ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৩ মে ২০২৪, ১৪ জিলকদ ১৪৪৫

ইসলাম

ক্রিসমাসে ফ্রি খাওয়াবেন লন্ডনের মুসলিম রেস্তোরাঁ মালিক

ইসলাম ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৪০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৮, ২০১৬
ক্রিসমাসে ফ্রি খাওয়াবেন লন্ডনের মুসলিম রেস্তোরাঁ মালিক ছবি: সংগৃহীত

সামনেই খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় উৎসব বড়দিন। এ উপলক্ষে সাজসাজ রব বিশ্বের প্রায় সব দেশে। নানাভাবে বিভিন্ন আয়োজনে বড়দিন পালন করতে চেষ্টার কমতি নেই। এরই মধ্যে শুরু হয়ে গেছে বড়দিন সামনে রেখে নানা আয়োজন আর প্রার্থনা অনুষ্ঠান।

সামনেই খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় উৎসব বড়দিন। এ উপলক্ষে সাজসাজ রব বিশ্বের প্রায় সব দেশে।

নানাভাবে বিভিন্ন আয়োজনে বড়দিন পালন করতে চেষ্টার কমতি নেই। এরই মধ্যে শুরু হয়ে গেছে বড়দিন সামনে রেখে নানা আয়োজন আর প্রার্থনা অনুষ্ঠান।

প্রত্যেকেই চেষ্টা করছেন, নিজেদের আয়োজনে দারুণ কিছু করে আশপাশের সবাইকে চমকে দিতে। এমনই চমক সৃষ্টি করলেন লন্ডনের এক মুসলিম রেস্তোরাঁ মালিক। তিনি ঘোষণা দিয়েছেন, এবারের ক্রিসমাসে গৃহহীন ও বয়ষ্কদের ফ্রি খাওয়াবেন তিনি।

লন্ডনের উপকন্ঠে অবস্থিত ‘শিশ’ নামের ওই রেস্তোরাঁটির মালিক একজন তুর্কি মুসলিম। তিনি এ ঘোষণা দিয়েছেন।

গত মাসের প্রথমদিকে পার্শ্ববর্তী এলাকার এক বৃদ্ধা রেস্তোরাঁটিতে গিয়ে উপস্থিত লোকদের কাছে সাহায্য প্রার্থনা করেন। কারণ, তিনি তার বাড়ির একটি জানালা বন্ধ করতে পারছিলেন না।

বৃদ্ধা মহিলার এমন সাহায্য কামনায় ব্যাতিব্যস্ত হয়ে ওঠে রেস্তোরাঁটির কর্মচারীরা। তাদের একজন গিয়ে মহিলার জানালাটি খুলে দিয়ে আসেন। পরদিন ধন্যবাদ জানাতে মহিলা আবারও হোটেলটিতে যান এবং এও জানান যে এবারের ক্রিসমাসে তিনি সম্পূর্ণ একা। বৃদ্ধার মুখের কথা শোনে রেস্তোরাঁ মালিক সারদার কিজলির হঠাৎ তার মায়ের কথা মনে পড়ে। মায়ের সঙ্গে দেখা নেই তার অন্তত ৫ বছর। দেশে তিনি একা থাকেন। এমন ভাবনা থেকেই কিজলি একটি পরিকল্পনা করেন।

পরিকল্পনা অনুযায়ী, তারা রেস্তোরাঁর সামনে হাতে লেখা একটি প্ল্যাকার্ড টাঙান। তাতে লেখা ছিলো, ‘ক্রিসমাসে কেউই একা খায় না, আমরা তোমাকে সঙ্গ দেবো। বয়স্ক এবং গৃহহীনরা এখানে স্বাগতম, তিন পদের খাবার খেয়ে যাও এসে। ’

তাদের ফেসবুক পেজ থেকেও এই আহ্বান জানানো হয়েছে। আর ইতিমধ্যেই সেই আহ্বান ভাইরাল হয়ে গেছে।

জানা গেছে, ক্রিসমাসের দিন রেস্তোরাঁটিতে অন্তত ২৫ জন স্বেচ্ছাসেবা দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। এমনকি কয়েকজন ট্যাক্সি ড্রাইভারও গৃহহীন এবং বয়স্কদের বিনামূল্যে রেস্তোরাঁয় নিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

রেস্তোরাঁটিতে একসঙ্গে ৬৬ জন বসতে পারে। ক্রিসমাসের সারা দিনই এটি খোলা থাকবে।

উল্লেখ্য, বড়দিন একটি বাৎসরিক খ্রিস্টীয় উৎসব। ২৫ ডিসেম্বর এই উৎসব পালিত হয়। বিশ্বের অধিকাংশ রাষ্ট্রেই বড়দিনে সরকারি ছুটি থাকে।  

-সিএনএন অবলম্বনে

বাংলাদেশ সময়: ২০৪১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৮, ২০১৬
এমএইউ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।