণে বাড়তি নিরাপত্তা জোরদার করেছি। আমরা আমাদের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ সর্তকতা অবলম্বন করেছি।

এর আগে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে ফখরুল ও আব্বাসকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় বলে বিএনপির মিডিয়া সেলের সদস্য শায়রুল কবির খান নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, রাত ৩টার পরে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলকে তার উত্তরার বাসা থেকে এবং ৩টা ২০ মিনিটে স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসকে তার শাহজাহানপুরের বাসা থেকে গোয়েন্দা পুলিশ তুলে নিয়ে যায়।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৯, ২০২২
এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa