ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ মাঘ ১৪২৯, ৩১ জানুয়ারি ২০২৩, ০৮ রজব ১৪৪৪

আইন ও আদালত

আনসার আল ইসলামের ৫ সদস্য রিমান্ডে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৪৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৭, ২০২২
আনসার আল ইসলামের ৫ সদস্য রিমান্ডে

ঢাকা: রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থানায় দায়ের করা সন্ত্রাস বিরোধ আইনের এক মামলায় আনসার আল ইসলামের ৫ সদস্যের ৭ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।  

বুধবার (০৭ ডিসেম্বর) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শফি উদ্দিন রিমান্ডের এই আদেশ দেন।

 

রিমান্ডে যাওয়া ৫ আসামি হলেন- খাইরুল ইসলাম ওরফে জামিল, মোজাম্মেল হোসেন সাইমন, আরাফাত রহমান, শেখ আব্দুল্লাহ ও আ. সবুর।

এদিন কোতয়ালী থানায় দায়ের করা জঙ্গি ছিনতাইয়ের মামলায় এই ৫ আসামিসহ ১০ জনকে আদালতে হাজির করে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) পরিদর্শক মুহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ।  

অপর ৫ আসামি হলেন- শাহিল আলম, শাহ আলম, বিএম মজিবুর রহমান, সুমন হোসেন পাটোয়ারী ও রশিদুন্নবী।

ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসীমের আদালত ১০ আসামিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এরপর এই ৫ জনকে যাত্রাবাড়ী থানার মামলায় গ্রেফতার দেখানোসহ রিমান্ড আবেদন করেন সিটিটিসির পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত কর্মকর্তা মুসাদ্দিমুল হক।  

রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, এ মামলায় গ্রেফতার এজাহার নামীয় আসামি জাকির হোসেন ওরফে ইব্রাহিমকে গত ১৭ নভেম্বর দুই দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়।  

রিমান্ডে থাকাকালে সে জানায়, বর্তমান আনসার আল ইসলামের মাস্টারমাইন্ড খাইরুল ইসলাম ওরফে জামিল, মোজাম্মেল হোসেন সাইমন, আরাফাত রহমান, শেখ আব্দুল্লাহ, আ: সবুরসহ আরও ২০/২৫ জন সদস্য পুরো সাংগঠনিক কার্যক্রম চালিয়ে আসছে।

তারা কারান্তরীণ থেকে অনলাইন ভিত্তিক গোপনীয় অ্যাপস ব্যবহারের মাধ্যমে সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালিত করে আসছে মর্মে তথ্য পাওয়া যাচ্ছে। বর্তমান সময়ে আনসার আল ইসলামের সদস্যরা অত্যন্ত সক্রিয়ভাবে কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। গত ২০ নভেম্বর সংগঠনের সদস্যরা আদালত প্রাঙ্গণ থেকে দুর্ধর্ষ আসামি ছিনতাইয়ের মত ঘটনা ঘটায়।

মামলার সুষ্ঠু তদন্ত, ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা ও বাংলাদেশকে নিরাপদ রাখার জন্য পলাতক জঙ্গিদের সনাক্ত করে গ্রেফতার, অর্থায়নের উৎস, জঙ্গি সংগঠনের পলাতক সদস্যদের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহের জন্য আসামিদের ১৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুরের প্রার্থনা করেন তদন্ত কর্মকর্তা।

রিমান্ড শুনানির জন্য আসামিদের কড়া নিরাপত্তায় আদালতের এজলাসে তোলা হয়। শুনানি শেষে আদালত তাদের ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদেশ দেন।  

গত ২০ নভেম্বর আনসার আল ইসলামের সদস্যরা চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ফটক থেকে পুলিশকে মারধর করে দুই সদস্যকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। পরে রাতেই মোহাম্মদ থানার মামলায় কারাগারে থাকে ১০ আসামিকে কোতয়ালী থানার দায়ের করা জঙ্গি ছিনতাইয়ের মামলায় রাতেই ১০ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়। পরে আবার ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৭, ২০২২
কেআই/এসএএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa