ঢাকা, বুধবার, ৯ শ্রাবণ ১৪২৬, ২৪ জুলাই ২০১৯
bangla news

যাত্রীদের মাথা-পা ম্যাসাজের উদ্যোগ নিচ্ছে ভারতীয় রেল

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৬-০৯ ৮:২২:৪৫ পিএম
ভারতীয় ট্রেনের সংগৃহীত ছবি

ভারতীয় ট্রেনের সংগৃহীত ছবি

কলকাতা: চলন্ত ট্রেনে বডি ম্যাসাজ! আয় বৃদ্ধি করতে এমন অভিনব উদ্যোগ নিচ্ছে ভারতীয় রেল। এবার ভারতে চলন্ত ট্রেনেই ‘হেড অ্যান্ড ফুট ম্যাসাজে’র সুবিধা পাবেন সাধারণ যাত্রীরা। সর্বনিম্ন ১০০ রুপি থেকে সর্বোচ্চ ৩০০ রুপি পর্যন্ত প্যাকেজ মিলবে চলন্ত ট্রেনেই।

আগামী ১৫ দিনের মধ্যেই পরীক্ষামূলকভাবে এই ব্যবস্থা চালু করতে চলেছে ভারতের রেল। নতুন এই ব্যবস্থায় যাত্রীদের কাছ থেকে সাড়া কেমন মেলে, তা খতিয়ে দেখে নিজেদের এই বিশেষ পরিষেবা চালু করে দেবে রেল মন্ত্রণালয়।

রেল পরিবহন ভারতের যোগাযোগ ব্যবস্থায় সর্বোচ্চ গুরুত্ব পেয়ে থাকে। রেলের আয় বৃদ্ধি করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ আগেও নিয়েছিল মন্ত্রণালয়। এই সব পরিষেবা দেওয়ার জন্য বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে বরাত দেওয়া হয়েছে। তবে এর মধ্যে ‘হেড অ্যান্ড ফুট ম্যাসাজ’ একেবারে অভিনব পন্থা।

যাত্রী ভাড়া বৃদ্ধি না করে অন্য কোনো আকর্ষণীয় পরিকল্পনার মাধ্যমে রেলের আয় বৃদ্ধি করা ভারতীয় রেলের নতুন পরিকল্পনা। এ ব্যাপারে রেলের ডিরেক্টর (ইনফরমেশন অ্যান্ড পাবলিসিটি) রাজেশ ডি বাজপেয়ী ওয়েবসাইটে বলেছেন, ‘এর আগে ভারতীয় রেলে এরকম পরিষেবা যাত্রীদের দেওয়া হয়নি। দক্ষিণ ভারতের রতলাম ডিভিশন পরীক্ষামূলকভাবে এটি চালু করছে। তাতে সাড়া মিললে রেলের সবকটি ডিভিশনের এই পরিষেবা চালু করা যেতে পারে’। 

গোটা ব্যবস্থার ফলে রেলের বছরে অতিরিক্ত ২০ লাখ রুপি আয় হবে বলে রেল মন্ত্রণালয়ের তরফে জানানো হয়েছে।

চলন্ত ট্রেনে কীভাবে এই ম্যাসাজের পরিষেবা পাবেন সাধারণ যাত্রীরা? মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আপাতত ইন্দোর স্টেশন থেকে যাতায়াত করা ৩০টি ট্রেনে এই পরিষেবা দেওয়া হবে। যাত্রীদের ‘হেড অ্যান্ড ফুট ম্যাসাজ’ যারা করবেন, তারা প্রত্যেকেই হবেন বেসরকারি সংস্থার কর্মী। সংশ্লিষ্ট বেসরকারি সংস্থা রেলের সঙ্গে চুক্তির ভিত্তিতে এই কাজ করবে। জানা গেছে, এক্ষেত্রে যাত্রীদের জন্য তিনটি প্যাকেজ রয়েছে। গোল্ড, ডায়মন্ড এবং প্লাটিনাম। যাত্রীপিছু যার মূল্য যথাক্রমে ১০০ রুপি, ২০০ রুপি এবং ৩০০ রুপি।

তবে রেল স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে, এক্ষেত্রে পরিষেবা নেওয়ার জন্য সাধারণ যাত্রীদের কোনোরকম জোর-জবরদস্তি করা হবে না। যারা এ সেবা নিতে চাইবেন, একমাত্র তারাই নিজে থেকে ট্রেনের সংশ্লিষ্ট কর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন। এর পাশাপাশি রাত ১০টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত ট্রেনে এই পরিষেবা পাওয়া যাবে না। একইভাবে রেল যাবতীয় বিভ্রান্তি কাটিয়ে জানিয়ে দিয়েছে, এই ইস্যুতে সংশ্লিষ্ট ট্রেনগুলোতে কোনোরকম ‘সেলুন’ ব্যবস্থা চালু করা হবে না। বেসরকারি সংস্থার এই কর্মীদের কাছ থেকে শুধুমাত্র হেড অ্যান্ড ফুট ম্যাসাজই পাওয়া যাবে।

রেল মন্ত্রণালয়ের ওই শীর্ষ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, আপাতত সিদ্ধান্ত হয়েছে, প্রতি ট্রেনে এরকম ৩ থেকে ৫ জন কর্মী থাকবেন। পরবর্তী ক্ষেত্রে চাহিদা মতো কর্মীর সংখ্যা বৃদ্ধি করা হবে।

এই বিশেষ পরিষেবা নিয়ে লাগাতার প্রচার চালানো হবে ডিভিশনগুলোতে। আকর্ষণীয় এই পরিষেবার সুবিধা পেতে অন্য সময়ের তুলনায় বেশি যাত্রী এই রুটের ট্রেনগুলিতে চাপবেন। পাশাপাশি যে কর্মীরা ‘ম্যাসাজ’ করবেন, তাদেরও টিকিট কেটেই ট্রেনে উঠতে হবে।

তবে যাত্রীদের প্রশ্ন, যেহেতু আলাদা কোনো কেবিন বা সেলুন থাকছে না সেহেতু, চলন্ত রেলে বসা যাত্রীর ম্যাসাজ করা হলে, পাশে বসা বাকি যাত্রীদের অসুবিধা হতে পারে। সেক্ষেত্রে রেলের কিছু ভাবা দরকার।

এছাড়া অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন আলাদা সেলুন বা কামরা না থাকায় নারী যাত্রীরা এই পরিষেবা কি আদৌ গ্রহণ করতে স্বস্তিবোধ করবেন?

তবে এসব সংশয় থাকলেও রেল এই পরিষেবা চালু করতে বদ্ধপরিকর। তাদের বিশ্বাস তাদের এই পরকল্পনা আগামী দিনে যুগান্তকারী পদক্ষেপ বলে বিবেচিত হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২০২১ ঘণ্টা, জুন ০৯, ২০১৯
বিএস/জেডএস

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

কলকাতা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2019-06-09 20:22:45