bangla news

একটি স্বপ্ন ও বাস্তবতা

|
আপডেট: ২০১০-০৮-০৮ ৩:৩৫:২০ পিএম

ঝড়ের রাতে জন্ম হয়েছিল বলে ছেলেটির নাম দেওয়া হয়েছিল ‘ঝাড়ু’। ঝাড়ুকে এই নামটা দিয়েছিল ঝাড়ুর বাবা। পেশায় যিনি একজন বর্গাচাষী।

ঝড়ের রাতে জন্ম হয়েছিল বলে ছেলেটির নাম দেওয়া হয়েছিল ‘ঝাড়ু’। ঝাড়ুকে এই নামটা দিয়েছিল ঝাড়ুর বাবা। পেশায় যিনি একজন বর্গাচাষী। তারা যে গ্রামে বাস করে সেই গ্রামের চেয়ারম্যানের জমি বর্গা নিয়ে চাষ করে ঝাড়ুর বাবা। ঝাড়ু ধীরে ধীরে বড় হয়। ঝাড়ুর বুকে বাসা বাধে এক ঝাঁক স্বপ্ন। একদিন সে স্কুলে যাবে, পড়াশোনা করবে। অনেক বড় অফিসার হবে। ঝাড়ু তার মাকে বলে, ‘মা দেখো আমি একদিন অনেক বড় অফিসার হবো। তখন আমাদের আর কোন দুঃখ থাকবে না। কথাগুলো শুনে ঝাড়ুর মা মুচকি হাসি দিতেন। ঝাড়ু তার মায়ের এই হাসির অর্থটা বুঝতো না।’ শুধু তাকিয়েই থাকতো। একবার খরায় জমিতে একদম ফসল হয়নি। এমনিতেই ঝাড়ুদের ছিলো অভাব। তার উপর জমিতে ফলন না হওয়ায় তাদের উপর নেমে আসে সীমাহীন দুর্ভোগ।
এরই মধ্যে ঝাড়ুর বাবাকে একদিন চেয়ারম্যান ডেকে বললেন, আমার ছেলে ঢাকায় থাকে। ওর বাসায় একটা কাজের ছেলে দরকার। তোমার তো অভাবের সংসার। তোমার ছেলে ঝাড়ুকে দাও। আমার ছেলের সাথে থাকবে। ভালো খাবে। ঝাড়ুর বাবা ভাবলো, ভালোই হবে। তবে ঝাড়ুর মা ছিল পুরো বিপরীত। সে কিছুতেই ছেলেকে ছাড়বে না। কিন্তু শেষ পর্যন্ত মা’র অনিচ্ছা সত্ত্বেও ঝাড়ুকে ঢাকায় পাঠানো হলো।
ঢাকায় আসার কিছুদিন যেতে না যেতে ঝাড়ুর কাজ বেড়েই চলছিল। তার কাজ যেন আর শেষ হয় না। সারাদিন হাড় ভাঙ্গা পরিশ্রমের পর জুটতো অল্প কিছু খাবার। তারপর কাজে একটু ভুল হলে ঝাড়ুর ভাগ্যে জুটতো সীমাহীন অত্যাচার আর নির্যাতন। এতকিছুর পরও ঝাড়ু তার স্বপ্নের কথা ভুলে যায়নি। ভুলে যায়নি তা অফিসার হওয়া স্বপ্ন। কিন্তু ঝাড়ুর প্রতি অত্যাচারের মাত্রা দিন দিন বাড়তেই থাকে। একদিন বাসা থেকে রাতের বেলায় পালিয়ে যায় ঝাড়ু। রাতের অন্ধকার পথে ঝাড়ু ছুটছে তো ছুটছেই।
পরদিন পত্রিকায় ঝাড়ুর ছবি সম্বলিত একটি বিজ্ঞপ্তি ছাপা হলো। বিজ্ঞপ্তিটির ভাষা ছিল এরকম, এই ছেলেটি গতকাল রাতে কিছু টাকা-পয়সা চুরি করে পালিয়ে গেছে। যদি কেউ ছেলেটির সন্ধান দিতে পারেন তবে নিচের ঠিকানায়....
সেই পত্রিকার শেষ পৃষ্ঠায় ছোট করে আরো একটি খবর ছিল। খবরটির শিরোনাম ছিল : গতকাল রাজধানীতে তিনটি পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় অজ্ঞাত পরিচয়ের বালকসহ তিনজন নিহত।

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

ইচ্ছেঘুড়ি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
db 2010-08-08 15:35:20