ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

ইসলাম

টিকেট কেটে বড়শিতে মাছ ধরা শরিয়তসম্মত নয়

ইসলাম ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪২০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৫, ২০১৬
টিকেট কেটে বড়শিতে মাছ ধরা শরিয়তসম্মত নয় ছবি: সংগৃহীত

দেশের বিভিন্ন এলাকায় বড়শি দিয়ে মাছ শিকারের জন্য নির্দিষ্ট মূল্যে টিকেট ছাড়া হয়। এছাড়া ঢাকার বিভিন্ন স্থানে টিকেটের বিনিময়ে বড়শি দিয়ে মাছ শিকারের ব্যবস্থা রয়েছে। 

দেশের বিভিন্ন এলাকায় বড়শি দিয়ে মাছ শিকারের জন্য নির্দিষ্ট মূল্যে টিকেট ছাড়া হয়। এছাড়া ঢাকার বিভিন্ন স্থানে টিকেটের বিনিময়ে বড়শি দিয়ে মাছ শিকারের ব্যবস্থা রয়েছে।

 

টিকেট সংগ্রহকারীরা নির্ধারিত দিনে বড়শি দিয়ে নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত মাছ শিকার করে থাকেন। যে যা শিকার করতে পারেন সেটা তার। কেউ অনেক মাছ শিকার করতে পারেন, কেউ শুন্য হাতেও ফেরেন। অনেক জায়গায় মাছ শিকারকে আকর্ষণীয় করতে যে সবচেয়ে বড় মাছ ধরতে পারেন, তাকে আয়োজক কমিটির পক্ষ থেকে পুরস্কৃতও করা হয়।

কিন্তু মাছ শিকারের এমন পদ্ধতি শরিয়তসম্মত নয়। কেননা এতে কে কী পরিমাণ মাছ পাবেন- তা অসম্পূর্ণ ও অস্পষ্ট। ক্ষেত্রবিশেষ একেবারেই মাছ না পাওয়ার সম্ভাবনা আছে। এটা ধোঁকার নামান্তর ও শরিয়ত নিষিদ্ধ কারবার ‘আল গারারে’র অন্তর্ভুক্ত।

এ ছাড়া জুয়ার সঙ্গেও এর সাদৃশ্যতা রয়েছে। কারণ এভাবে মাছ শিকার কে কী পরিমাণ করতে পারবে তার কোনো নিশ্চয়তা নেই। কেউ হয়ত পাবেই না। অথচ টাকা দিয়েছে সবাই। যা আর ফেরত পাওয়া যাবে না। ফলে যে মাছ পাবে না, সে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। আবার এমনও হতে পারে- কেউ টিকেটের মূল্য থেকে অনেক বেশি মূল্যের মাছ পেয়ে যাবে।

এক কথায়, যেহেতু এভাবে মাছ পাওয়া, না পাওয়া, বেশি পাওয়া ইত্যাদির অনিশ্চয়তা মূল লেনদেনের সঙ্গে জড়িত; তাই তা নাজায়েয। মুসলমানদের জন্য তা পরিহার করা কর্তব্য।

বাংলাদেশ সময়: ২০১৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৫, ২০১৬
এমএইউ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।