ঢাকা, সোমবার, ২০ আষাঢ় ১৪২৯, ০৪ জুলাই ২০২২, ০৪ জিলহজ ১৪৪৩

ইচ্ছেঘুড়ি

চাঁদ জয়ের গল্প

ইচ্ছেঘুড়ি ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮০৯ ঘণ্টা, এপ্রিল ১, ২০২২
চাঁদ জয়ের গল্প

আয় আয় চাঁদ মামা টিপ দিয়ে যা। চাঁদের কপালে চাঁদ টিপ দিয়ে যা ...

কী? ছোট্টবেলার কথা মনে পড়ছে।

হুম, পড়ারই কথা। ছোট্টবেলায় মা কত না মধুর করে গানটি গেয়ে তোমাকে ঘুম পাড়িয়েছেন। চাঁদের দেশের গল্পও শুনিয়েছেন।

সবার প্রিয় এই চাঁদ দেখতেই চাঁদের দেশের পাড়ি জমিয়েছিলেন নীল আর্মস্ট্রং, মাইকেল কলিন্স এবং এডউইন অলড্রিন। দিনটি ছিল ১৯৬৯ সালের ২০ জুলাই। আর মাত্র ক’দিন পরেই ৪২ বছরে পা রাখছে ঐতিহাসিক এই দিনটি।

১৯৬৯ সালের ১৬ জুলাই অ্যাপোলো-১১ নামের নভোযানে করেই শুরু হয় চাঁদ জয়ের যাত্রা। যাত্রার ৪ দিন পর ২০ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় রাত ১০টা ৫৬ মিনিটে চাঁদের বুকে পা রাখেন নীল আর্মস্ট্রং। চাঁদ নিয়ে মানুষের রটানো নানা কল্পকাহিনীর অবসান ঘটে এদিন।

কলম্বিয়া ও ঈগল নামের দুটি অংশ নিয়ে তৈরি করা হয়েছিল অ্যাপোলো-১১। কলম্বিয়া পরিচালনায় ছিলেন মাইকেল কলিন্স। আর ঈগল পরিচালনায় ছিলেন এডউইন অলড্রিন।

এর আগে ১৯৫৯ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর চাঁদের উদ্দেশ্যে পাঠানো হয় লুনা-২ নামের একটি নভোযান। সে সময় লুনা চাঁদের চারপাশ ঘুরে কিছু ছবি তুলতে সক্ষম হয়। এরপর থেকেই শুরু হয় চাঁদ জয়ের যুদ্ধ।

চাঁদ জয়ের অভিযানে নীল আর্মস্ট্রং চাঁদের বুকে প্রথম পা রাখার সাড়ে ছয় ঘণ্টা পর অলড্রিনও নেমে আসেন। এ সময় তারা চাঁদের বুকে আড়াই ঘণ্টা অবস্থান করেন।

এই সময়ে তারা চাঁদের বুকে স্থাপন করেন যুক্তরাষ্ট্রের পতাকা। ছবি তোলাও কিন্তু মিস করেননি। ফেরার সময় নিয়ে এসেছেন চাঁদের ধূলিকণা আর পাথর।

১৯৬৯ সালের ২৪ জুলাই তারা পৃথিবীর বুকে ফিরে আসেন।

বাংলাদেশ সময়: ০৭৫০ ঘণ্টা, এপ্রিল ১, ২০২২
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa