ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৭ মাঘ ১৪২৭, ২১ জানুয়ারি ২০২১, ০৭ জমাদিউস সানি ১৪৪২

ইচ্ছেঘুড়ি

‘একাত্তরের দিনগুলি’ থেকে ‘বিদায় দে মা ঘুরে আসি’

তোফাজ্জল লিটন | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৫০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৫, ২০১০
‘একাত্তরের দিনগুলি’ থেকে ‘বিদায় দে মা ঘুরে আসি’

জীবন-মৃত্যর ব্যবধান যেখানে একটি গুলি। যেখানে রুমি ঘুরে বেড়াচ্ছে ঢাকার এ প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে।

অন্য সব ছাত্র-জনতার সঙ্গে  মিছিল, মিটিং, স্লোগান আর বক্তৃতায় জানান দিচ্ছে বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলনের কথা। সারাদিন ছুটা-ছুটির পর রুমি ঘরে ফিরে সন্ধ্যার পর অথবা রাতে। মা জাহানারা ইমামের সঙ্গে সারা দিনের গল্প করে। দেশ নিয়ে তার  চিন্তা-ভাবনার কথা বলে। মাকে বলে ‘ইয়াহিয়া সরকার নানা আলোচনার কথা বলে টাল-বাহানা করছে তারা বাঙালিদের কখনোই স্বাধীনতা দেবে না’।

সব শুনে মায়ের বুক ধুক ধুক করে। দেশের জন্য, রুমির জন্য আর রুমির মতো দেশের অসংখ্য সন্তানের জন্য। মা লিখতে থাকেন রুমির কথা মতো ১৯৭১ এর মুক্তিযুদ্ধের প্রতিদিনের কথা। যে কথা তিনি লিখতে থাকেন তা হয়ে উঠে মুক্তিযুদ্ধের দলিলের মতো। এ দলিলের নাম ‘একাত্তরের দিনগুলি’। এর কিশোর সংস্করণের নাম ‘বিদায় দে মা ঘুরে আসি’।

শুক্রবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর মূল মঞ্চে আবৃত্তি সংগঠন ‘মুক্তবাকে’র সদস্য পাঠ এবং গানে উপস্থাপন করে ‘বিদায় দে মা ঘুরে আসি’।   এটি তাদের নবম প্রযোজনা। ছোটদের মুক্তিযুদ্ধে ইতিহাস জানাতেই তাদের এই আয়োজন।

অনুষ্ঠানে ছিল বাঁশি আর রেকর্ড প্লেয়ারের আবহ সঙ্গীত। পুরো কাজটি মঞ্চে এনেছেন অর্থাৎ নির্দেশনা দিয়েছেন ইকবাল খোরশেদ।  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad
Alexa