ঢাকা, রবিবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৭, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১ সফর ১৪৪২

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

সিঙ্গুরে প্রকল্পে সরকারের দখল নিয়ে টাটার মামলা

রক্তিম দাশ, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৫৫ ঘণ্টা, জুন ২২, ২০১১
সিঙ্গুরে প্রকল্পে সরকারের দখল নিয়ে টাটার মামলা

কলকাতা: অবশেষে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হল টাটা মোটরস। মঙ্গলবার মাঝরাতে প্রকল্পের জমি সরকার নিয়ে নেওয়ার বিরুদ্ধে কলকাতা হাইকোর্টে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিরুদ্ধে তারা মামলা দায়ের করল।



বুধবার সকাল সাড়ে দশটায় এই মামলা শুরু হয় বিচারপতি সৌমিত্র পালের এজলাসে। টাটার পক্ষের আইনজীবী সমরদিত্য পাল জমির দখলকে কেন্দ্র করে একটি রিট পিটিশন দাখিল করেন।

বলা হয়, জোর করে সরকার জমি দখল করেছে। তাদের পক্ষ থেকে জমি অধিগ্রহণে স্টে-অর্ডার দেওয়ার আর্জি জানানো হয়।

কিন্তু বিচারপতি এই দাবি খারিজ করে দিয়ে জানান, ‘পিটিশনের কপি রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল অনিন্দ্য মিত্র ও সরকারি আইনজীবী অশোক বন্দ্যোপাধ্যায়কে জমা দিতে হবে। ’ এরপর দুপুর ১২টা থেকে শুনানি শুরু হবে।

টাটা মোটরস পিটিশনে বলেছে, তাদের জমি ছেড়ে যেতে বাধ্য করা হয়েছে। কিন্তু সরকারি আইনে তাদের চলে যাওয়ার কথা বলা হয়েছে। তারা তিন বছর যেহেতু জমি ফেলে রেখেছে, সেখানে কাজ করেনি তাই এটি সরকার অধিগ্রহণ করেছে বলে সিঙ্গুর আইনে বলা হয়েছে। এটা তারা মানে না।

এরপর দুপুর ১২টায় শুনানি শুরু হওয়ার কথা থাকলেও মামলার আর্জির পদ্ধতিগত ক্রটির জন্য তা পিছিয়ে দুপুর ২টা থেকে মূল শুনানি শুরু হয়।

শুনানিতে টাটা মোটরসের পক্ষ থেকে আইনজীবী সমরাদিত্য পাল অন্তরবর্তীকালীন স্থিতাবস্থার আর্জি জানান। কারখানা এলাকার মধ্যে টাটা মোটরসের বেশ কিছু সরঞ্জামের নিরাপত্তা নিয়ে তিনি প্রশ্ন তোলেন।

তবে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে নিরাপত্তার আশ্বাস দেওয়া হলে আজ বিচারপতি অন্তর্বতীকালীন স্থিতাবস্থার দাবি না মেনে বৃহস্পতিবার ফের শুনানির দিন ধার্য করেন।

বৃহস্পতিবার দুপুর ২টো থেকে ফের এই মামলার শুনানি শুরু হবে বলে বিচারপতি জানান।

প্রকল্প এলাকায় অবাধ লুটপাট: সিঙ্গুরে মেধা পাটেকর

বুধবার দুপুরে টাটার প্রকল্প এলাকায় মিছিল করে সিঙ্গুর কৃষিজমি রক্ষা কমিটি। প্রকল্পের প্রবেশ পথে গিয়ে এই মিছিল শেষ হয়। এই মিছিলে অংশ নেন সমাজসেবী মেধা পাটেকর।

এই মিছিল থেকে দাবি জানানো হয়, এখানে কোন প্রকল্প নয়, জমি ফেরত দেওয়া হোক আমাদের। আমরা এখানে চাষবাস করব।

মেধা পাটেকর এদিন বলেন, ‘সরকার এই জমি নিয়ে নিয়ে ভালই করেছে। কৃষকদের অধিকার এবার প্রতিষ্ঠা হল। ’

অন্যদিকে, স্থানীয় সুত্রে খবর পাওয়া গেছে, বুধবার সকাল থেকেই সিঙ্গুর প্রকল্পের ভেতরে ঢুকে অবাধে লুটপাঠ চালাচ্ছে এলাকাবাসী। জিনিসপত্র ভেঙে নিয়ে যাচ্ছেন স্থানীয় মানুষজন।

পুলিশ উপস্থিত থেকেও নির্বিকার ভূমিকা পালন করছে বলে অভিযোগ।

এই লুটপাঠের নিন্দা করেছে কৃষিজমি রক্ষা কমিটি। তারা এদিন বলেছে, এই ঘটনা অনভিপ্রেত। এই ঘটনার সঙ্গে তাদের কমিটির কেউ জড়িত নয়।

প্রশাসনের কাছে দ্রুত ব্যবস্থা নেবার আর্জি জানিয়েছে তারা।

সিঙ্গুর নিয়ে মমতার প্রতিক্রিয়া

সিঙ্গুরের ন্যানো প্রকল্পের জমি নিয়ে যে জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে তা নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।

বুধবার দিল্লিতে এই বিষয়ে এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘বিষয়টি এখন বিচারাধীন রয়েছে। আইন আইনের পথে যাবে। এখনই এ ব্যাপারে কোন মন্তব্য করবো না। ’

তিনি আরও বলেন, ‘জমি রাজ্য সরকারেরই। আদালতকে তা জানাবে সরকার। অনিচ্ছুক কৃষকদের জমি ফেরত দেওয়ার জন্যই সিঙ্গুর বিল পাশ হয়েছে। এরপর রাজ্যপাল তা স্বাক্ষর করার পর আইনে পরিণত হয়েছে। ’

টাটা মোটরসের আদালতে যাওয়া নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন,‘ গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় যে কেউ আদালতে যেতে পারে। সরকার বিল পাশ করেছে সুতরাং সিঙ্গুরের জমি এখন সরকারের দখলে। সরকার কৃষকদের জমি ফেরত দেবে। ’

বাংলাদেশ সময়: ১৭৪৫ ঘণ্টা, জুন ২৩, ২০১১

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা এর সর্বশেষ

Alexa