ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ বৈশাখ ১৪২৬, ২৩ এপ্রিল ২০১৯
bangla news

বাজপেয়ীর মৃত্যুতে মমতার শোক

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৮-১৬ ২:৫৮:৪৯ পিএম
বাজপেয়ীর মৃত্যুতে মমতার শোক

বাজপেয়ীর মৃত্যুতে মমতার শোক

কলকাতা: সাবেক প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর মৃত্যুতে সাত দিন রাষ্ট্রীয় শোক পালনের ঘোষণা দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। রাষ্ট্রীয় শোক থাকার ফলে শুক্রবার (১৭ আগস্ট) রাজ্যেও অর্ধ দিবস ছুটি ঘোষণা করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার।

এর ফলে শুক্রবার অর্ধদিবস বন্ধ থাকবে রাজ্যের সমস্ত সরকারি দফতর, স্কুল ও কলেজ। বন্ধ থাকবে সমস্ত প্রশাসনিক ভবনও। শুধু তাই নয়, বাতিল করা হয়েছে সমস্ত সরকারি অনুষ্ঠানও। ২২ তারিখ পর‌্যন্ত অর্ধনমিত থাকবে ভারতের জাতীয় পতাকা।

বৃহস্পতিবার (১৬ আগস্ট) বাজপেয়ীর মৃত্যু সংবাদ আসার পরেই রাজ্যের সমস্ত সরকারি অনুষ্ঠান বাতিল করে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। পরিবহন দফতরের একটি অনুষ্ঠান ছিল। সমস্ত আয়োজনও হয়ে গিয়েছিল। দুঃসংবাদটা পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়। এদিন পরিবহন দফতরের অনুষ্ঠানে অনেকগুলি নতুন রুটে একাধিক এসি ও নন এসি বাস উদ্বোধন হওয়ার কথা ছিল।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে আসে দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক মহলে। একের পর এক রাজনীতিকরা শোকপ্রকাশ করছেন সোশাল সাইটে ৷ 

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শোক প্রকাশ করে বলেন, গভীর শোকাহত সাবেক প্রধানমন্ত্রীর মৃত্যুতে। অটল বিহারীর প্রধানমন্ত্রীত্বে রেলমন্ত্রীর দায়িত্বে ছিলাম। বাজপেয়ী-জীর সঙ্গে আমার সম্পর্ক খুবই ভালো ছিল। বাজপেয়ী-জীকে চিরকাল শ্রদ্ধা করতাম। এক দক্ষ রাজনীতিককে হারালাম আমরা। তার সঙ্গে কাটানো সময় চিরকাল মনে রাখব।

অটল বিহারী বাজপেয়ী প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন কলকাতা এসে প্রথম আমার বাড়িতেই গিয়েছিলেন। মায়ের (গায়ত্রী দেবীর) হাতে বানানো নাড়ু খেয়েছিলেন। দীর্ঘক্ষণ কথাও বলেছিলেন মায়ের সঙ্গে। মায়ের কাছ থেকে আশীর্বাদ নিয়েছিলেন। এভাবেই তার মৃত্যুতে অতীত দিনগুলো স্মরণ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

উল্লেখ্য, ১৯৯৯ সালে মমতা, বিজেপি-নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটে সামিল হন। এই জোট সরকার গঠনে মমতা ভারতের রেলমন্ত্রী হন। এই সময়ই অটল বিহারী বাজপেয়ীর সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্পর্ক আরও নিবিড় হয়ে ওঠে। 

বাংলাদেশ সময়: ০০৫০ ঘণ্টা, আগস্ট ১৭, ২০১৮
ভিএস/এসআই/এসআরএস

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14