bangla news

শুরু হচ্ছে ভর্তি যুদ্ধ, তুমি তৈরি তো?

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১০-১১-১৩ ১১:১৭:৫৬ পিএম

সব যুদ্ধেরই আছে জয় পরাজয়। তবে তোমাদের ভর্তি যুদ্ধটা একটু অন্যরকম। কারণ তোমাদের জীবনে এটাই প্রথম যুদ্ধ। অবশ্য এরকম যুদ্ধ ভবিষ্যতে আরো আসবে। তবে বয়সের কারণে সেসময় তোমরা সে যুদ্ধের মোকাবেলা করতে পারবে।

সব যুদ্ধেরই আছে জয় পরাজয়। তবে তোমাদের ভর্তি যুদ্ধটা একটু অন্যরকম। কারণ তোমাদের জীবনে এটাই প্রথম যুদ্ধ। অবশ্য এরকম যুদ্ধ ভবিষ্যতে আরো আসবে। তবে বয়সের কারণে সেসময় তোমরা সে যুদ্ধের মোকাবেলা করতে পারবে।

কিন্তু জীবনের প্রথম এই যুদ্ধ দেখে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। তারপরও উৎকণ্ঠা যেনো তোমাদের চেপে ধরেছে। তোমাদের সঙ্গে তোমাদের বাবা-মা’রও যেনো চিন্তার শেষ নেই। কীভাবে ভাল একটা স্কুলে, ভাল রেজাল্ট করে ভর্তি হওয়া যায়?

প্রতি বছরের এই সময়টা তোমাদের অনেকের কাছেই উৎকণ্ঠার সময়। ঠিক এত পড়ায় অভ্যস্ত নয় তোমরা। আবার পরীক্ষার হলে খুব মোটা মোটা চশমার আড়ালে শিক্ষকদের রাশভারি চোখ, গলা সমান বেঞ্চের মধ্যে পেন্সিল হাতে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র। আশেপাশে পুলিশ, বাবা মার বারবার সতর্ক করার বাণী, বড় বড় স্কুল ঘরে সিট প্লান অনুযায়ী বসা। সব মিলিয়ে যেন একটা মহাযজ্ঞ। এই বড় যজ্ঞে প্রতিবছরই সামিল হতে হচ্ছে তোমাদের মতো অনেক শিশু বন্ধুদের।

আর তোমাদের বাবা-মা’রও যেনো কমতি নেই ভর্তির জন্য সব রকমের চেষ্টা করতে। প্রতিষ্ঠানগুলোও নিত্য নতুন বাহারিপনা নিয়ে হাজির হচ্ছে। কোথাও বলছে লটারি করে ভর্তি করানো হবে, কোথাও ভর্তি পরীক্ষা, কোথাও বাবা-মাকে সহ শিশুর ইন্টারভিউ, কোথাও বয়সের ভিত্তিতে ভর্তি করানো। এমনই নানান বিয়ষের নানান স্কুলে ভর্তি পরীক্ষায় শিশুদের হয়রানির কমতি নেই ।

যাই হোক তোমরা কিন্তু ভয় পেয়ো না, তোমরা যাতে ভর্তি পরীক্ষায় ভয় না পেয়ে খুব সাহসের সাথে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারো তার কিছু টিপস শিখে নাও...

  • পরীক্ষা হলে বাইরে ও ভেতরে অনেক মানুষ দেখে একটুও ভয় পাবে না।
  • খুব বেশি আশা নিয়ে পরীক্ষা দিবে না।
  • প্রতিযোগিতা খুব ভাল একটি বিষয়, কিন্তু সেখানে হার-জিৎ থাকে, তাই মন খারাপ করা চলবে না।
  • শিক্ষকদের দেখে ভয় পাবে না, কারণ তারা খুবই সহযোগিতা করে।
  • পরীক্ষার সময় খুব কম থাকে, তাই এদিক ওদিক না তাকিয়ে মনোযোগ দিয়ে পরীক্ষা দিতে হবে । এ সময় বাইরে দাঁড়িয়ে থাকা বাবা-মার জন্য মন খারাপ করা চলবে না।
  • মন খারাপ করতে করতে কখন দেখবে পরীক্ষার সময় শেষ।
  • যে প্রশ্নগুলো পারো তা আগে লিখবে, একটু কম পারো যেগুলো, সেগুলো শেষে লিখবে। আর যা পারো না তা লিখবে না। কারণ ভুল লিখলে শিক্ষকরা অসন্তুষ্ট হয়।
  • পরিষ্কার করে লিখবে। ভুল হলে একটা দাগ দিয়ে কেটে আবার লিখবে।
  • আর সবচেয়ে ভাল কথা হল তোমাদের জন্য অনেক স্কুল আছে। একটাতে না পারলে আরেকটাতে ভর্তি হওয়া যাবে।
  • তাছাড়া তোমার হাতে সময়ও আছে। সবে তো মাত্র শুরু, এবছর না পারলে আরো ভাল প্রস্তুতি নিয়ে পরবর্তী বছর পরীক্ষা দিবে।

তোমাদের সবার জন্য শুভকামনা।

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

ইচ্ছেঘুড়ি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2010-11-13 23:17:56