ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৭ আগস্ট ২০২০, ১৬ জিলহজ ১৪৪১

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

আসামে বিধানসভার শেষ পর্যায়ের ভোট নির্বিঘ্নে শেষ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৪৭ ঘণ্টা, এপ্রিল ১১, ২০১১

কলকাতা: আসামের বিধানসভা নির্বাচনে দ্বিতীয় দফার ও শেষ পর্যায়ের ভোটগ্রহণ সোমবার  নির্বিঘ্নে শেষ হয়েছে।

রাজ্য নির্বাচন কমিশন (ইসি) জানিয়েছে, ‘আজ (সোমবার) সকাল ৭টা থেকে নিম্ন আসামের ১৪টি জেলার ৬৪ আসনে কড়া নিরাপত্তায় ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে বিকাল ৫টায় শেষ হয়।

এই পর্বে মোট ৪৯৬ জন প্রার্থীসহ নারী প্রার্থীর সংখ্যা ছিল ৪৭ জন। ’

ইসি আরও জানিয়েছে, শেষ পর্যায়ের ভোটার ছিল মোট ৯৬ লাখ ৭৭ হাজার ১১৩ জন। বুথের সংখ্যা ১২ হাজার ৫৮৯টি। এর মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ বুথ ৪ হাজার ১৭৫টি, অতি ঝুঁকিপূর্ণ বুথের সংখ্যা ২ হাজার ৩৩টি। ভোট পড়েছে ৭০ শতাংশের বেশী।

ভোটে নিরাপত্তার জন্য ৩৪৫ কোম্পানি কেন্দ্রীয় আধা সামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছিল।

রাজ্য প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, মানকাছাড়, বেরহামপুর, গৌহাটি পূর্ব, জাগি রোড, নলবাড়ি ও লামডিং কেন্দ্রে বৈদ্যুতিক ভোট যন্ত্রে সমস্যা দেখা দিয়েছিল। তবে দ্রুত সেই সমস্যার সমাধান করা হয়।

বেশ কিছু যায়গায় ভোর সাড়ে ৫টা থেকে মানুষজন ভোটের লাইনে দাঁড়িয়ে পড়েন। আবহাওয়া ভাল থাকায় ভোটদাতারা দলবেঁধে ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের বাইরে উৎসবের  মেজাজে লাইন দেন।

প্রথম ৩ ঘণ্টায় পুরুষদের থেকে নারী ভোটারদের বেশী চোখে পড়েছে।

আজকের (সোমবারের) ভোটে যাদের ভাগ্য নির্ধরিত হল তাদের মধ্যে রয়েছেন- বড়ো ল্যান্ড প্রগেসিভ ফ্রন্টের নেতা হাগ্রামা মহিলারি, রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা, বন ও পর্যটনমন্ত্রী রবিকুল হুসেন, সমাজ কল্যাণমন্ত্রী অকন বরা, ভূমি ও ভূমি রাজস্বমন্ত্রী ভূমিধর বর্মণ।

রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল আসাম গণপরিষদের সভাপতি চন্দ্রমোহন পটওয়ারি এবং বিরোধী দলনেতা ও সাবেক মুখ্যমন্ত্রী প্রফুল্ল কুমার মহন্ত।

উল্লেখ্য, গত ৪ মার্চ আসাম বিধানসভার প্রথম দফার ভোট অনুষ্ঠিত হয়।

ইসি জানিয়েছে, প্রথম দফায় ৭০ শতাংশ ভোট পড়েছিল।

বাংলাদেশ সময়: ২০১০ ঘণ্টা, এপ্রিল ১১, ২০১১

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা এর সর্বশেষ

Alexa