bangla news

উইকিপিডিয়া : জ্ঞানের মহাসমুদ্র

|
আপডেট: ২০১১-০৭-০৯ ২:৫৬:৪১ এএম

উইকিপিডিয়া বলতে গেলে, এনসাইকোপিডিয়া ব্রিটানিকা অথবা এনসাইকোপিডিয়া আমেরিকানা’র জায়গা দখল করতে বসেছে। সেদিন মনে হয় খুব বেশি দূরে নয়, যখন কাগজে ভরবে না ঘরের বুক শেলফগুলো।

উইকিপিডিয়া বলতে গেলে, এনসাইকোপিডিয়া ব্রিটানিকা অথবা এনসাইকোপিডিয়া আমেরিকানা’র জায়গা দখল করতে বসেছে। সেদিন মনে হয় খুব বেশি দূরে নয়, যখন কাগজে ভরবে না ঘরের বুক শেলফগুলো।

আসলে উইকিপিডিয়া জিনিসটা কি? সহজ উত্তর এটা হচ্ছে, ওয়েবভিত্তিক সীমাছাড়া, নানা বিষয়ের বহুভাষী একটা বিশ্বকোষ বা এনসাইকোপিডিয়া। উইকি এবং এনসাইকোপিডিয়া শব্দ মিলেই উইকিপিডিয়া।

উইকিপিডিয়া যাত্রা শুরু করে ২০০১ সালের ১৫ জানুযারি। নিউপিডিয়া’র সহযোগী হিসেবে উইকিপিডিয়া এখন পরিচালনা বা নিয়ন্ত্রণ করছে উইকিপিডিয়া ফাউন্ডেশন। এর প্রতিষ্ঠাতা ল্যারি স্যাঙ্গার ও জিমি ওয়ালেস।

বর্তমানে উইকিপিডিয়ায় অন্তর্ভূক্ত নিবন্ধের সংখ্যা ৬০ লাখের বেশি। যেখানে স্থান পেয়েছে ২৫০ টিরও বেশি ভাষা। আর উইকিপিডিয়া ইংরেজী ভাষার সংস্করনে নিবন্ধের সংখ্যা ১৬ লাখ। বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে জনপ্রিয় যে ১০টি ওয়েবসাইট আছে তার মধ্যে উইকিপিডিয়া একটি।

উইকিপিডিয়া হচ্ছে এমন ধরণের বিশ্বকোষ, যার যে কোনো বিষয়ের নিবন্ধে কোনো ধরনের ভুল ধরা পড়লে, সহজেই তা সংশোধন করা সম্ভব। উইকিপিয়ার মাধ্যমে শুধু বড়রাই নয়, তোমাদের মতো শিশুরাও এটি ব্যবহারের মাধ্যমে পুরো বিশ্বটা নিজেদের কাছে খুবই পরিচিত করে তুলছে। তুমিও ইচ্ছে করলে একটি নিবন্ধ লিখে উইকিপিডিয়ায় অন্তর্ভূক্ত হতে পারো।

উইকিপিডিয়া হচ্ছে তথ্যের সাগর। আর তাই জ্ঞানের নুড়ি কুড়োতে হলে সেই মহাসাগরে স্নান করতেই হবে। ভবিষ্যতই বলে দেবে, উইকিপিডিয়া আমাদের দৈনন্দিন জীবনে কতটা প্রয়োজনীয় হয়ে উঠেছে।

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

ইচ্ছেঘুড়ি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2011-07-09 02:56:41