bangla news

পাহাড়ে জনমুক্তি মোর্চার বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামছে জিএনএলএফ-বিকাশ পরিষদ

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১১-০৬-২২ ১২:৫০:৪৫ এএম

পশ্চিমবঙ্গ সরকার জনমুক্তি মোর্চার দাবি মোতাবেক দার্জিলিংয়ে প্রস্তাবিত স্বশাসিত পরিষদে সমতলের ডুর্য়াস ও তরাইকে অন্তর্ভুক্ত করার বিরুদ্ধে এবার আন্দোলনে নামতে চলেছে আদিবাসী বিকাশ পরিষদ।

কলকাতা: পশ্চিমবঙ্গ সরকার জনমুক্তি মোর্চার দাবি মোতাবেক দার্জিলিংয়ে প্রস্তাবিত স্বশাসিত পরিষদে সমতলের ডুর্য়াস ও তরাইকে অন্তর্ভুক্ত করার বিরুদ্ধে এবার আন্দোলনে নামতে চলেছে আদিবাসী বিকাশ পরিষদ।

আর এ আন্দোলনে তাদের সঙ্গী হয়েছে পাহাড়ের সাবেক নেতা সুভাষ ঘিসিংয়ের দল জিএনএলএফ।

দু‘টি দলই চাইছে ষষ্ঠ তফসিল চালু করতে।

আদিবাসী বিকাশ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক তেজকুমার টোপ্পো সংবাদমাধ্যমে বলেছেন, দু’দলের নিচুতলার কর্মীদের মধ্যে এ নিয়ে কথাবার্তা চলছে। শীর্ষ নেতাদের বৈঠক আগামী জুলাই মাসের মাঝামাঝি হবে। আমরা এ অঞ্চলে ষষ্ঠ তফসিল চাই।

তিনি আরও বলেন, ‘মোর্চার পৃথক গোর্খাল্যান্ড রাজ্যের দাবি এবং স্বশাসিত পরিষদে তরাইয়ের ১৯৪টি এবং ডুয়ার্সের ২২৩টি মৌজার অন্তর্ভুক্তির তীব্র বিরোধিতা করছি। যদি তা করা হয় তাহলে উত্তরবঙ্গে আগুন জ্বলবে।’

এদিকে, সুভাষ ঘিসিংয়ের ঘনিষ্ঠ নেতা মণি গুরং যৌথ আন্দোলনের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘বিকাশ পরিষদের নেতাদের সঙ্গে কবে এ নিয়ে বৈঠক হবে এখনও স্থির হয়নি।’

আদিবাসী বিকাশ পরিষদ নেতা রাজু বরাও বলেন, ‘যৌথ আন্দোলন নিয়ে খুব দ্রুতই আমরা জিএনএলএফ‘র সঙ্গে আমরা বৈঠক বসব।’

উল্লেখ্য, ষষ্ঠ তফসিল ইস্যুতে জিএনএলএফকে কাছে পেতে অনেকদিন ধরেই চেষ্টা চালাচ্ছে আদিবাসী বিকাশ পরিষদ।

বাংলাদেশ সময়: ১০৪৬ ঘণ্টা, জুন ২২, ২০১১

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

কলকাতা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
db 2011-06-22 00:50:45