ঢাকা, শুক্রবার, ৬ বৈশাখ ১৪২৬, ১৯ এপ্রিল ২০১৯
bangla news

ভোটকেন্দ্রে ইভিএম নষ্ট, খোঁজ নিলেন মমতা

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৪-১১ ১:২৮:৩৪ পিএম
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কলকাতা: বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) পশ্চিমবঙ্গে প্রথম দফার নির্বাচনে, দুই জেলা কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট শুরু হলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বিভিন্ন জায়গা থেকে বিচ্ছিন্ন উত্তেজনার খবর আসছে।

দুই জেলায় ভোটগ্রহণ শুরুর পর থেকে বিচ্ছিন্ন কিছু হিংসার ঘটনার খবর এসেছে। কোচবিহার জেলার মাথাভাঙ্গা এলাকার কিছু তৃণমূল কর্মীদের ওপর হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে বিজেপির বিরুদ্ধে। অপরদিকে বিজেপিও একই নালিশ করেছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

ভোট উপলক্ষে পশ্চিমবঙ্গে কেন্দ্রীয় আধাসামরিক বাহিনী পাঠানো হলেও স্থানীয় সূত্রে খবর, বেশির ভাগ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে দেখা যায়নি বলে অভিযোগ ওঠে। 

এছাড়া কোচবিহারে ভোট দিতে গিয়ে কেন্দ্রীয় বাহিনীর সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পরেন পশ্চিমবঙ্গের মন্ত্রী তথা তৃণমূল নেতা রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। মন্ত্রী বিক্ষোভ দেখান অনেকগুলো বুথে ইভিএম খারাপ থাকায়। 

এসব কেন্দ্রীয় সরকারের চক্রান্ত বলে দাবি করেন। অপরদিকে বিজেপি প্রার্থীর অভিযোগ দলবল নিয়ে ভোটের বুথে ঢুকলে তো কেন্দ্রীয় বাহিনী বাধা দেবেই।

বাদনুবাদের মধ্যে মন্ত্রীকে সরাসরি ফোন করে খোঁজ নেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে রাজ্যের নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, কিছু ইভিএম বিকল হয়েছিল পরে তা পাল্টে দেয়া। তাতে একঘণ্টা দেরি হয়েছে  কেন্দ্রের ১১টি বুথে। 

কোচবিহারের একাধিক বুথে নির্বাচন বাতিল করে আবার পুনঃ নির্বাচনের দাবি তুলেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। শেষ খবর পাওয়া অব্দী সকাল ১১টা পর্যন্ত ভোটের হার প্রায় ৩০ শতাংশ। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া দুই জেলায় ভোট চলছে শান্তিপূর্ণভাবে।

একদিকে কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারে প্রথম দফার ভোটগ্রহণ পর্ব চলছে, অন্যদিকে দ্বিতীয় দফার নির্বাচনী প্রচারের জন্য দার্জিলিং যাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর একই দিনে কালিম্পং যাবেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ।

বাংলাদেশ সময়: ১৩২৪ ঘণ্টা, এপ্রিল ১১, ২০১৯
ভিএস/এমএ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14