ঢাকা, বুধবার, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬, ২৬ জুন ২০১৯
bangla news

কোথাও ৪০ কোটির মণ্ডপ, কোথাও ১০ কোটির প্রতিমা

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-১০-১৭ ১০:৩২:০৬ এএম
রূপার তৈরি দুর্গা প্রতিমা_ছবি: বাংলানিউজ

রূপার তৈরি দুর্গা প্রতিমা_ছবি: বাংলানিউজ

কলকাতা: ঠিক দু’বছর আগে বিশ্বের সবচেয়ে বড় দুর্গা প্রতিমা বানিয়ে চমক দিয়েছিলো দক্ষিণ কলকাতার দেশপ্রিয় পার্ক। সে প্রতিমা দেখার ভিড় সামলাতে নাজেহাল হয়েছিলো পূজা কমিটির উদ্যোক্তা থেকে পুলিশ প্রসাশন। পরিস্থিতি এতোটাই হাতের বাইরে গিয়েছিলো অবশেষে মুখ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে বন্ধ করে দিতে হয়েছিলো প্রতিমার গেট। তাতেও দমানো যায়নি আমবাঙালিকে। গেট বন্ধ থাকলেও ১২তলা বাড়ির সমান প্রতিমা তো আর ঢেকে রাখা যায় না! ফলে রাস্তা থেকেই চলছিলো দেবীদর্শন। শেষমেষ ওই রাস্তায়ও বন্ধ করে দিয়েছিলো পুলিশ। এ ঘটনাতো আজ অতীত। চমক কিন্তু প্রতিবারই থাকে কলকাতার বারোয়ারী পূজাগুলোয়। শিল্পের নান্দনিকতায় এবং বাজেটের টেক্কায়!  

৮৩তম বছরে পা দিলো এবারে উত্তর কলকাতার সন্তোষ মিত্র স্কোয়্যারের পূজা। থিম রথ। ওড়িশার পুরীর রথের আদলে এক রথ নির্মাণ করেছে তারা। উচ্চতা ৬০ ফুট অর্থাৎ প্রায় ছয়তলা বাড়ির সমান। শুধু তাই নয়, এ রথ তৈরি হয়েছে ১০ টন রুপা দিয়ে। এমনিতেই উত্তর কলকাতার দুর্গাপূজা মানেই বনেদিয়ানায় ঠাসা। এবার সে বনেদিয়ানায় নয়া চমক পূজা কমিটির। রথ তৈরি করতে খরচ ৪০ কোটি রুপি। 

পূজা কমিটির সম্পাদক সজল ঘোষ বলেন, গত বছর আমরা দুর্গা প্রতিমাকে সোনার শাড়ি পরিয়েছিলাম। এবার সেনকো গোল্ড অ্যান্ড ডায়মন্ডসের সহযোগিতায় আমরা ৪০ কোটির রুপির রুপার রথ উপহার দিলাম দর্শকদের।রূপার তৈরি রথ_ছবি: বাংলানিউজকীভাবে তৈরি করা হয়েছে এ বিপুলাকার রথ? প্রথমে ইস্পাত দিয়ে রথের কাঠামো বানানো। তারপর বিশাল ওই কাঠামোর গায়ে চাপানো হয়েছে রুপার পাত দিয়ে তৈরি নকশাদার চাদর। ওই নকশা তৈরি করতে প্রায় ১০ টন রুপা লেগেছে। নকশা তৈরির কর্মকাণ্ড কলকাতার ওয়ার্কশপেই হয়েছে বলে জানিয়েছে ‘সেনকো গোল্ড অ্যান্ড ডায়মন্ডস’। রথের চমক তো আছেই, তাছাড়া রথের পেছনে সত্যিকারের পাথর দিয়ে বানানো হয়েছে পাহাড়। ভাবনায়, মহাভারতের যুদ্ধ শুরুর আগের রণসজ্জার চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। ওই পাহাড়ের ভেতরেই বসানো হয়েছে দেবীর মূর্তি।

৪০ কোটির রুপার রথ আছে আর নিরাপত্তা আঁটোসাঁটো হবে না! আছে কলকাতা পুলিশের তরফে কড়া নজরদারি। সাদা পোশাকে আছে গোয়েন্দারা। এছাড়া গোটা মাঠজুড়ে নিজস্ব নিরাপত্তারক্ষী মোতায়েন করেছেন উদ্যোক্তারা। রথের চারপাশে নজর রাখছে শ’চারেক স্বেচ্ছাসেবক। মণ্ডপের ভেতরে-বাইরে আছে ৩০টিরও বেশি সিসি ক্যামেরা।

এতো গেলো কলকাতায়। এবারে চমক তৈরি করেছে উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার সোদপুর শহীদ কলোনী। ওই জেলার সবচেয়ে বড় বাজেটের পূজা এবার। পূজার বাজেট ১০ কোটি রুপিরও বেশি। হীরে, চুনি, পান্না ও সোনার গহনায় মোড়া দুর্গা প্রতিমা। স্পন্সর বিখ্যাত সোনার গহনা ব্যবসায়ী বি সরকার। পূজার মূল ভাবনা মানুষকে নিয়ে। থিম 'আত্মানাং বৃদ্ধি'। মানুষ মানুষের জন্য, মানুষই মানুষের বিপদের বন্ধু। এ ভাবনাই ফুটে উঠেছে মণ্ডপ সজ্জায়। শিল্পী ইন্দ্রজিত্‍ পোদ্দারের ভাবনায় রূপদান পেয়েছে মণ্ডপ সজ্জা ও বহুমূল্যবান দেবী মূর্তির।

১০ কোটি রুপির রত্ন খচিত দেবী দুর্গা প্রতিমা দর্শন করতে প্রত্যেক দিন লক্ষাধিক মানুষের ঢল নামছে। আঁটোসাঁটো করা হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থাও। বারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের কথায় ২৪ ঘণ্টা মোতায়েন আছে পুলিশ। তেমনই থাকছে পূজার উদ্যোক্তাদের নিজস্ব নিরাপত্তারক্ষী, বাউন্সার এবং গানম্যান। মণ্ডপটি পুরোটাই সিসিটিভি ক্যামেরায় মোড়া। উত্তর ২৪ পরগনা জেলার সেরা পূজার আকর্ষণ সোদপুর শহীদ কলোনী দুর্গোত্‍সব কমিটির।

এছাড়া কলকাতায় আছে বড় বাজেটের পূজা। যেমন সল্টলেকের শ্রীভুমির থিম সিনেমা পদ্মাবতের সেট দিয়ে বানানো। বাজেট তিন কোটির মতো। এরপরও কলকাতায় আছে আর কিছু বড় বাজেটের পূজা। 

বাংলাদেশ সময়: ১০২৪ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৭, ২০১৮
ভিএস/আরবি/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

কলকাতা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2018-10-17 10:32:06